শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৯ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৮ জুন, ২০২১ ২৩:৩১

করোনায় মন্ত্রণালয়গুলোর সমন্বয়হীনতা

নিজস্ব প্রতিবেদক

করোনায় মন্ত্রণালয়গুলোর সমন্বয়হীনতা
Google News

জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেছেন, করোনা সংক্রমণ ইস্যু নিয়ে সরকারের ভিতরে অস্থিরতা লক্ষ্য করছি। গত কয়েক দিনে লকডাউন-শাটডাউন নিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি এবং তা ঘন ঘন সংশোধন করা হয়। অদলবদল করা হয় কয়েক ঘণ্টার মধ্যে। এসব বক্তব্য-বিবৃতির মধ্য দিয়ে অস্থিরতাই প্রকাশ পাচ্ছে। প্রজ্ঞাপনে পরস্পরবিরোধী বক্তব্যও রয়েছে। এরকম পরিস্থিতিতে এটা বাঞ্ছনীয় নয়।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশনে গতকাল ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন। সরকারের সাবেক এই মন্ত্রী করোনা নিয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোর মধ্যে সমন্বয়হীনতারও অভিযোগ তুলে বলেন, আমি যতটটুকু জানি করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য স্বাস্থ্যসহ নয়টি মন্ত্রণালয় সম্পৃক্ত। এই মন্ত্রণালয়গুলোর মধ্যে সমন্বয়হীনতাও লক্ষণীয়।

জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু আরও বলেন, সর্বোচ্চ কূটনীতি প্রয়োগ করে টিকা সংগ্রহ করতে হবে। দেশের ভিতরে টিকা উৎপাদনের ব্যবস্থা করতে হবে। ২০২২ সালের মধ্যে ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে সবাইকে টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে। আমি মনে করি টিকাই মানুষকে বাঁচাবে। তিনি আরও বলেন, করোনায় মৃত্যু আশঙ্কাজনকভাবে বাড়েছে। শহরেই নয়, জেলা-উপজেলা শহরেও সংক্রমণ ঘটেছে। ঘরে ঘরে অনেক অসুস্থ। জেলা-উপজেলায় রোগীর জন্য বেড পাওয়া যায় না। অক্সিজেনের জন্য হাহাকার চলছে। সরকারও বিষয়টি নিয়ে চিন্তিত এবং উদ্বিগ্ন। সরকারের সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, সংক্রমণ বিস্তার রোধে লকডাউন এবং শাটডাউনের কোনো বিকল্প নেই। কিন্তু অভিজ্ঞতা বলে দুই-তিন দিনের মধ্যে খাদ্যের জন্য সাধারণ মানুষের হাহাকার শুরু হয়। সংকট দেখা দেয়। অপরদিকে সংক্রমিত ব্যক্তির জন্য বেড, অক্সিজেনের চাহিদা ও আইসিইউর জন্য দৌড়াদৌড়ি। এক্ষেত্রে জেলা-উপজেলার হাসপাতালগুলোতে অবিলম্বে কিছু বেড বাড়ানো উচিত। আইসিইউ হয়তো বাড়ানো যাবে না।

কিন্তু হাইফ্লো নাজাল ক্যানুলা, অক্সিজেন সিলিন্ডার, পোর্টেবল অক্সিজেন জোগাড়ের সুযোগ রয়েছে। আমার দাবি থাকবে একটা রোগীও যেন হাসপাতাল থেকে ফিরে না যায় সে চেষ্টা করতে কবে।

জাসদ সভাপতি আরও বলেন, করোনা মোকাবিলায় নিয়োজিত চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা জীবন হাতে নিয়ে কাজ করছেন। তাদের গত ৯ মাসে কোনো দৈনিক ভাতা দেওয়া হয়নি। আমি জানি তাদের জন্য বরাদ্দ রয়েছে। তাদের প্রণোদনা দেওয়া দরকার। একই সঙ্গে নীতিমালা পরিবর্তন চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মীদের ঝুঁকিভাতা-প্রণোদনা দেওয়া উচিত।

এই বিভাগের আরও খবর