শিরোনাম
প্রকাশ : ১৮ জানুয়ারি, ২০২০ ১৯:৩৫

দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক জোরদারে ভারত-বাংলাদেশ কার র‍্যালি

দীপক দেবনাথ, কলকাতা

দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক জোরদারে ভারত-বাংলাদেশ কার র‍্যালি
ফাইল ছবি

বাংলাদেশের সাথে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও শক্তিশালী করার লক্ষ্যে দুই বাংলার মধ্যে মৈত্রী র‍্যালির আয়োজন করতে চলেছে ভারতের ‘অটোমোবাইল এসোসিয়েশন অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়া (এএইআই)’। 

আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি সকালে কলকাতার এএইআই ক্লাব প্রাঙ্গণ থেকে এই র‍্যালির শুরু হবে। এরপর তা পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বনগাঁও হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে যশোর-ঢাকা-চট্টগ্রাম-কক্সবাজার-রাজশাহী-চ্যাংড়াবান্ধা হয়ে তা ফের ভারতে প্রবেশ করবে এবং পশ্চিমবঙ্গের শিলিগুঁড়িতে ওই র‍্যালি শেষ হবে।

কার র‍্যালিতে অংশ নেবে ৫০ টি গাড়ি। র‍্যালির যাত্রা পথে বেশ কিছু নির্দিষ্ট জায়গায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানেরও আয়োজন করা হয়েছে। 

শুক্রবার সন্ধ্যায় কলকাতায় এক সংবাদ সম্মেলনে এই ঘোষণা দেওয়া হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন অটোমোবাইল এসোসিয়েশন অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়ার সভাপতি তথা পশ্চিমবঙ্গের সাবেক পরিবহন মন্ত্রী মদন মিত্র, চেয়ারম্যান মিলন মুখার্জি, কলকাতার সাবেক শরীফ দুলাল বসু প্রমুখ। 

মদন মিত্র জানান, ভারত ও বাংলাদেশ তথা এই উপমহাদেশের মানুষদের প্রতি একটা ঐক্য ও সম্প্রীতির বার্তা দিতেই এই কার র‍্যালির আয়োজন করা হয়েছে। তাছাড়া স্বাধীনতার পরবর্তী সময়ে ভারত বা বাংলাদেশে এই ধরনের র‍্যালি কখনো হয়নি। ২৭ ফেব্রুয়ারি আমরা কলকাতা থেকে সাত দিনের জন্য বের হবো।

তিনি আরও জানান, প্রথম দফায় আমরা ৫০ টি গাড়ি নিবন্ধন করতে চাই। পরবর্তীতে উৎসাহী মানুষের সংখ্যা বাড়লে গাড়ির সংখ্যা আরও বাড়াতে হতে পারে।"

র‍্যালিতে যোগ দিতে বাংলাদেশ থেকেও অনেক মানুষ তাদের সাথে যোগাযোগ রেখেছে বলে জানান মদন মিত্র।

এ বিষয়ে মিলন মুখার্জি জানান, বাংলাদেশের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষে অটোমোবাইল এসোসিয়েশন অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়া দুই দেশের মধ্যে এই প্রথমবারের জন্য 'ইন্দো-বাংলা ফ্রেন্ডশিপ র‍্যালি ২০২০ 'মৈত্রী'র আয়োজন করেছে। এই র‍্যালি কেবলমাত্র দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককেই যে আরও শক্তিশালী করবে তাই নয়, দুই দেশের সাংস্কৃতিক আদান-প্রদানের সেতু হিসেবেও কাজ করবে।" 


বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য