শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ১২ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১১ এপ্রিল, ২০২১ ২৩:০৮

করোনায় মৃত্যু ও আক্রান্ত বাড়ছে, দেশে দেশে ফের লকডাউন

প্রতিদিন ডেস্ক

Google News

করোনাভাইরাসে বিশ্বব্যাপী মৃত্যু ও আক্রান্ত লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়া শুরু করেছে। ফলে বিভিন্ন দেশে নতুন করে লকডাউন ও কারফিউ জারি করা শুরু হয়েছে। সূত্র : বিবিসি, রয়টার্স, এএফপি।

প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, ভারতে করোনায় সবচেয়ে সংক্রমিত রাজ্য মহারাষ্ট্রে সপ্তাহান্তে লকডাউন জারি করা হয়েছে। রাজ্যটিতে করোনার সংক্রমণ তীব্র রূপ নেওয়ায় এবং টিকার ঘাটতি থাকায় শনিবার এই লকডাউন জারি করা হয়। এ ছাড়া মহারাষ্ট্র ও এর রাজধানী  মুম্বাইয়ে রেস্টুরেন্টগুলো বন্ধ এবং পাঁচজনের বেশি লোক একত্রে জড়ো হওয়ার বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। আর ছত্তিশগড়ের রায়পুর জেলাতেও ১০ দিনের লকডাউন জারি করা হয়েছে।

একইভাবে কলম্বিয়ার রাজধানী বোগোটায় প্রায় ৮০ লাখ নাগরিককে ঘরে থাকার ও করোনা বিধিনিষেধ পালনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। করোনার তৃতীয় ঢেউ মোকাবিলা করছে লাতিন আমেরিকার দেশটি। দেশটির সব বড় শহরে কারফিউ চলছে। এদিকে রাত্রিকালীন কারফিউ জারি করেছে আর্জেন্টিনা। গত শুক্রবার থেকে এই কারফিউ শুরু হয়েছে। চলবে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত। পাশাপাশি পুরো ফ্রান্সে নানা বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। জার্মানিতে বেশকিছু রাজ্যে মানুষের চলাচল ও বাণিজ্যে কড়াকড়ি আরোপ করার চেষ্টা করছে দেশটির সরকার। ইরানের অধিকাংশ অঞ্চলে শনিবার থেকে ১০ দিনের লকডাউন জারি করা হয়েছে। ইরানের ৩১টি প্রদেশের ২৩টিতে এই লকডাউন কার্যকর হবে। লকডাউনে ব্যবসা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, থিয়েটার ও খেলাধুলার অনুষ্ঠান বন্ধ থাকবে এবং বুধবার থেকে শুরু হওয়া পবিত্র রমজান মাসে লোকজনের জড়ো হওয়া নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

আক্রান্ত ১৩ কোটি ৬২ লাখ ছাড়াল : বিশ্বব্যাপী মহামারী করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিনই বেড়ে চলেছে। সারা বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন অন্তত ১৩ কোটি ৬২ লাখ মানুষ। এ মহামারীতে এখন পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ২৯ লাখ ৪১ হাজার ১১১ জনের। এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাস সৃষ্ট মহামারী কভিড-১৯ থেকে সুস্থ হয়েছেন ১০ কোটি ৯৫ লাখ ৭ হাজার। ওয়ার্ল্ডোমিটারের হিসাব অনুযায়ী, শনিবার পর্যন্ত বিশ্বে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মৃত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় ৫ লাখ ৭৫ হাজার ৫৯৩ জন মারা গেছেন। এ ছাড়া করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩ কোটি ১৮ লাখ ৬৯ হাজার ৯৫০ জনের। আর সুস্থ হয়েছেন ২ কোটি ৪৪ লাখ ২৩ হাজার ৫৮৯ জন। যুক্তরাষ্ট্রের পর করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ ব্রাজিল। আক্রান্ত ও মৃত্যু বিবেচনায় দেশটির অবস্থান দ্বিতীয়। লাতিন আমেরিকার এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১ কোটি ৩৪ লাখ ৪৫ হাজার ৬ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৩ লাখ ৫১ হাজার ৪৬৯ জন। আর সুস্থ হয়েছেন ১ কোটি ১৮ লাখ ৩৮ হাজার ৫৬৪ জন। তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে ভারত। এশিয়ার মধ্যে ভারত করোনায় সবচেয়ে বিপর্যস্ত দেশ। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১ কোটি ৩৩ লাখ ৫৫ হাজার ৪৬৫ জন। মারা গেছেন ১ লাখ ৬৯ হাজার ৩০৫ জন। সুস্থ হয়েছেন ১ কোটি ২০ লাখ ৭৮ হাজার ৩৩৩ জন।

করোনাভাইরাস শনাক্তের তালিকায় চারে ইউরোপের দেশ ফ্রান্স। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৫০ লাখ ২৩ হাজার ৭৮৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। মারা  গেছেন ৯৮ হাজার ৬০২ জন। আর সুস্থ হয়েছেন ৩ লাখ ৩ হাজার ৬৩৯ জন। তালিকার পঞ্চম স্থানে থাকা রাশিয়ায় এখন পর্যন্ত ১ লাখ ২ হাজার ৬৪৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। শনাক্ত ৪৬ লাখ ৩২ হাজার ৬৮৮ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৪২ লাখ ৫৮ হাজার ২৭৯ জন। এরপর করোনাভাইরাস শনাক্তের দিক থেকে তালিকায় রয়েছে যথাক্রমে যুক্তরাজ্য, তুরস্ক, ইতালি, স্পেন ও জার্মানি। তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ৩৩তম।