শিরোনাম
প্রকাশ : ৩১ মার্চ, ২০২০ ১৩:১০
আপডেট : ৩১ মার্চ, ২০২০ ১৩:১৫

করোনা সন্দেহে '‌মানসিক চাপ', যুবকের আত্মহত্যা

অনলাইন ডেস্ক

করোনা সন্দেহে '‌মানসিক চাপ', যুবকের আত্মহত্যা
প্রতীকী ছবি

প্রাণঘাতী করোনা সন্দেহের জেরে প্রতিবেশীদের মানসিক নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে ভারতে এক যুবক আত্মহত্যা করেছেন। পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগনার গাইঘাটার গ্রামে এ ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে। রবিবার বিকালে ওই যুবকের ঝুলন্ত দেহ তার বাড়ি থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে, ওই যুবকের কলকাতায় ছোটখাটো ব্যবসা ছিল। লকডাউনের জেরে কাজকর্ম না থাকায় কদিন আগে বাড়ি ফিরে আসেন। এর পর থেকে শরীর ভালো যাচ্ছিল না তার। স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ডাক্তার দেখান। তবে সামান্য দুর্বলতা ছাড়া বড় কোনো সমস্যা খুঁজে পাননি চিকিৎসকরা।

এদিকে গ্রামে রটে যায়, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন তিনি। এর পর ওই যুবকের পরিবার একঘরে হয়ে পড়ে।

গ্রামের টিউবওয়েল থেকে পানি নিতেও বাধা দেয়া হয়। তার মা পাশের গ্রামে বাপের বাড়িতে থাকেন। সেখান থেকে ছেলের জন্য খাবার নিয়ে যেতে চেয়েছিলেন। তাকেও গ্রামে ঘোরাঘুরি করতে কিছু লোক নিষেধ করেন।

পরিবারের অভিযোগ, স্থানীয়দের মানসিক নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত নেন ওই যুবক।

যুবকের বোনের দাবি, ‘যারা আমার ভাইয়ের সঙ্গে এমন করল, তাদের কঠোর শাস্তি চাই।’ এ ঘটনায় একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা হলেও তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। লাশ পাঠানো হয়েছে ময়নাতদন্তে।

স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্য বিশ্বজিৎ ঘোষ বলেন, ছেলেটির করোনা হয়নি বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন। তার পরও শুধু স্থানীয়দের মানসিক নির্যাতনে ছেলেটি আত্মহত্যা করল।

প্রসঙ্গত, ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা উদ্বেগজনকহারে বাড়ছে। সোমবার থেকেই দিল্লিতে চিন্তা বাড়িয়েছে নিজামুদ্দিন। মসজিদে এক বড়সড় জমায়েতে যোগ দিয়েছিলেন বহু মানুষ। সেখান থেকে সংক্রমণ হু হু করে ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা। ইতোমধ্যেই সেই জমায়েতে থাকা সাত জনের মৃত্যু করোনা আক্রান্ত হয়ে হয়েছে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি। এবার ওই জমায়েতে থাকা ২৪ জনের শরীরে মিলল ভাইরাস। সোমবার থেকেই ওই মসজিদের জমায়েতে যোগ দেওয়া ব্যক্তিদের পরীক্ষার প্রক্রিয়া চলছিল। আজ মঙ্গলবার যে রিপোর্ট এসেছে, তাতে দেখা গিয়েছে ২৪ জন করোনা আক্রান্ত। দিল্লির স্বাস্থ্যমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈন এ তথ্য জানিয়েছেন।

আক্রান্তদের সংস্পর্শে কারা এসেছিল, এখন তাদের চিহ্নিত করার কাজ চলছে। ইতোমধ্যেই সিল করে দেওয়া হয়েছে সেই মসজিদ। সেখানকার আবাসিকদের বাড়িও পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

সোমবারই মসজিদ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে মামলার নির্দেশ দেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। শতাধিক সংক্রমণের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে ওই মসজিদ থেকে।

মঙ্গলবার পর্যন্ত ওয়ার্ল্ডোমিটারের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী ভারতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে এক হাজার ২৫১জন, মারা গেছে ৩২জন।

বিডি প্রতিদিন/জামশেদ রনি


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর