শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৩ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২২ জানুয়ারি, ২০২০ ২৩:২৮

ফেঁসে যাচ্ছেন কারাগারের দুর্নীতিবাজরা

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তদন্ত প্রতিবেদন অধিদফতরে

আনিস রহমান

ফেঁসে যাচ্ছেন কারাগারের দুর্নীতিবাজরা

দেশের কারাগারগুলোর অভ্যন্তরে ঘটতে থাকা ব্যাপক অনিয়ম-দুর্নীতির সঙ্গে কারাগারের কর্মকর্তারা কীভাবে জড়িত তার সচিত্র তথ্য উদঘাটনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গোপনে অনুসন্ধান চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এরই অংশ হিসেবে চট্টগ্রাম বিভাগের  ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিল্লা ও রাজশাহী বিভাগের রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারসহ দেশের কয়েকটি কারাগারে অনুসন্ধান শেষে জড়িতদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের নিয়ে গঠিত তদন্ত কমিটি। এরই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি কুষ্টিয়া জেলা কারাগারে অনিময়-দুর্নীতি তদন্ত শেষে জড়িতদের চিহ্নিত করে তাদের শাস্তির সুপারিশসহ একটি প্রতিবেদন কারা অধিদফতরে পাঠানো হয়েছে। এদিকে ঢাকা বিভাগের গোপালগঞ্জ জেলা কারাগারে ব্যাপক অনিয়ম-দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে কারাগারের জেলার মো. আতিকুর রহমানকে বদলি করে নরসিংদী কারাগারে পাঠানো হয়। গতকাল খুলনা বিভাগের ডিআইজি প্রিজন্স মো. সগীর মিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, গত নভেম্বর মাসে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কারা অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব সৈয়দ বেলাল হোসেনের নেতৃত্বে উচ্চ পর্যায়ের একটি তদন্ত কমিটির প্রতিনিধি কুষ্টিয়া জেলা কারাগার সরেজমিন পরিদর্শন করে গেছেন। কারাগারে বন্দীদের সঙ্গে স্বজনদের সাক্ষাতে অনিয়ম, খাবারের মান নিম্নমানসহ অবৈধ উপায়ে কারারক্ষীদের অনিয়মে জড়িয়ে পড়া ছাড়াও কারা অভ্যন্তরে অনিয়ম খুঁজে পায় তদন্ত কমিটি। এসব অনিয়মের সঙ্গে জড়িত কর্মকর্তা-কর্মচারীর নাম পদবি উল্লেখ করে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তির সুপারিশ করে কারা মহাপরিদর্শকের (আইজি প্রিজন্স) কাছে প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছে বলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে। কুষ্টিয়া জেলা কারাগারের জেল সুপার জাকের হোসেন বলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে সৈয়দ বেলাল হোসেন সাহেব কুষ্টিয়ায় অন্য একটি কাজে এসেছিলেন। তখন আমার কারাগারে এসে ঘুরে গেছেন। তিনি শিডিউল করে আসেননি জানিয়ে বলেন, ২০১৯ সালের ১৬ নভেম্বর একদিন কথা বলেছেন। আর পরের দিন ঘুরে গেছেন। কী কী অনিয়ম পেয়েছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, না, আমার কারাগারের তো সুনাম আছে। তেমন অনিয়ম পাননি। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে শাস্তির সুপারিশ করে তদন্ত প্রতিবেদন কারা অধিদফতরে পাঠানো হয়েছে। এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, এখনো আমরা এ ব্যাপারে কিছু জানতে পারিনি। উল্লেখ্য, কুষ্টিয়া জেলা কারাগারে ব্যাপক অনিয়ম-দুর্নীতি হচ্ছে এমন সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পাওয়ার পরই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গঠিত তদন্ত কমিটির প্রধান অতিরিক্ত সচিব (কারা অনু বিভাগ) সৈয়দ বেলাল হোসেন গত বছরের নভেম্বর মাসে কারাগারটি পরিদর্শনে যান। এদিকে গোপালগঞ্জ জেলা কারাগারে বন্দীর সঙ্গে দেখা-সাক্ষাতে টাকা আদায়, ভিতরে মাদক ব্যবসা, কারা ক্যান্টিনে অনিয়ম, বন্দীর খাবারের মান খুবই খারাপসহ বিভিন্ন অভিযোগ ওঠার পর কারা কর্তৃপক্ষ সম্প্রতি কারাগারের জেলার আতিকুর রহমানকে নরসিংদী কারাগারে বদলি করা হয়।


আপনার মন্তব্য