শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১৩ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ জুলাই, ২০১৯ ২৩:৪৪

ভারতীয় জেলের সাগরে রুদ্ধশ্বাস সাত দিন

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

ভারতীয় জেলের সাগরে রুদ্ধশ্বাস সাত দিন

ওঁরা ১৫ ভারতীয় জেলে। উত্তাল সাগরে মাছ ধরেন। কিন্তু ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস, সেই সাগরেই হারাতে বসেছিলেন প্রাণ। তবে জীবনযুদ্ধে            অত সহজে হারতে রাজি ছিলেন না রবীন্দ্রনাথ দাস ওরফে কানু দাস। গভীর সমুদ্রে মাছ ধরার ট্রলার ডুবে যাওয়ার পর সাত দিন যুদ্ধ করেন গভীর সমুদ্রে। পরে জাহাজ এমভি জাওয়াদের সহায়তায় নতুন জীবন ফিরে পান কানু দাস। নতুন জীবন ফিরে পেয়ে গতকাল বিকালে বাংলাদেশ মেরিন একাডেমি জেটিতে তিনি মুখোমুখি হন গণমাধ্যমের। এ সময় উপস্থিত ছিলেন নৌবাণিজ্য দফতরের প্রধান কর্মকর্তা ড. সাজিদ হোসেন, কেএসআরএমের সিইও প্রকৌশলী মেহেরুল করিম, এমভি জাওয়াদের ক্যাপ্টেন এস এম নাসির উদ্দিন, অ্যাসিস্ট্যান্ট ব্র্যান্ড ম্যানেজার মনিরুজ্জামান রিয়াদ, মিজানুল ইসলাম প্রমুখ।

জীবন ফিরে পাওয়ার জন্য বার বার কৃতজ্ঞতা জানান এমভি জাওয়াদ, কেএসআরএম, বাংলাদেশ কোস্টগার্ড ও বাংলাদেশের জনগণের প্রতি।

গভীর সমুদ্রে বেঁচে থাকার সংগ্রামের বিষয়ে কানু দাস বলেন, ‘ট্রলারে ১৫ জন ছিলাম। লাইফ জ্যাকেটও ছিল। তার পরও ট্রলারডুবির পর এক এক করে সবাই তলিয়ে যাচ্ছিল। সব শেষে ছিলাম আমি ও আমার ভাইপো। উদ্ধারের তিন ঘণ্টা আগে ভাইপো তলিয়ে যায়।’ তিনি বলেন, ‘কোনো ধরনের খাবার গ্রহণ ছাড়াই সাগরে বেঁচে ছিলাম। জলও খেতে পারতাম না। অপেক্ষায় থাকতাম কখন বৃষ্টি হবে। বৃষ্টি হলে হাঁ করে থাকতাম বৃষ্টির জল পান করার জন্য। সাগরে মাছের অনেক কামড় সহ্য করেছি। কিন্তু আশা ছাড়িনি। বিশ্বাস ছিল বেঁচে যাব। সেই বিশ্বাসের জোরেই ১০ জুলাই কেএসআরএম গ্রুপের সহযোগী প্রতিষ্ঠান এসআর শিপিং লিমিটেডের জাহাজ এমভি জাওয়াদ উদ্ধার করে।’


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর