Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ নভেম্বর, ২০১৮ ২২:১৫

পাকা চুল রোধে

সাদিয়া সারা

পাকা চুল রোধে
ছবি : ইন্টারনেট
o  শরীরে পুষ্টির অভাবে অনেক সময় চুল পেকে যাওয়া শুরু করে।
অনেক সময় অ্যানিমিয়া, থাইরয়েড ইত্যাদি শারীরিক সমস্যা থেকেও চুল পেকে যায়।
জেনেটিক বা বংশগতির কারণেও অনেকের অকালপক্বতা দেখা দিতে পারে।

 

পাকা চুল কী এবং কেন হয়?

আমাদের চুলের সাধারণত দুটি অংশ।

১. হেয়ার ফলিকল। বিজ্ঞানের ভাষায় মানবদেহে ত্বকের নিচে চুলের গোড়ার চারপাশে থাকা টিস্যুকে হেয়ার ফলিকল বলা হয়ে থাকে।

২. হেয়ার শ্যাফ্ট। একইভাবে মাথার স্ক্যাল্পের বাইরের দিকে থাকা চুলের অংশকে  হেয়ার শ্যাফ্ট বলা হয়।

 

এই হেয়ার ফলিকলে থাকা মেলানিন মানুষের চুলের রং নির্ধারণ করে থাকে। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এই মেলানিন নামক পিগমেন্ট কমতে শুরু করে, ফলে চুলের রংও হালকা হতে শুরু করে। শুধু বয়সের কারণেই যে চুল পাকা শুরু হয় তা কিন্তু নয়। অনেকের ক্ষেত্রে বংশগতভাবেও চুল পাকার সমস্যা হয়ে থাকে। এ ছাড়া অনিয়মিত জীবন ব্যবস্থা, বাইরের দূষণ এবং অনেকের ক্ষেত্রে শারীরিক নানা সমস্যার কারণেও এই সমস্যা দেখা দিতে পারে। অ্যানিমিয়া, থাইরয়েড ইত্যাদি শারীরিক সমস্যা থেকেও চুল পেকে যেতে পারে। যাদের ধূমপান করার অভ্যেস রয়েছে, তাদের ক্ষেত্রে অনেক সময় বয়স ছাড়া চুল পেকে যাওয়ার সম্ভাবনাও দেখা দিতে পারে।

 

ঘরোয়া প্রতিকার

সমস্যা যেমনই হোক, তার পরিপূর্ণ সমাধান খোঁজার আগে সমস্যার আসল কারণ খুঁজে বের করা প্রয়োজন। কী কারণে এই সমস্যা হচ্ছে, তা জানা থাকলে সমাধান সহজ হবে। পাশাপাশি ঘরোয়া কিছু হেয়ার প্যাক বা যত্ন নিতে পারেন। এতে শুধু চুল কালোই হবে না, চুলের স্বাস্থ্যও ভালো থাকবে।

♦ আমলকী চুলের কালো রং ধরে রাখতে বেশ কার্যকর। এ ছাড়া চুলের স্বাস্থ্য ঠিক রাখতেও আমলকীর জুড়ি নেই। ভালো ফলাফল পেতে সঙ্গে মিশিয়ে নিতে পারেন আমন্ড অয়েল এবং পাতিলেবুর রস। প্রতিদিন রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে এক টেবিল চামচ আমলকীর রসের সঙ্গে এক চা-চামচ আমন্ড অয়েল এবং কয়েক ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে স্ক্যাল্পে ম্যাসাজ করতে পারেন। সকালবেলা মাইল্ড শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে কন্ডিশনার ব্যবহার করুন। এতে চুল পাকা রোধ হবে।

♦  স্বাস্থ্যোজ্জ্বল চুলের জন্য ম্যাজিকেল আয়ুর্বেদিক উপাদান হলো অলিভ অয়েল। তবে শুধু অলিভ অয়েলেই কাজ হবে না। সঙ্গে রাখুন ঝিঙে! ঝিঙের বিভিন্ন উপাদান চুলের অকালপক্বতা দূর করতে সাহায্য করবে। ঝিঙে ছোট ছোট টুকরো করে রোদে শুকিয়ে নিন। এবার অলিভ অয়েলে এই ঝিঙের টুকরো ডুবিয়ে ৩-৪ দিন রেখে দিন। এই মিশ্রণ ফুটিয়ে নিন যতক্ষণ না কালো রং ধারণ করে। সপ্তাহে দুই দিন এই তেল স্ক্যাল্পে ম্যাসাজ করুন। উপকার পাবেন।

♦  আমলকীর মতোই আর একটি উপকারী উপাদান হলো শিকাকাই। এটি চুল পরিষ্কার করার পাশাপাশি চুলের অকালপক্বতাও প্রতিরোধ করে। ৪-৫টা শিকাকাই মিহি করে গুঁডা করে নিন। এতে আধা কাপ টকদই মিশিয়ে চুলে লাগান। ১৫ মিনিট রেখে ভালোভাবে ধুয়ে নিন।


আপনার মন্তব্য