শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২১:১৩
আপডেট : ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২২:২৯

অমর একুশের মঞ্চেও এনআরসি বিরোধী আওয়াজ!

দীপক দেবনাথ, কলকাতা:

অমর একুশের মঞ্চেও এনআরসি বিরোধী আওয়াজ!

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের মঞ্চ থেকেও ভারতের সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ), প্রস্তাবিত জাতীয় নাগরিক পঞ্জির (এনআরসি) বিরোধিতা করলেন পশ্চিমবঙ্গের খাদ্য সরবরাহ দফতরের মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। 

শুক্রবার ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের অন্যতম স্থলবন্দর পেট্রাপোল-বেনাপোল সীমান্তের দুই প্রান্তে মাতৃভাষা ও মহান শহীদ দিবস পালন করা হয়। পশ্চিমবঙ্গের দিকে অনুষ্ঠান শেষ করে বাংলাদেশ প্রান্তের ভাষা মঞ্চে উপস্থিত থেকে সিএএ, এনআরসি ও এনপিআর’এর বিরোধিতায় সরব হন পশ্চিমবঙ্গের 
এই মন্ত্রী। 

তিনি বলেন ‘আপনাদের বলতে দ্বিধা নেই। ওপার বাংলায় একটা আতঙ্ক গ্রাস করেছে। আমরা ভীত হয়ে গেছি। আমরা যারা এপার বাংলা থেকে ওপার বাংলায় গেছি-তাদের এবার বিদায় করে দেওয়ার পরিকল্পনা হচ্ছে। ওপার বাংলায় এনআরসি চালু হচ্ছে। ওপার বাংলায় এনপিআর, সিএএ চালু করছে। বাংলার মুখ্যমন্ত্রী তীব্র ভাষায় তার প্রতিবাদ জানিয়েছে।’ 

বাংলাদেশের মাটিতে দাঁড়িয়ে তিনি আরও বলেন ‘আমরা এপার বাংলারই মানুষ। আমার বাবা-দাদারা এপার বাংলায় জন্মগ্রহণ করেছেন। কিন্তু আমরা ওপার বাংলায় গেছি তাই বলে আমাদের বিদায় করে দিতে হবে যে, তোমরা চলে যাও-এই জিনিস আমরা বরদাস্ত করবো না, আমরা মানবো না। আপনারা আমাদের পাশে থাকুন। আমরা সোনার বাংলা গঠন করেছি। আর বাংলাকে বিভক্ত করা যাবে না। যারা মনে করছে পশ্চিমবঙ্গকে ভেঙে আবার একটা বাংলা করবো, আমরা তা করতে দেবো না। যেভাবে রাজপথে দাঁড়িয়ে বাংলা ভাষার স্বীকৃতি দিয়েছে, আমরা প্রতিদিন তাদের নাম স্মরণ করি। যদি আরেকটা আন্দোলন হয়, রক্তাক্ত হয় হোক কিন্তু বাংলা ভাষাকে ছাড়বো না। আমি এই ভাষার জন্য গর্ব বোধ করি। 

দুই বাংলার ভাষা উৎসবে ছিলেন জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক ছাড়াও যশোর-৫ সাংসদ স্বপন ভট্টাচার্য এমপি, যশোর-১ সাংসদ শেখ আফিলউদ্দিন, বনগাঁর পুরসভা প্রধান শঙ্কর আঢ্য, বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রের সাবেক তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ মমতা বালা ঠাকুর প্রমুখ। সীমান্তে জিরো পয়েন্টে অস্থায়ী শহীদ মিনার করে সেখানে ভাষা শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানান তারা।

বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর