শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০২

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় আবার নেতৃত্বে যুক্তরাষ্ট্র

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় আবার নেতৃত্বে যুক্তরাষ্ট্র
জন কেরি

জাঁদরেল সব বিশেষজ্ঞ, সংস্থা সবাই বিশ্বের সবচেয়ে জরুরি সমস্যা মনে করছেন জলবায়ুর প্রভাবকে। কিন্তু যে দেশের মাধ্যমে এই সমস্যার সমাধান সম্ভব সেই যুক্তরাষ্ট্রের সদ্য বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এই সমস্যাকে কোনো পাত্তাই দেননি। কিন্তু হোয়াইট হাউসে পালাবদলের মাত্র  এক সপ্তাহের মধ্যে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলার প্রশ্নে ঘুরে দাঁড়িয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। প্যারিস চুক্তিতে আবার  যোগ দেওয়ার পাশাপাশি আরও     নতুন উদ্যোগে শামিল হতে প্রস্তুত বাইডেন প্রশাসন।

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের বিশেষ দূত ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি যুক্তরাষ্ট্রের এই নতুন ভূমিকার নেতৃত্ব দিচ্ছেন। গতকাল তিনি বিশ্বের রাজনীতি ও ব্যবসা-বাণিজ্য জগতের ২০ জনেরও বেশি শীর্ষ নেতার সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনা করেন। নেদারল্যান্ডসের আমস্টারডাম শহরে ক্লাইমেট অ্যাডাপটেশন সামিটে জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কে নতুন মার্কিন প্রশাসনের ভূমিকা তুলে ধরেন তিনি। ভার্চুয়াল এই সম্মেলন আজ শেষ হচ্ছে। জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল, ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন, জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস, চীনের উপ-প্রধানমন্ত্রী হান জেং-সহ একাধিক নেতা এই জলবায়ু সম্মেলনে বক্তব্য রাখবেন। তবে বর্তমান করোনা সংকটের কারণে অনলাইন পদ্ধতিতে ২৪ ঘণ্টার এই সম্মেলন আয়োজিত হচ্ছে।

তাত্ত্বিক আলোচনার বদলে সেখানে জলবায়ু পরিবর্তনের সরাসরি প্রভাব মোকাবিলার বাস্তবসম্মত প্রস্তুতিই প্রাধান্য পেয়েছে। ২০৩০ সালের মধ্যে এসব পদক্ষেপ রূপায়ণের লক্ষ্যমাত্রা স্থির করা হবে। সম্মেলন শেষে খরা, বন্যা, উচ্চ তাপমাত্রা, সমুদ্র স্তরের বেড়ে চলা উচ্চতার মতো সমস্যা সামলাতে নির্দিষ্ট পরিকল্পনা অনুমোদন করতে চায় নেদারল্যান্ডসের সরকার। এমন বিপর্যয়ের ফলে খাদ্য সংকটের মতো সমস্যা সামলানোর উদ্যোগও   সম্মেলনে গুরুত্ব পাচ্ছে। সেই ‘অ্যাডাপটেশন অ্যাকশন এজেন্ডা’ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কাজে লাগবে বলে আশা করা হচ্ছে। জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব বান-কি মুন এই সম্মেলনের প্রস্তুতির ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করেছেন। গত সপ্তাহে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, এখনো পর্যন্ত মানুষ জলবায়ু পরিবর্তনের পরিণতির সঙ্গে মানিয়ে নিতে যথেষ্ট উদ্যোগ নেয়নি। ২০২১ সালে বিশ্বনেতারা জলবায়ু পরিবর্তন   মোকাবিলায় একাধিক মাইলফলক সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নিতে চলেছেন। গোটা বিশ্বের প্রায় ৩ হাজার বিজ্ঞানী বৈশ্বিক উষ্ণায়নের কুপ্রভাব সামলাতে বিশ্বনেতাদের প্রতি সুরক্ষামূলক পদক্ষেপের আহ্বান জানিয়েছেন।


আপনার মন্তব্য