শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ নভেম্বর, ২০১৮ ২৩:৪৩

আজ পোস্টার না সরানো হলে আইনি ব্যবস্থা

নিজস্ব প্রতিবেদক

আজ পোস্টার না সরানো হলে আইনি ব্যবস্থা
রাজধানীর আজিমপুরে গতকাল পোস্টার তুলে নিচ্ছেন এক কর্মী —বাংলাদেশ প্রতিদিন

আজকের মধ্যে সব নির্বাচনী ব্যানার, ফেস্টুন, বিলবোর্ড সরিয়ে  ফেলার নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। তা না হলে আইনি পদক্ষেপ নেবে নির্বাচন কমিশন। আর এসব পোস্টার-ব্যানার অপসারণ করতে হবে নিজ খরচে। নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ গত ১৬ নভেম্বর এই নির্দেশনা দিয়ে বলেন, ১৮ নভেম্বরের মধ্যে নির্বাচনী ব্যানার-পোস্টার অপসারণ করা না হলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ১৮ নভেম্বর সারা  দেশে নির্বাচনী পোস্টার-ব্যানার অপসারণের শেষ তারিখ। এ সময়ের মধ্যে যদি অপসারণ না হয় তাহলে আগামীকাল ১৯ নভেম্বর থেকে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সিটি করপোরেশন, পৌরসভা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের মাধ্যমে এসব নামানো হবে। তিনি আরও বলেন, দেশে নির্বাচনী উৎসব চলছে। এখন লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরির কাজ চলছে। প্রার্থীদের ব্যানার-পোস্টার সরাতে বলা হয়েছে। যারা এখনো সরাননি, তাদের বিরুদ্ধে আইন অনুসারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এর আগে ১৪ নভেম্বরের মধ্যে সব ধরনের ব্যানার, পোস্টার,  ফেস্টুন অপসারণের নির্দেশ দিয়েছিল নির্বাচন কমিশন। ওই নির্দেশনায় বলা হয়, মার্কেট, রাস্তা, যানবাহন, সরকারি- বেসরকারি স্থাপনাসহ বিভিন্ন জায়গায় যাদের নামে ব্যানার,  পোস্টার, ফেস্টুন, লিফলেটসহ যেসব প্রচারসামগ্রী রয়েছে, তা ১৪ নভেম্বরের মধ্যে নামিয়ে ফেলতে হবে। তবে ইসির এ নির্দেশনা কেউ মানেনি। রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন সিটি করপোরেশন ও পৌরসভা, গ্রামের বিভিন্ন জায়গা প্রার্থীদের নানা রকম পোস্টারে ছেয়ে আছে। নির্বাচন কমিশনের কঠোর নির্দেশনার পরও দেশের কোথাও পোস্টার-ব্যানার অপসারণ করার কোনো চিত্র দেখা যায়নি। বরং সব জায়গায় প্রতিদিন নতুন করে পোস্টার লাগানো হচ্ছে। ব্যানার-ফেস্টুনে রাস্তার মোড়গুলো ছেয়ে আছে। রাজধানী ঢাকার প্রতিটি সড়কে উঁচু করে ব্যানার ঝোলানো দেখা গেছে। প্রতিটি দেয়াল ছেয়ে আছে শত শত প্রার্থীর পোস্টারে। নির্বাচনে অংশ নিতে ইচ্ছুক প্রার্থী ছাড়া রাজনৈতিক কর্মী নেতাদের পোস্টারও দেখা গেছে। নির্বাচনকেন্দ্রিক এসব পোস্টার অপসারণের কঠোর নির্দেশ দেওয়া হলেও গত কয়েক দিনে কোনো অগ্রগতি চোখে পড়েনি।


আপনার মন্তব্য