শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:৪৬

নতুন পর্ষদ হচ্ছে আজ

ব্রোকার প্রভাবমুক্ত ডিএসইর প্রত্যাশা বিনিয়োগকারীদের

আলী রিয়াজ

ব্রোকার প্রভাবমুক্ত ডিএসইর প্রত্যাশা বিনিয়োগকারীদের

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) নতুন পর্ষদ গঠিত হচ্ছে আজ। পর্ষদের প্রথম সভায় আজ দায়িত্ব নেবেন নতুন চেয়ারম্যান। ২০১৩ সালে ডিমিউচুয়ালাইজেশন হওয়ার পর এটি হবে তৃতীয় পর্ষদ। ২০১০ সালে ভয়াবহ কারসাজির ঘটনায় খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদের নেতৃত্বে গঠিত তদন্ত কমিটির সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৩ সালে ডিমিউচুয়ালাইজেশন বা পর্ষদ ও ব্যবস্থাপনা আলাদা করা হয় ডিএসইর। কিন্তু এরপরও গত ছয় বছরে ডিএসই পর্ষদ ব্রোকার শেয়ার হোল্ডারদের প্রভাবমুক্ত করা যায়নি বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। নতুন পর্ষদ প্রভাবমুক্ত ডিএসই গড়ে তুলবে, এমন প্রত্যাশা করছেন সাধারণ বিনিয়োগকারীরা।

জানা গেছে, ২০১৩ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত ছয় বছরে ডিএসইতে সাতজন স্বাধীন পরিচালক ও চারজন শেয়ার হোল্ডার পরিচালক ছিলেন। পর্যালোচনায় দেখা গেছে, চারজন শেয়ার হোল্ডার পরিচালকই পুরো বোর্ড ও ম্যানেজমেন্ট নিয়ন্ত্রণ করেছেন। সম্প্রতি ডিএসইর ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) নিয়োগেও সবচেয়ে বেশি ভূমিকা রাখেন ডিএসই ব্রোকার ও শেয়ার হোল্ডার পরিচালকরা। স্বাধীন পরিচালক হিসেবে গত ৬ বছর যারা দায়িত্ব পালন করেছেন তারা কোনো ভূমিকা রাখতে পারেননি। একজন প্রভাবশালী শেয়ার হোল্ডার পরিচালক সবচেয়ে বেশি প্রভাব খাটিয়েছেন। নতুন স্বাধীন পরিচালক নির্ধারণে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক পরিচালক জানান, ডিএসইর বোর্ড মূলত শেয়ার হোল্ডার পরিচালকরাই নিয়ন্ত্রণ করেন। ডিএসই ব্রোকার অ্যাসোসিয়েশন নামে আরেকটি সংগঠন ডিএসইর বোর্ড গঠন ও এমডি নিয়োগ নিয়ে ভূমিকা রাখে। এ ছাড়া মেনুপুলেশন, সার্কুলার ট্রেডিং, প্লেসমেন্ট শেয়ার বাণিজ্য, বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে এভারেজ প্রাইজ বেশি নেওয়াসহ নানা অনিয়মে এদের কেউ না কেউ জড়িত। পুঁজিবাজার গতিশীল করতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে নানা পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। এরপরও যদি ডিএসই-সিএসইকে ডিমিউচুয়ালাইজ হিসেবে বোর্ড ম্যানেজমেন্টকে আলাদা করা না যায় তাহলে সবকিছু ভেস্তে যাবে। যারা অপরাধ করবে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া না হলে বাজার শক্তিশালী হবে না। জানতে চাইলে খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক ব্রোকার মালিকদের কাছ থেকে উদ্ধার করতেই ডিমিউচুয়ালাইজেশন করা হয়েছে। তবে আমরা যে পদ্ধতির সুপারিশ করেছিলাম সেটা বাস্তবায়ন হয়নি। কিছু প্রভাবশালী সেটা কার্যকর হতে দেয়নি। এখনো ব্রোকার মালিকরাই নিয়ন্ত্রণ করেন। একটি শক্তিশালী পুঁজিবাজার গঠন করতে হলে পুরোপুরি আলাদা করতে হবে ডিএসইর ব্যবস্থাপনা।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর