বুধবার, ২৮ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা

ওমরাহ ঘোষণায় স্বস্তি প্রস্তুতি নিচ্ছে হাব

শফিকুল ইসলাম সোহাগ

মহামারী করোনার কারণে ২০২০ সালের ২৪ ফেরুয়ারি থেকে বিদেশিদের জন্য পবিত্র ওমরাহ পালন বন্ধ করে ছিল সৌদি সরকার। দীর্ঘ সতেরো মাস পর আগামী ১০ আগস্ট বা ১ মহররম থেকে শর্ত সাপেক্ষে আবারও বিদেশিদের জন্য পবিত্র ওমরাহ পালনের ঘোষণা দিয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ। সৌদি সরকারের এমন ঘোষণায় বাংলাদেশের সংশ্লিষ্ট সবার মধ্যে এ নিয়ে স্বস্তি বিরাজ করছে। গত সোমবার সৌদির হজ ও ওমরাহ বিষয়ক মন্ত্রণালয় কয়েকটি শর্তপূরণ সাপেক্ষ বাংলাদেশি ওমরাহ প্রত্যাশীদের সৌদি আরব পাঠানোর জন্য হজ এজেন্সিজ  অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশকে (হাব) চিঠি পাঠিয়েছে।

এ বিষয় জানতে চাইলে হাব সভাপতি এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে জানান, আমরা ১০ তারিখ থেকেই ওমরাহ পালনের জন্য ওমরাহ যাত্রীদের সৌদি পাঠাতে পারব না। তবে, সৌদি আরবের হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়ের চিঠি পাওয়ার পর ওমরাহ যাত্রীদের প্রেরণের জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ শুরু করেছি। ওমরাহ পালনের জন্য সৌদির প্রাইভেট কোম্পানিগুলোর সঙ্গে আমাদের প্রাইভেট প্রতিষ্ঠানগুলোর চুক্তি করতে হয়। এ ছাড়া সৌদি নতুন করে যেসব শর্ত দিয়েছে তা পূরণসহ পুরো প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে আমাদের এক মাস সময় লেগে যাবে।

যেসব শর্ত মানতে হবে : হজযাত্রীদের প্রত্যেককে ওমরাহ পালনের জন্য সৌদি আরবে যেতে ফাইজার, মডার্না, অ্যাস্ট্রাজেনেকা বা জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকার পূর্ণ ডোজ সম্পন্ন করতে হবে। ১৮ বছর বা তার বেশি বয়সীরাই ওমরাহ পালনের জন্য সৌদিতে প্রবেশের সুযোগ পাবেন। যারা টিকা নেননি বা উল্লিখিত চারটি টিকার বাইরে অন্য কোনো টিকা নিয়েছেন তাদের কভিড নেগেটিভ রিপোর্ট বাধ্যতামূলক ও সৌদি আরব পৌঁছে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। এ ছাড়া ভিসার জন্য মক্কা-মদিনায় হোটেলের অগ্রিম রুম ভাড়া পরিশোধের রশিদ জমা দিতে হবে।

নিষিদ্ধই থাকছে নয় দেশ : নয়টি দেশ ছাড়া বাকি সব দেশ সরাসরি ওমরাহর ফ্লাইট পাঠাতে পারবে। নিষিদ্ধ নয়টি দেশ হলো- ইন্ডিয়া, পাকিস্তান, ইন্দোনেশিয়া, মিসর, তুরস্ক, আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, দক্ষিণ আফ্রিকা এবং লেবানন। উল্লিখিত দেশগুলো থেকে ওমরাহে আসতে হলে তৃতীয় কোনো দেশে গিয়ে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইন করে তারপর আসতে হবে। এক্ষেত্রেও ভ্যাকসিনের শর্ত বহাল থাকবে।

সর্বশেষ খবর