শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২২:২৩

শেষ প্রচ্ছদ

মেনজ উইন্টার কেয়ার

এ কে রাসেল

মেনজ উইন্টার কেয়ার
শীত যাই যাই করলেও এখনো আর্দ্রতা কমেনি আবহাওয়ার। তাই এ সময় ছেলেদেরও দরকার আলাদা যত্ন। ♦ মডেল : সাদমান সামির ও ফয়সাল দীপ ♦ পোশাক : ইজি ♦ ছবি : কামরুজ্জামান জুয়েল
শীতকাল ফ্যাশনের মোক্ষম সময় হলেও ত্বকের ক্ষেত্রে ঠিক উল্টোটা। এ সময় মেয়েদের পাশাপাশি ছেলেদের ত্বকও রুক্ষ হয়। বিশেষ করে গোসলের পর ত্বক হয় ভীষণ খসখসে। ফলে ত্বকে অস্বাভাবিকতা দেখা দেয়।

শীতকাল গেল গেল বলে যাচ্ছে না। বাতাসে হিমেল পরশ এখনো বিদ্যমান। নিঃসন্দেহে আবহাওয়াটা বেশ উপভোগ্য। কিন্তু আনন্দের মাঝে বাদ সাধে যে বিষয়টি তা হলো- ত্বকের সমস্যা। এ সময় শুধু মেয়েদের ত্বক নয়, ছেলেদের ত্বকও হয় অনেক বেশি রুক্ষ; বিশেষ করে গোসলের পর ত্বক হয় খসখসে। নিয়মিত যত্ন না নিলে একেবারে নির্জীব, বয়স্ক লাগে দেখতে। তবে সাধারণ কিছু নিয়ম মেনে চললেই শীতেও আপনার ত্বক থাকবে উজ্জ্বল।

ছেলেদের ত্বক পরিচর্যায়

* খুব বেশি গরম পানি দিয়ে গোসল করবেন না। সেক্ষেত্রে কুসুম গরম পানি ব্যবহার করতে হবে।

* ক্রিম, লোশন, সাবান- যাই ব্যবহার করবেন তা যেন অবশ্যই ময়েশ্চারাইজারযুক্ত হয়।

* শেভ করার পর অবশ্যই ক্রিম লাগানো উচিত। তাহলে ত্বকে ফাটল ধরবে না।

* যাদের দিনের বেশির ভাগ সময় রোদে কাটাতে হয়, তাদের সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে হবে।

* গোসলের পর লোশন লাগিয়ে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে তারপর বাইরে বেরোবেন। এতে লোশন ত্বকে ভালোভাবে মিশে যাবে।

 

 

ত্বকের পরিচর্যায় করণীয়

ব্রণের সমস্যা রোধে : ছেলেদের ত্বক বেশি তৈলাক্ত হয়। এছাড়া ধুলাবালির কারণে ছেলেদের ত্বক বারবার পরিষ্কার করতে হয়। ছেলেদের অয়েল কন্ট্রোল  ফেসওয়াশ (ত্বকের তেল নিয়ন্ত্রণে রাখে এমন) ব্যবহার করা উচিত। তাহলে ত্বক ভালো থাকবে। বাজারে  ছেলেদের জন্য নানা ব্র্যান্ডের যেসব-ক্রিম পাওয়া যায়, সেগুলো ব্যবহার করার আগে ভালোভাবে মুখ পরিষ্কার করে নিতে হবে। তা না হলে ক্রিম কাজ করবে না। এ ছাড়া রাতে ঘুমানোর আগে ম্যাসাজ ক্রিম ব্যবহার করা যেতে পারে। এতে ত্বক ঠান্ডা থাকে এবং ব্রণ ওঠে না। সকালে ঘুম থেকে উঠে ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিতে হবে।

ত্বকের যত্নে আয়ুর্বেদ : অবসর পেলে ভেষজ (আয়ুর্বেদ) কোনো প্যাক লাগানো যেতে পারে। যারা প্যাক লাগাতে চান না, তারা কমলালেবু বা পাকা টমেটো মুখে লাগিয়ে কিছুক্ষণ পর ভালোভাবে মুখ ধুয়ে নিতে পারেন। এতে ত্বক পরিষ্কার হবে।

* এ সময়ে ত্বকে মৃত কোষ বাড়ে। সে জন্য নিয়মিত এক্সফোলিয়েশন করাও দরকার। মুসুর ডাল বাটা বা বেসন একসঙ্গে মিশিয়ে স্ক্র্যাব বানিয়ে মুখত্বকে (শরীরের অন্যান্য অংশেও) লাগাতে পারেন। স্ক্র্যাবটি শুকিয়ে যাওয়ার আগ পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। এরপর ভালোভাবে ধুয়ে ফেলতে হবে।

* রাতে ঘুমানোর আগে ১/৪ কাপ দুধে ১ চামচ মধু ও ১ চামচ অ্যালোভেরা জেল মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। ২০ মিনিট পর কুসুম গরম পানিতে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। শুষ্কতা কমার পাশাপাশি ত্বক হয়ে উঠবে আরও কোমল।

* এ সময় ছেলেদের চুলের সবচেয়ে বড় সমস্যা খুশকি। এ থেকে পরিত্রাণ পেতে কার্যকরী টোটকা হলো লেবু ও পিয়াজের রস এক করে চুলে ম্যাসাজ। চুলে খুশকি দূর করার জন্য হট অয়েল ম্যাসাজও বেশ উপকারী। সেক্ষেত্রে এসেনশিয়াল অয়েল, আমন্ড অয়েল বা নারিকেল তেল হতে পারে আদর্শ। সপ্তাহে কমপক্ষে দুবার চুলে শ্যাম্পু করুন।

আরও যেসব সতর্কতা

* ত্বকের যত্নের জন্য প্রচুর পরিমাণে পানি পান করতে হবে।

* যতটা সম্ভব কম রাত জাগা উচিত। এতে ত্বক ভালো থাকে।

* খাদ্যাভ্যাসের মধ্যে প্রতি বেলাতেই শাকসবজি রাখতে হবে।

* দিনে একটি হলেও ফল খেতে হবে এবং শুকনো খাবার যতটা সম্ভব এড়িয়ে যেতে হবে।


আপনার মন্তব্য