শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:২৭

ডাকসু ভোটে জমেছে ক্যাম্পাস

ছাত্রদলের মনোনয়নপত্র বিতরণ, ছাত্রলীগের পূর্ণ প্যানেলের প্রস্তুতি

নিজস্ব প্রতিবেদক ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

ডাকসু ভোটে জমেছে ক্যাম্পাস

আসন্ন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে জমে উঠেছে ছাত্রসংগঠনগুলোর নির্বাচনী কার্যক্রম। শুক্রবার নির্বাচনে অংশ নিতে ছাত্রলীগ প্যানেলের ভিপি, জিএস এবং এজিএস পদপ্রার্থীদের নাম চূড়ান্ত করা হয়েছে বলে জানা গেছে। আগামী দু-এক দিনের মধ্যে আসতে পারে সংগঠনটির পূর্ণাঙ্গ প্যানেল। এদিকে বিএনপি নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে গতকাল থেকে দলীয় মনোনয়নপত্র বিতরণ শুরু করেছে ছাত্রদল। ডাকসু ও হলগুলোতে ছাত্রদল একক প্যানেল দিতে পারে। অন্যদিকে, বামপন্থি সংগঠনগুলো জোটবদ্ধভাবে ও কোটা সংস্কার আন্দোলনের প্লাটফর্ম ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ’ প্রস্তুত স্বতন্ত্রভাবে আজই প্যানেল ঘোষণা করবে।    গতকাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে বিভিন্ন হল শাখার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের নিয়ে দলীয় মতবিনিময় করেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন। এ সময় ছাত্রলীগের ঢাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনসহ মেয়েদের হলগুলোর নেতারা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন। তিনি বলেন, ডাকসুর কেন্দ্রীয় ও হল সংসদে নির্বাচনে প্যানেল দেওয়ার কাজ শুরু হয়ে গেছে। আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড এবং গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর রিপোর্টের ভিত্তিতে ছাত্রলীগের প্যানেল দেওয়া হবে। আগামী দু-এক দিনের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ প্যানেল ঘোষণা করা হবে বলেও জানান তিনি। প্রার্থিতা নির্ধারণে কোন কোন বিষয়কে প্রাধান্য দেওয়া হবে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ছাত্রদের মাঝে জনপ্রিয় এবং গ্রহণযোগ্য যিনি তাকে নির্বাচনে প্রার্থিতার সুযোগ দেওয়া হবে। আমরা ১০-১২ জনের নাম সুপারিশ করছি, গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্টে যে ভালো, তাকে নির্বাচনে আনা হবে। বৈঠকের বিষয়ে তিনি বলেন, হলগুলোতে কীভাবে ছাত্রলীগ কাজ করবে এ নিয়ে হল শাখার নেতাদের সঙ্গে কথা হলো। বিশেষ করে মেয়েদের হলগুলো নিয়ে। কারণ সেখানে ছেলেরা ঢুকতে পারে না। এ অবস্থায় কীভাবে সেখানে কাজ করা হবে এ নিয়ে কথা হলো।

এর আগে, শুক্রবার ডাকসু নির্বাচনের জন্য কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনকে ভিপি পদে, সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীতে জিএস পদে এবং ঢাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনকে এজিএস পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে বলে আওয়ামী লীগের দুজন শীর্ষ নেতা নিশ্চিত করেছেন। তবে এ ধরনের কোনো তথ্য রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ‘বিশ্বস্ত সূত্রে’ অবগত নন বলেও জানান তিনি। 

এদিকে বৈঠক চলাকালে ছাত্রলীগের কিছু নেতা-কর্মীকে মেয়েদের হল শাখার নেত্রীদের সঙ্গে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় করতে দেখা যায়। তাদের মধুর ক্যান্টিন থেকে চলে যেতে বলেন ছাত্রলীগ সভাপতি। পরে আবার স্বাভাবিকভাবে বৈঠক চলতে থাকে। এ বিষয়ে রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনকে জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, এটা ছাত্রলীগের নিয়মিত কার্যক্রম। তারা মিটিংয়ের সময় স্লোগান দিচ্ছিল। আমি তাদের চলে যেতে বলেছি।’

ছাত্রদল : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচনে একক প্যানেল দেবে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। এ লক্ষ্যে গতকাল সকাল থেকে ফরম বিতরণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আজ দিনভর ফরম বিক্রি চলবে। ডাকসু ভিপি, জিএস, এজিএসসহ হল কমিটির প্যানেলের ফরমও বিতরণ করা হচ্ছে। ছাত্রদলের একাধিক নেতা জানান, ডাকসু থেকে হল পুরো প্যানেলই দেওয়ার চিন্তাভাবনা চলছে। সুষ্ঠু ভোট হলে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের প্যানেল বিপুল ভোটে জয়ী হবে বলেও মনে করেন তারা।

নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ফরম বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবীর রিজভী।  জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সভাপতি রাজিব আহসানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসানের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এ বি এম মোশারফ হোসেন, সাবেক ছাত্রনেতা রকিবুল ইসলাম বকুল, বিএনপির সহ-প্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম খান আলিম, ওমর ফারুক সাফিন, নাজমুল হাসান প্রমুখ।

জানা যায়, শুক্রবার গুলশানে বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে তারেক রহমানসহ বিএনপির শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে শেষে নির্বাচনে যাওয়ার আনুষ্ঠানিক সিদ্ধান্ত নেয় সংগঠনটি। নির্বাচনকে সামনে রেখে সাংগঠনিক মনোনয়ন ফরম বিতরণ শুরু করে তারা। সংগঠনটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ৩০ বছরের অধিক কেউ চাইলে দলীয় মনোনয়নপত্র নিতে পারবে। বিষয়টি নিয়ে ছাত্রদলের ঢাবি শাখার সভাপতি আল মেহেদী তালুকদার বলেন, আমরা নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। তবে আজ থেকে তা দৃশ্যমান হলো। আমরা ডাকসু নির্বাচনে যাব। আমাদের দাবি আদায় করেই যাব। আমরা চাই, বিশ্ববিদ্যালয়ের সব শিক্ষার্থীর জন্য নির্বাচন উন্মুক্ত হোক। তাই ৩০ বছরের অধিক কেউ চাইলে আমাদের মনোনয়নপত্র নিতে পারে। 

বাম সংগঠন : বামপন্থি ছাত্রসংগঠনগুলোর দুই জোট ‘প্রগতিশীল ছাত্রজোট’ এবং ‘সাম্রাজ্যবাদবিরোধী ছাত্রঐক্য’ জোটবদ্ধভাবে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে বলে জানা গেছে। বিষয়টি নিয়ে গতকাল রাতে এক বৈঠকে মিলিত হন জোটের নেতৃবৃন্দ। এই দুই জোট আজ সকালে আনুষ্ঠানিকভাবে প্যানেল ঘোষণা করবে বলে জানিয়েছেন ছাত্র ইউনিয়নের ঢাবি শাখার সভাপতি ফয়েজ উল্লাহ। অন্যদিকে, কোটা সংস্কার আন্দোলনের প্লাটফর্ম ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ’ আজই প্যানেল ঘোষণা ও মনোনয়নপত্র নেবে বলে নিশ্চিত করেছেন সংগঠনটির যুগ্ম-আহ্বায়ক নূরুল হক নূর। 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর