শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২০ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৯ মার্চ, ২০২১ ২৩:৫২

মা-বাবার পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত মওদুদ আহমদ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা ও নোয়াখালী প্রতিনিধি

মা-বাবার পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত মওদুদ আহমদ
গতকাল নয়াপল্টনে বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের জানাজায় মানুষের ঢল -বাংলাদেশ প্রতিদিন

শেষ ইচ্ছা অনুযায়ী নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের মানিকপুর গ্রামে মা-বাবার পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ। দেশে-বিদেশে ছয় দফা নামাজে জানাজা ও রাষ্ট্রীয়ভাবে ‘গার্ড অব অনার’ প্রদান শেষে গতকাল সন্ধ্যায় পারিবারিক কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়। এ সময় কান্নায় ভেঙে পড়েন নেতা-কর্মী ও স্বজনরা। এর আগে সন্ধ্যা ৬টার দিকে তাঁর গ্রামের বাড়ির সামনের মাঠে শেষ জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। আরও দুটি জানাজা হয় কোম্পানীগঞ্জের সরকারি মুজিব কলেজ মাঠে এবং কবিরহাট সরকারি কলেজ মাঠে। সরকারি মুজিব কলেজ মাঠে জানাজার আগে প্রয়াত মওদুদ আহমদকে রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে ‘গার্ড অব অনার’ দেওয়া হয়। বিকাল ৩টার দিকে ঢাকা থেকে হেলিকপ্টারে করে  মওদুদ আহমদের লাশ কবিরহাট সরকারি পাইলট উচ্চবিদ্যালয় মাঠে পৌঁছায়। সেখান থেকে লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্সে নেওয়া হয় কবিরহাট সরকারি কলেজ মাঠে। সেখানে চতুর্থ জানাজায় অংশ নিতে জুমার নামাজের পর থেকে হাজারো মুসল্লির ঢল নামে। কোম্পানীগঞ্জের জানাজা শেষে মওদুদ আহমদের লাশ নিয়ে যাওয়া হয় সিরাজপুর ইউনিয়নের মানিকপুর গ্রামের বাড়িতে। সেখানে তাঁর ‘নিজ বাড়ির দরজা’য় জানাজা শেষে সন্ধ্যায় পারিবারিক কবরস্থানে মা-বাবার কবরের পাশে দাফন করা হয় মওদুদ আহমদকে।

সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে মারা যাওয়ার পর প্রবাসী বাংলাদেশিদের অংশগ্রহণে সেখানে প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয় সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীর। নোয়াখালীর জানাজার আগে বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদবিষয়ক উপদেষ্টা, মওদুদ আহমদের ভায়রা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী, ব্যারিস্টার মওদুদের সহধর্মিণী সাবেক এমপি হাসনা মওদুদ, বিএনপি নেতা মোহাম্মদ শাহজাহান, বরকত উল্লা বুলু, ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, জয়নুল আবদিন ফারুক, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল করিম চৌধুরী এমপি, বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিন প্রমুখ।

স্মৃতিচারণা করে একরামুল করিম চৌধুরী এমপি বলেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ ছিলেন বাংলাদেশের একটি নক্ষত্র। তিনি ছিলেন নোয়াখালীবাসীর ঠিকানা। এ রকম নেতা আমার জীবনে আর দেখিনি। তিনি কোনো কারণে ফোন করলে বলতেন, ‘একরাম সাহেব! এই বিষয়টি একটু দেখবেন।’ এ ফোন আর কখনো আসবে না। আমরা একজন অভিভাবক হারালাম।

বসুরহাট পৌর মেয়র কাদের মির্জা বলেন, আমরা কোম্পানীগঞ্জ উপজেলাবাসী একজন অভিভাবককে হারিয়েছি। নোয়াখালীর তিন অভিভাবক ওবায়দুল কাদের, একজন আবু নাসের, আরেকজন ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ। এর মধ্যে আমরা ব্যারিস্টার মওদুদকে হারিয়েছি। আমরা চাই ব্যারিস্টার মওদুদের মতো আরেকজন নেতা নোয়াখালীতে তৈরি হোক। যিনি মানুষের হাসিকান্নার সঙ্গে জড়িয়ে থাকবেন।

সকালে ঢাকায় সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয় তাঁর প্রথম জানাজা। তাঁর সারা জীবনের কর্মস্থল সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণের এ জানাজা শেষে মওদুদ আহমদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, বিচারপতি নুরুজ্জামান, সৈয়দ জিয়াউল করিম, মিফতাহ উদ্দিন চৌধুরী ও এস এম মনিরুজ্জামান, মৎস্য ও প্রাণী সম্পদমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন, ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর (বীরউত্তম), এয়ার ভাইস মার্শাল (অব.) আলতাফ হোসেন চৌধুরী, তৈমূর আলম খন্দকার প্রমুখ। ঢাকায় দ্বিতীয় জানাজা হয় নয়াপল্টনে বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে। দলের সর্বস্তরের নেতা-কর্মী তাদের প্রিয় নেতাকে শেষ শ্রদ্ধা জানান। দলীয় কার্যালয়ের সামনে লাশ আসার পর সেখানে আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়। নেমে আসে এক গভীর শোকের ছায়া। ভারাক্রান্ত হয়ে ওঠেন মওদুদের সহযোদ্ধারা। কারও কারও চোখ দিয়ে অশ্রু গড়িয়ে পড়তে দেখা যায়। এখানে বিএনপির আবেগাপ্লুত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সংক্ষিপ্ত বক্তৃতা করেন।

নোয়াখালী-৫ আসন (কোম্পানীগঞ্জ-কবিরহাট) থেকে পাঁচবারের নির্বাচিত এমপি ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের মৃত্যুতে এক দিনের শোক কর্মসূচি পালন করে বিএনপি। প্রয়াত এ নেতার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দলীয় পতাকা অর্ধনমিত ও কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়।

এর আগে সকাল ৯টা ১৫ মিনিটের দিকে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য মওদুদ আহমদের লাশ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে রাখা হয়। এরপর বিএনপি, নাগরিক ঐক্য, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা), এনডিপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সাধারণ মানুষ মওদুদ আহমদের প্রতি শ্রদ্ধা জানায়। স্বামীর কফিনের পাশে বসে ছিলেন শোকগ্রস্ত হাসনা জসীমউদ্দীন মওদুদ। তাঁর ভায়রা প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানিবিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরীও শ্রদ্ধা জানান শহীদ মিনারে। শ্রদ্ধা জানান বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মেজর (অব.) হাফিজউদ্দিন আহমদ, শওকত মাহমুদ, ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, আমানউল্লাহ আমান, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না প্রমুখ।

গত মঙ্গলবার বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় সিঙ্গাপুরে শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন রাজনীতিবিদ মওদুদ আহমদ। তাঁর বয়স হয়েছিল ৮১ বছর। বৃহস্পতিবার বিকালে তাঁর লাশ ঢাকায় এসে পৌঁছায়।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর