শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১৭ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ এপ্রিল, ২০২১ ২৩:৪১

শেরপুরে তরুণীকে গণধর্ষণ, তিনজন আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া

Google News

বগুড়ার শেরপুরে কাজের খোঁজে আসা স্বামীপরিত্যক্তা এক নারী গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন। তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে তিন ধর্ষককে হাতেনাতে আটক করেন। গণধোলাই দিয়ে তাদের পুলিশে সোপর্দ করা হয়। এ ঘটনায় গতকাল দুপুরে শেরপুর থানায় ভুক্তভোগী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতে মামলা করেন। আটকরা হলেন উপজেলার কুসুম্বী ইউনিয়নের বাগড়া হঠাৎপাড়া গ্রামের আবদুস সামাদের ছেলে মামুন প্রামাণিক (৩৫), আবুল শেখের ছেলে আবদুল খালেক (২৮) ও পৌরশহরের উত্তর সাহাপাড়ার সাইফুল সরকারের ছেলে সোহাগ সরকার (২২)। মামলাসূত্রে জানা যায়, জেলার ধুনট উপজেলার গোসাইবাড়ী ইউনিয়নের গোসাইবাড়ী চিতুলিয়া গ্রামের ওই নারী বাসাবাড়িতে কাজের খোঁজে বৃহস্পতিবার বিকালে শেরপুর শহরে আসেন। অনেক বাড়িতে কাজের খোঁজ করেন। রাত নেমে এলে বাড়ি ফেরার উদ্দেশ্যে ধুনট মোড়ে সিএনজি অটোরিকশাস্ট্যান্ডে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছিলেন। রাত ৮টার সময় আটক ব্যক্তিরা তাকে বাগড়া হঠাৎপাড়া গ্রামের একটি বাড়িতে কাজের সন্ধান দেন। ব্যাটারিচালিত একটি অটোরিকশাযোগে সেখানে তাকে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু সেখানে পৌঁছার পর ওই বাড়িতে তাকে না নিয়ে একটি পুকুরপাড়ে নিয়ে যান তারা। সেখানে হত্যার ভয় দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ করতে থাকেন। এ সময় তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে ধর্ষকদের হাতেনাতে আটক করেন। সংবাদ পেয়ে পুলিশ এসে তাদের নিয়ে যায় বলে এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে। শেরপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ জানান, গণধর্ষণের শিকার ওই নারী বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য তাকে গতকাল দুপুরে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সেই সঙ্গে মামলায় অভিযুক্ত ধৃত তিনজনকে বগুড়া আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর