সোমবার, ১৪ মার্চ, ২০২২ ০০:০০ টা

বরকত-রুবেলের বাসে আগুনে মামলা নাইটগার্ড আটক

ফরিদপুর প্রতিনিধি

ফরিদপুরে আলোচিত ২ হাজার কোটি টাকা পাচার মামলার আসামি শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন বরকত ও তার ভাই প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ইমতিয়াজ হাসান রুবেলের মালিকানাধীন সিআইডির জব্দকৃত সাউথ লাইন পরিবহনের ১২টি বাসে আগুনের ঘটনা নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। আগুনের ঘটনার দুই দিন পেরিয়ে গেলেও এখনো কোনো রহস্য উদঘাটন করতে পারেনি পুলিশ। তবে পুলিশের পক্ষ থেকে মামলার পাশাপাশি তিন সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কয়েকটি ক্লু নিয়ে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুমন রঞ্জন সরকার। একসঙ্গে ১২টি বাসে আগুনের ঘটনা নিয়ে শহরজুড়ে বেশ আলোচনার সৃষ্টি হয়েছে। বাসে আগুনের ঘটনাটি নাশকতা, নাকি প্রকৃতিগত তা নিয়ে চলছে নানা প্রশ্ন। পাশাপাশি প্রতিপক্ষকে ফাঁসিয়ে দিতে অর্থ পাচার মামলায় জেলহাজতে থাকা বরকত-রুবেলের সহযোগীরা এমন ঘটনা ঘটিয়েছেন কি না সে কথা অনেকের মুখে মুখে ফিরছে। এদিকে বাসে আগুনের ঘটনায় নাইটগার্ড শেখ মোহাম্মদ আলীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে কোতোয়ালি থানা পুলিশ। বর্তমানে তিনি পুলিশের হেফাজতে রয়েছেন। শুক্রবার দিবাগত রাত ১টার দিকে শহরের গোয়ালচামটে বিদ্যুৎ অফিসের সামনের বিশালাকার একটি শেডে রাখা বাসগুলোতে আগুন লাগার ঘটনা ঘটে। আগুনে একই সঙ্গে ১২টি বাস জ্বলতে থাকায় প্রশ্ন উঠেছে, বাসগুলোতে পরিকল্পিতভাবে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে কি না। ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকেও এমনই কথা বলা হচ্ছে। ফরিদপুর ফায়ার সার্ভিসের উপপরিচালক জানান, একটি বাস থেকে আগুন লাগলে তা এত দ্রুত ছড়িয়ে পড়ত না। আগুনের ভয়াবহতা দেখে মনে হচ্ছে, বাসগুলোতে একই সঙ্গে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

আগুন লাগার পর স্থানীয় কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, একটি বাস থেকে ধোঁয়া বের হতে দেখেন তারা। পরক্ষণেই একসঙ্গে সব বাসে আগুন জ্বলতে দেখা যায়। নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় এক নারী জানান, রাতে চিৎকারে তাদের ঘুম ভেঙে যায়। বাইরে বেরিয়ে এসে দেখতে পান বাসগুলো জ্বলছে। একসঙ্গে সব বাস পুড়তে দেখেন তিনি। তার ধারণা, কেউ বাসগুলোতে আগুন দিয়ে থাকতে পারে। বাসগুলো দেখাশোনার দায়িত্বে ছিলেন নাইটগার্ড শেখ মোহাম্মদ আলী।

তিনি বলেন, দক্ষিণ দিকের একটি বাস থেকে ধোঁয়া বের হতে দেখে তিনি চিৎকার শুরু করেন। অল্প কিছুক্ষণ পরই একসফঙ্গ অন্য বাসগুলোও জ্বলতে থাকে। স্থানীয় কয়েক ব্যক্তি বালু দিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। পরে ফায়ার সার্ভিস এসে আগুন নেভায়। নাইটগার্ড শেখ মোহাম্মদ আলী বলেন, রাতে বাসগুলো রাখার স্থানে কাউকে দেখতে পাননি। বাসে আগুনের ঘটনাটি রহস্যজনক বলে মনে করছেন কেউ কেউ। অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন, পুলিশের হেফাজতে থাকা বাসগুলোতে কারা আগুন দিল। খোলা স্থানে বাসগুলো রাখা হলেও পর্যাপ্ত নিরাপত্তা না থাকা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন কেউ কেউ। অনেকেই বলেছেন, বাসগুলো রাখার স্থানসহ আশপাশে একাধিক সিসি টিভি ক্যামেরা বসানো রয়েছে। সেই সব ক্যামেরার ফুটেজ দেখে জানা যেতে পারে বাসে আগুনের রহস্য। বাসের মালিক সাজ্জাদ হোসেন বরকতের স্ত্রী ঘটনাটি পরিকল্পিত বলে দাবি করে জানান, যে শেডে বাসগুলো রাখা ছিল সেই শেডটি কয়েক দিন আগে বিক্রি করে দেন প্রভাবশালী মিজান চৌধুরী নামের এক ব্যক্তি। মিজান চৌধুরী জায়গাটি দখল করতেই বাসগুলোতে আগুন দিয়ে থাকতে পারেন বলে তার দাবি। তবে মিজান চৌধুরী তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, পুলিশের কাছে জানিয়েই তিনি শেডটি সরিয়ে নিয়েছেন। আগুন লাগার বিষয়টি শোনার পর তিনি ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন। এদিকে ১২টি বাসে আগুনের বিষয়টি নিয়ে শহরজুড়ে বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। অনেকেই বিষয়টি রহস্যজনক বলছেন। বাসগুলো পুড়ে যাওয়ায় বিভিন্ন বিষয় সামনে রেখে তদন্ত করছেন বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুমন রঞ্জন সরকার। তিনি বলেন, এ ঘটনায় পুলিশের তরফ থেকে একটি মামলা হয়েছে। মামলার বাদী কোতোয়ালি থানা পুলিশের ওসি (অপারেশন) আবদুল গাফফার। মামলায় অজ্ঞাত ৪০ জনকে আসামি করা হয়েছে। এ ছাড়া তিন সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটির সদস্যরা হলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এমদাদ হোসেন, সুমন রঞ্জন সরকার ও হেলালউদ্দিন আহমেদ। কমিটিকে পাঁচ কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। সাংবাদিকদের প্রশ্নে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুমন রঞ্জন সরকার বলেন, যে জায়গায় বাসগুলো রাখা ছিল তা নিয়ে বিরোধ রয়েছে। এ ছাড়া বাসগুলোর ব্যাংক ঋণ রয়েছে। বরকত-রুবেলের সঙ্গে বিভিন্ন জনের বিরোধ ছিল। সে বিরোধের কারণে বাসে আগুন দেওয়া হয়েছে কি না আর জব্দকৃত বাসগুলো যেহেতু একটি আলামত, সেই আলামত ধ্বংস করার কোনো পরিকল্পনা ছিল কি না এসব বিষয় মাথায় রেখেই আমাদের তদন্ত চলছে। আমরা তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তা নিচ্ছি, যাতে শিগগিরই বাসে আগুন দেওয়ার ঘটনার রহস্য উদঘাটন করা যায়।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর