শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৯ জুন, ২০১৯ ২৩:০৬

সংঘর্ষে নিহত চীনা নাগরিক

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

সংঘর্ষে নিহত চীনা নাগরিক

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে বাংলাদেশি ও চীনা শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় আহত চীনা ইলেক্ট্রিশিয়ান জ্যাং ইউন শেং (২৬) মারা গেছেন।

গত মঙ্গলবার রাত দেড়টায় শের-ই বাংলা মেডিকেলে ভর্তির পর রাত সোয়া ৩টায় তিনি মারা যান। এ সংঘর্ষের ঘটনায় আহত দুই বাংলাদেশি ও পাঁচ চীনা শ্রমিকও বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এদিকে চীনা কর্তৃপক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে গতকাল সকাল ১১টায় বরিশালের প্রশাসন বিনা ময়না তদন্তে জ্যাং ইউন শেংয়ের মরদেহ তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রজেক্ট ম্যানেজার লিউ সি’র কাছে হস্তান্তর করা হয়। এর আগে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৫ চীনা নাগরিক উ গানা (৫৪), লিন ইয়ং লিন (৪০), মুজানা হুয়া (৩৫), হ্যাং শেং (৬০) এবং লিন লু’কে (৫২) উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করে শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। ওই সংঘর্ষে আহত দুই বাংলাদেশি শ্রমিক মোস্তাফিজুর রহমান (৩৫) এবং আলকাছ (৪০) শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

কলাপাড়া থানার ওসি মনিরুল ইসলাম জানান, গত মঙ্গলবার সকালে বিদ্যুৎ কেন্দ্রের বয়লারের উপর থেকে পড়ে গিয়ে সাবিন্দ্র দাস নামে এক বাংলাদেশি শ্রমিকের মৃত্যু হয়। এর জের ধরে চীনা ও বাঙালি শ্রমিকরা বিকালে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আহত অবস্থায় আটজনকে পাঠানো হয় বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে।  সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার ভোরে চীনা নাগরিক জ্যাং ইউন শেংয়ের মৃত্যু হয়। হাসপাতালের পরিচালক বাকির হোসেন জানান, পটুয়াখালী হাসপাতাল  থেকে মঙ্গলবার রাত ২টার দিকে ছয় চীনা নাগরিককে বরিশাল মেডিকেলে আনা হয়। কিছুক্ষণ পর আরও দুই বাঙালিকে ভর্তি করা হয়। তারা সবাই পায়রা তাপবিদ্যুৎ  কেন্দ্রের কর্মী। নিহত জ্যাংয়ের মাথায় আঘাত গুরুতর ছিল, প্রচুর রক্তক্ষরণ হচ্ছিল। ভোরের দিকে তার মৃত্যু হয়। বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বয়লারের উপর থেকে পড়ে ঘটনাস্থলেই নিহত সাবিন্দ্র দাসের (৩২) বাড়ি হবিগঞ্জ জেলায়। এক চীনা কর্মী সাবিন্দ্রকে লাথি দিয়ে নিচে ফেলে দিয়েছিল বলে অভিযোগ উঠলে বাঙালি শ্রমিকদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। তবে চীনা কর্মীরা দাবি করেন, অসাবধানতায় নিচে পড়ে গিয়েছিলেন সাবিন্দ্র। এ নিয়ে উত্তেজনার মধ্যে বিদ্যুৎ  কেন্দ্রের ভিতরে সাবিন্দ্রর লাশ নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে বাঙালি শ্রমিকরা। তদন্ত কমিটি : এ ঘটনায় গতকাল দুপুরে বিদ্যুৎ ও জ্বালানিমন্ত্রীর উপস্থিতিতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের বৈঠকে তিনটি আলাদা তদন্ত টিম গঠন করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক মো. মতিউল ইসলাম চৌধূরী জানিয়েছেন, আগামী তিন দিনের মধ্যে এ টিমগুলো তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করবে।


আপনার মন্তব্য