শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২০ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৯ জানুয়ারি, ২০২১ ২৩:০২

ট্রাম্পের অনেক সিদ্ধান্ত বদলাবেন বাইডেন

ট্রাম্পের অনেক সিদ্ধান্ত বদলাবেন বাইডেন
শিল্পীর তুলিতে জো বাইডেন (ডানে) ও কমলা হ্যারিস

করোনার কারণে ব্রাজিল, যুক্তরাজ্য, ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলো থেকে এখন আমেরিকায় যাওয়া যায় না। তবে বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন সিদ্ধান্ত নিয়েছে, আগামী ২৬ জানুয়ারির পর এই নিষেধাজ্ঞা উঠে যাবে। কিন্তু তার আগে আজই প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিচ্ছেন জো বাইডেন। বাইডেনের মুখপাত্র জেন পাসকি গতকাল জানিয়েছেন, নতুন প্রশাসন ট্রাম্পের সিদ্ধান্ত বদল করবে। আগের মতোই ওই দেশগুলো থেকে আমেরিকায় ঢোকা নিয়ে নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকবে। নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার কোনো ইচ্ছে তাঁদের নেই। এ ছাড়াও  ট্রাম্পের অনেক সিদ্ধান্ত দ্রুতই বাতিল করা হবে। তিনি জানিয়েছেন, করোনা ঠেকাতে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে যাতায়াতের ওপর আরও কড়া স্বাস্থ্যবিধি চালু করার কথা ভাবা হচ্ছে। গত সপ্তাহে সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের প্রধান একটি নির্দেশ দেন। সেখানে বলা হয়েছে, করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট দেখাতে পারলেই ২৬ জানুয়ারি থেকে আমেরিকায় ঢোকা যাবে। এই নির্দেশই বদলাতে চলেছে বাইডেনের প্রশাসন।

করোনা নিয়ে প্রথম থেকেই ট্রাম্পের সঙ্গে বাইডেনের মতবিরোধ সামনে এসেছে। প্রথমদিকে ট্রাম্প করোনাকে হালকাভাবে নিয়েছিলেন। তিনি মাস্ক পরারই বিরোধী ছিলেন। কোনো কড়াকড়িও করেননি। বাইডেন বারবার এ নিয়ে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন। তিনি মনে করেন, ট্রাম্পের ভুল নীতির জন্যই আমেরিকায় করোনা ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। শপথ নেওয়ার আগেই বাইডেন করোনা নিয়ে নীতি তৈরির জন্য টাস্কফোর্স গঠন করেছেন। প্রেসিডেন্ট হয়েই সেই টাস্কফোর্সের সুপারিশ তিনি রূপায়ণ করতে চান। বাইডেনের প্রাথমিক কাজ  হলো, করোনা ঠেকানো এবং আমেরিকার অর্থনীতিকে   চাঙা করা। ফলে ট্রাম্পের আমলের অনেক সিদ্ধান্তই বদল করতে পারেন তিনি।

নজিরবিহীন নিরাপত্তায় কাল শপথ : নজিরবিহীন নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে আজ (বাংলাদেশ সময় রাত ১১টা) যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিচ্ছেন জো বাইডেন। এদিন সম্ভাব্য অভ্যন্তরীণ হামলা এড়াতে ওয়াশিংটনে মোতায়েন ন্যাশনাল গার্ডের ২৫ হাজার নিরাপত্তা সদস্য মোতায়েন হয়েছে। রাজধানী ওয়াশিংটনের বেশিরভাগ রাস্তা এবং মেট্রো স্টেশনগুলোর পাশাপাশি কর্তৃপক্ষ জাতীয় উদ্যান হিসেবে পরিচিত ন্যাশনাল মলও বন্ধ করে দিয়েছে। শহরে প্রবেশের সেতুগুলোও বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। তীব্র নিরাপত্তা উদ্বেগ সত্ত্বেও বাইডেন অনুষ্ঠানটি ঐতিহ্যবাহী স্থানেই করার পরিকল্পনা করছেন। আসন্ন বাইডেন প্রশাসনের সম্ভাব্য যোগাযোগ পরিচালক কেইট বেডিংফিল্ড এবিসি-র ‘দিস উইক শো’-তে বলেছেন, ‘আমাদের পরিকল্পনা ও প্রত্যাশা, নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ২০ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলের পশ্চিম পাশে বাইরের দিকে পরিবারের সঙ্গে বাইবেলে হাত রেখে শপথ অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন।’ তিনি বলেন, ‘বাইডেন এবং তার দলের যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর প্রতি পূর্ণ আস্থা আছে। তারা এক বছরেরও বেশি সময় ধরে অভিষেক অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা নিরাপদ কিনা তা নিশ্চিত করার পরিকল্পনায় কাজ করে যাচ্ছেন।’

আজ একটি ‘নতুন প্রশাসন’ আসবে ট্রাম্প তা মেনে নেওয়া সত্ত্বে¡ও নিজের পরাজয় মেনে নিতে বা বাইডেনকে অভিনন্দন জানাতে অস্বীকার করেছেন। ট্রাম্প শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের ১৬০ বছরের মার্কিন ঐতিহ্য উপেক্ষা করে ঘোষণা দিয়েছেন, তিনি অভিষেক অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন না। তবে ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স বাইডেনের অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ার কথা রয়েছে।


আপনার মন্তব্য