শিরোনাম
প্রকাশ : ২৩ জুলাই, ২০১৯ ২১:১৪

ভারতে এনআরসি’র চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশের সময়সীমা বাড়ল

দীপক দেবনাথ, কলকাতা:

ভারতে এনআরসি’র চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশের সময়সীমা বাড়ল

ভারতের আসামে জাতীয় নাগরিক পঞ্জির (এনআরসি) চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশের সময়সীমা একমাস বাড়াল দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। মঙ্গলবার শীর্ষ আদালত এক নির্দেশ জারি করে পূর্ব নির্ধারিত চলতি বছরের ৩১ জুলাইয়ের সময়সীমা বৃদ্ধি করে আগামী ৩১ আগষ্ট করেছে। 

গত ১৯ জুলাই শীর্ষ আদালতে বন্যা বিধ্বস্ত আসামের পরিস্থিতির কথা তুলে ধরে রাজ্যটির এনআরসি’এর কো-অর্ডিনেটর প্রতীক হাজেলা জানান ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে চূড়ান্ত এনআরসি তালিকা প্রকাশ করা কোনভাবেই সম্ভব নয়। এজন্য অতিরিক্ত আরও একমাস সময় বাড়ানোর অর্থাৎ ৩১ আগস্টের মধ্যে চূড়ান্ত এনআরসি তালিকা প্রকাশের জন্য আবেদন জানান। সেই আবেদন মেনেই ডেডলাইন বৃদ্ধি করা হয়েছে। 

সেই সাথে শীর্ষ আদালত প্রতীক হাজেলা-কে এও নির্দেশ দিয়েছে যে এনআরসি সম্পর্কিত বিভিন্ন পিটিশন দাখিলকারীদের নোটিশ দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হয় যে তারা যেন আগামী ৭ আগষ্ট বিকাল তিনটার মধ্যে শীর্ষ আদালতে শুনানিতে উপস্থিত থাকেন। 

যদিও এনআরসি তালিকায় অন্তর্ভুক্তির জন্য ভেরিফিকেশনের বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষে আদালতের কাছে যে আবেদন জানানো হয়েছিল তা খারিজ করে দিয়েছে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ ও বিচারপতি রহিন্টন ফলি নরিম্যানের ডিভিশন বেঞ্চ। 

১৯ জুলাই শীর্ষ আদালতের কাছে কেন্দ্র ও আসাম সরকারের হয়ে সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতার অভিযোগ ছিল- সীমান্তবর্তী জেলাগুলিতে এনআরসির কাজে নিয়োজিত একাংশ কর্মচারী প্রভাব খাটিয়ে অসংখ্য অযোগ্য লোকের নাম অন্তর্ভুক্ত করেছেন। স্থানীয় প্রভাবের জন্যও বহু লোকের নাম খসড়া তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। তাই বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী জেলাগুলিতে ২০ শতাংশ স্যাম্পল ভেরিফিকেশন প্রয়োজন জরুরী হয়ে পড়েছে এবং অন্য জেলাগুলিতে ১০ শতাংশের নাম পুনরায় যাচাই করা প্রয়োজন। পাশাপাশি জনসংখ্যার হার দ্রুত বৃদ্ধি পাওয়া জেলাগুলিতেও ২০ শতাংশ স্যাম্পল ভেরিফিকেশনের আবেদন জানিয়েছিলেন। 

কিন্তু মঙ্গলবার শীর্ষ আদালতে প্রতীক হাজেলা জানান নাগরিকপঞ্জির খসড়ায় থাকা প্রায় ৮০ লাখ লোকের নথিপত্র পুনরায় খতিয়ে দেখার কাজ (রি-ভেরিফিকেশন) সম্পন্ন হয়েছে। অতএব এখন আর রি-ভেরিফিকিশেনের প্রয়োজন নেই। এরপরই শীর্ষ আদালতের ডিভিশন বেঞ্চ কেন্দ্র ও আসামের আবেদন খারিজ করে দেয়। 

উল্লেখ্য, আসামের এনআরসি তৈরির দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে সরব রাজ্য সরকার। তাতে সম্মতি দেয় শীর্ষ আদালত। গত বছর ৩০ জুলাই আসামে প্রকাশিত হয় এনআরসি-এর চূড়ান্ত খসড়া তালিকা। তাতে প্রায় ৪১ লাখ মানুষের নাম বাদ পড়েছে। গোটা ঘটনার জেরে শুরু হয় রাজনৈতিক চাপানউতোর। এরই মাঝে কয়েক দিন আগেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ হুঁশিয়ারি দেন শুধু আসামে নয়, গোটা দেশেই চালু হবে এনআরসি। 


বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য