শিরোনাম
প্রকাশ : ৯ এপ্রিল, ২০২১ ১১:২৫
আপডেট : ৯ এপ্রিল, ২০২১ ১১:২৮
প্রিন্ট করুন printer

'তিব্বতের সংস্কৃতি ও ইতিহাস নিশ্চিহ্ন করার চেষ্টা চালাচ্ছে চীন'

অনলাইন ডেস্ক

'তিব্বতের সংস্কৃতি ও ইতিহাস নিশ্চিহ্ন করার চেষ্টা চালাচ্ছে চীন'
স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি

যুক্তরাষ্ট্রের হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির দাবি, চীন কয়েক দশক ধরে তিব্বতে ধর্ম, গর্বিত সংস্কৃতি এবং ইতিহাস নিশ্চিহ্ন করার চেষ্টা চালাচ্ছে। তিনি আশ্বাস দেন, যুক্তরাষ্ট্র তিব্বতী জনগণের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের অধিকার ও সার্বভৌমত্ব প্রতিষ্ঠার জন্য যারা শহীদ হয়েছেন তাদের সম্মান জানানো হবে।

প্রত্যন্ত হিমালয় অঞ্চলে চীনা দখলদারির বিরুদ্ধে বুধবার তিব্বতী অভ্যুত্থান দিবসের ৬২তম বার্ষিকী উপলক্ষে বক্তব্য রাখতে গিয়ে পেলোসি বলেন, 'বাষট্টি বছর আগে সাহসী তিব্বতীরা তাদের জীবনধারা ও সংস্কৃতি রক্ষার জন্য চীনা আক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করে। আজ আমরা তিব্বতী জনগণের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের সম্মান জানাচ্ছি যারা তাদের অধিকার ও স্বাধীনতার জন্য নিজেদের উৎসর্গ করেছেন।'

তিনি আরও বলেন, 'তিব্বতী পুরুষ, নারী এবং শিশুরা কেবল তাদের বিশ্বাস অনুশীলন করতে চায়, তাদের ভাষায় কথা বলতে চায় এবং সহিংসতা এবং ভীতি প্রদর্শন থেকে মুক্ত তাদের সংস্কৃতি উদযাপন করতে চায়। তবুও বেইজিং কয়েক দশক ধরে তিব্বতের গর্বিত সংস্কৃতি এবং ইতিহাস ধ্বংস করার জন্য একটি প্রচারণা চালিয়েছে, যা বিশ্বব্যাপী স্বাধীনতাপ্রিয় জনগণের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য একটি আহ্বান হিসাবে রয়ে গেছে। এই বছর যখন আমরা এই গুরুগম্ভীর বার্ষিকী উদযাপন করছি, তখন আমরা দলাই লামার শান্তি, বিশ্বাস এবং ভালোবাসার শক্তিশালী বার্তা থেকে অনুপ্রেরণা নিতে থাকি।'  

এই শীর্ষ ডেমোক্র্যাট বলেন, 'পরম পবিত্রের আশার চেতনাদ্বারা পরিচালিত, আমরা তিব্বত এবং সমগ্র চীনে স্বাধীনতা এবং সুযোগ কে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রচেষ্টায় কখনই বিশ্রাম নেব না। কারণ বাণিজ্যিক স্বার্থের কারণে যদি আমরা চীনে মানবাধিকারের পক্ষে না দাঁড়াই, তাহলে আমরা বিশ্বের অন্য কোনও জায়গায় মানবাধিকার সম্পর্কে কথা বলার সমস্ত নৈতিক কর্তৃত্ব হারাব। এই গুরুত্বপূর্ণ মিশনে আমরা বিচলিত হবো না।'

প্রসঙ্গত, গত বছর যুক্তরাষ্ট্র তার তিব্বত নীতি এবং সহায়তা আইন প্রণয়নের মাধ্যমে তিব্বতের জনগণের প্রতি তার দ্বিদলীয়, দ্বিকক্ষীয় সমর্থন পুনরায় নিশ্চিত করেছে। জো বাইডেন জানান, 'তিব্বতী আধ্যাত্মিক নেতা দলাই লামার উত্তরাধিকার প্রক্রিয়ায় চীনা সরকারের কোনও ভূমিকা থাকা উচিত নয়।'

 

বিডি প্রতিদিন / অন্তরা কবির 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর