শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১৪ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৩ আগস্ট, ২০২১ ২৩:২৭

পরীমণি মৌসহ তিনজন কারাগারে

জামিন মেলেনি রাজের, হেলেনা জাহাঙ্গীরকে জিজ্ঞাসাবাদ

নিজস্ব প্রতিবেদক

পরীমণি মৌসহ তিনজন কারাগারে
Google News

পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) দ্বিতীয় দফার রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে চিত্রনায়িকা পরীমণি, কথিত মডেল মরিয়ম আক্তার মৌসহ তিন আসামিকে গতকাল কারাগারে পাঠানো হয়েছে। অন্য আসামি হলেন পরীমণির সহযোগী আশরাফুল ইসলাম দীপু।

এ ছাড়া রিমান্ড শেষ হলেও পর্নোগ্রাফি আইনের মামলায় রিমান্ডে থাকায় প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজ ও তার সহযোগী সবুজ আলীকে সিআইডির হেফাজতে নেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

এর আগে গতকাল দুপুরে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে মাদক মামলার রিমান্ড শেষে ওই পাঁচ আসামিকে হাজির করেন সিআইডির তদন্ত কর্মকর্তারা। তবে আসামিদের রিমান্ড চাননি তারা। পরে আসামিদের জামিন আবেদন নাকচ করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন বিচারক। এদিকে, ১০ আগস্ট আদালতে হাজির করে পরীমণি, রাজ, মৌ, দীপু ও সবুজ আলীকে দ্বিতীয় দফায় দুই দিন করে রিমান্ডে নেওয়া হয়। আদালত ও মামলার তদন্ত সংশ্লিষ্টরা জানান, পরীমণির মাদক মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে- বনানীর বাসায় পরীমণি তার সহযোগী আশরাফুল ইসলামের মাধ্যমে বিদেশি মদ সংগ্রহ করে মজুদ রাখেন। তার বাসার একটি কক্ষের  কাঠের ফ্রেমের ভিতর থেকে বিদেশি মদ জব্দ করা হয়। এ ছাড়া একটি সাদা জিপারে রাখা চার গ্রাম আইস বা ক্রিস্টাল মেথ জব্দ করা হয়েছে। আরও জব্দ করা হয়েছে এলএসডি মাদক। পরীমণির বাসা থেকে জব্দ বিদেশি মদসহ অন্যান্য মাদকের মূল্য ধার্য হয়েছে ২ লাখ ১১ হাজার ৫০০ টাকা। পরীমণি এসব মাদক কবির নামে এক ব্যক্তির মাধ্যমে সংগ্রহ করে বাসায় রাখতেন। তাকে গত ১০ আগস্ট আদালতে হাজির করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। সিআইডি-সূত্র জানান, চিত্রনায়িকা পরীমণি, প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজসহ ছয়জনের বাসায় অভিযান চালিয়ে জব্দ ছয়টি দামি গাড়ির প্রকৃত মালিক কারা, সে বিষয়ে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে। জব্দ গাড়িগুলোর মালিকের তথ্য জানতে বিআরটিএর কাছে চিঠি দেওয়া হয়েছে। ছয়টি গাড়ির মধ্যে পরীমণিরটি টয়োটা হেরিয়ার, পিয়াসার মাজদা ও বিএমডব্লিউ, নজরুল ইসলাম রাজের দুটি হেরিয়ার, শরফুল হাসান ওরফে মিশু হাসানের ফেরারি গাড়ি রয়েছে। পরীমণি, পিয়াসা, মৌ, হেলেনা জাহাঙ্গীর, প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজসহ সাতজনের বিরুদ্ধে মোট ১৫ মামলার ১৪টিই তদন্ত করছে সিআইডি। এদিকে গতকাল আদালতে হাজির করে পরীমণিকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন সিআইডির পরিদর্শক গোলাম মোস্তফা। আবেদনে বলা হয়- দুই দফা রিমান্ডে মামলার বিষয়ে পরীমণি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য-উপাত্ত দিয়েছেন। মামলার তদন্তের স্বার্থে তা যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। মামলার অভিযোগের সঙ্গে তার জড়িত থাকার ব্যাপারে পর্যাপ্ত সাক্ষ্য-প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে। তদন্ত অব্যাহত আছে। মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত পরীমণিকে জেলহাজতে আটক রাখা একান্ত প্রয়োজন। আসামি জামিনে মুক্তি পেলে মামলার তদন্তে বিঘ্ন সৃষ্টি হতে পারে। এমনকি পলাতক হওয়ার আশঙ্কাও রয়েছে। এদিকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় গ্রেফতার হেলেনা জাহাঙ্গীরকে দ্বিতীয় দিনের মতো জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এ ছাড়া মাদক, বিশেষ ক্ষমতা, অস্ত্র ও পর্নোগ্রাফি আইনের মামলায় মিশু হাসান ও জিসানকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। ৩০ জুলাই গুলশান থানায় হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়। ৫ আগস্ট মাসুদুল ইসলাম ওরফে জিসান ও পিয়াসার বিরুদ্ধে খিলক্ষেত থানায় মাদকদ্রব্য আইনে, একই দিনে নজরুল ইসলাম রাজ ও সবুজ আলীর বিরুদ্ধে বনানী থানায় পর্নোগ্রাফি আইনে, ৪ আগস্ট ভাটারা থানায় জিসানের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে এবং শরফুল হাসান ওরফে মিশু হাসানের বিরুদ্ধে একই থানায় অস্ত্র আইনে মামলা হয়। এ ছাড়া একই দিনে মিশু হাসান ও জিসানের বিরুদ্ধে পর্নোগ্রাফি আইনে আলাদা মামলা হয়েছে।

পরীমণি কাশিমপুর কারাগারে : চিত্রনায়িকা পরীমণিকে গাজীপুরের কাশিমপুর মহিলা কেন্দ্রীয় কারাগারে আনা হয়েছে। শুক্রবার রাত ৭টার দিকে তাকে প্রিজনভ্যানে করে ওই কারাগারে আনা হয়। কাশিমপুর মহিলা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেল সুপার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) আবদুল জলিল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। পরীমণিকে কাশিমপুর কারাগারে আনা হচ্ছে এমন খবর ছড়িয়ে পড়লে বিপুল সংখ্যক উৎসুক জনতা এবং গণমাধ্যম কর্মীরা বিকেল হতে কারা কমপ্লেক্স ফটকের সামনে ভিড় জমায়।  জেলসুপার আবদুল জলিল জানান, পরীমণিকে বহনকারী প্রিজনভ্যান রাত ৭টার দিকে এ কারাগারে পৌঁছে। আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী তাকে এ কারাগারে বন্দী রাখা হবে।

এই বিভাগের আরও খবর