বুধবার, ৩০ মার্চ, ২০২২ ০০:০০ টা

হামলা কমানোর আশ্বাস রাশিয়ার

ইউক্রেন যুদ্ধ নিয়ে তুরস্কে ইতিবাচক বৈঠক

প্রতিদিন ডেস্ক

হামলা কমানোর আশ্বাস রাশিয়ার

ইউক্রেনে হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত সরকারি ভবন -এএফপি

যুদ্ধের মধ্যেই নতুন করে রাশিয়া-ইউক্রেন শান্তি আলোচনা শুরু হয়েছে। গতকাল সকালে এ আলোচনা বৈঠক বসে তুরস্কের ইস্তাম্বুলের বসফোরাস প্রণালি তীরবর্তী দফতর দলমাবাচ প্রাসাদে। এর আয়োজক ছিলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান। শুরুতে ভাষণ দিয়ে তিনি বৈঠকের উদ্বোধন করেন। জানা গেছে, উভয়পক্ষের আলোচনায় ইতিবাচক অবস্থান প্রতিফলিত হয়েছে। রাশিয়া তাদের হামলা হ্রাস করতে এবং ইউক্রেন রাশিয়ার বেশ কিছু দাবি মেনে নিতে সম্মত হয়েছে। সূত্র : রয়টার্স, বিবিসি, সিএনএন, আল জাজিরা, স্পুটনিক। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, ইউক্রেনে  রুশ অভিযান অব্যাহত থাকলেও শান্তি আলোচনার জন্য বৈঠকে বসে ইউক্রেন ও রাশিয়ার প্রতিনিধি দল। এতে পূর্ণাঙ্গ কোনো ফলাফল বেরিয়ে না এলেও রাশিয়া ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভ ও চেরনিহিভে সামরিক কার্যকলাপ হ্রাস করার আশ্বাস দিয়েছে। অন্যদিকে ইউক্রেনও রাশিয়ার প্রধান প্রস্তাবগুলো মেনে নিতে সম্মত হয়েছে। পর্যবেক্ষকদের মতে, দুই দেশের মধ্যে আস্থা বাড়ানোর এটি প্রথম পদক্ষেপ বলে মনে করা হচ্ছে।

এর আগে শুরু হওয়া বৈঠকে বক্তব্য দেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান। এ সময় তিনি ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি ও রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট      ভ্লাদিমির পুতিনকে তার গুরুত্বপূর্ণ বন্ধু হিসেবে উল্লেখ করেন। এরদোগান বলেন, এই আলোচনার অগ্রগতি দুই নেতার সাক্ষাতের সুযোগ তৈরি করবে। আর সেই আলোচনা আয়োজনের জন্যও তুরস্ক প্রস্তুত রয়েছে বলেও জানান তিনি। এরদোগান আরও বলেন, উভয়পক্ষকে শান্তির পথে আসতেই হবে। না হলে কেউ-ই লাভবান হতে পারবেন না। খবরে বলা হয়, বৈঠক শুরুর বেশ আগে ইউক্রেনের প্রতিনিধি দল তুরস্কের ইস্তাম্বুল শহরে পৌঁছায়। আয়োজিত  বৈঠকে ইউক্রেনের প্রতিনিধি দলের হয়ে নেতৃত্ব দেন দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওলেকসি রেজনিকোভ এবং প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির কার্যালয়ের প্রধান মিখাইল পোডোলিয়াক। অন্যদিকে রাশিয়ার পক্ষে প্রধান আলোচক থাকেন ভøাদিমির মেলোডেস্কি এবং উপ-প্রতিরক্ষামন্ত্রী আলেকজান্ডার ফোমিন।

বৈঠক শেষে রুশ প্রতিনিধি দলের পক্ষে ভ্লাদিমির মেলোডেস্কি গণমাধ্যমকে জানান, বৈঠকে রুশ প্রতিনিধি দল ইউক্রেনের কাছ থেকে ‘স্পষ্টভাবে স্পষ্ট অবস্থান’ পেয়েছে। আলোচনা ছিল গঠনমূলক। তিনি বলেন, ‘আমরা ইউক্রেনের কাছ থেকে লিখিত প্রস্তাব পেয়েছি, যা একটি নিরপেক্ষ, অ-সংযুক্তিহীন এবং অ-পরমাণু অবস্থার জন্য ইতিবাচক। এই সঙ্গে ইউক্রেন নিশ্চিত করেছে যে, তারা রাসায়নিক ও জীবাণু অস্ত্রসহ সব ধরনের গণবিধ্বংসী অস্ত্র তৈরি এবং স্থাপন করবে না। দেশের ভূখন্ডে বিদেশি সামরিক ঘাঁটি এবং বিদেশি সৈন্যদের উপস্থিতিও রাখবে না।

মেলোডেস্কি আরও জানান, এই বৈঠকে ইউক্রেনও কতগুলো প্রস্তাব দিয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে- রাশিয়াকে নিশ্চিত করতে হবে যে, ইউক্রেনের ইউরোপীয় ইউনিয়নে যোগদানে রাশিয়া আপত্তি করবে না। ইউক্রেনের নিরাপত্তায় জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্যদের পাশাপাশি জার্মানি-কানাডা-পোল্যান্ড-ইসরায়েল এবং তুরস্ককে গ্যারান্টার রাষ্ট্র করতে রাজি থাকতে হবে। মেলোডেস্কি জানান, এসব প্রস্তাব মস্কো পর্যালোচনা করবে এবং রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিনের কাছে উপস্থাপন করা হবে। এর পরই কেবল রাশিয়া এবং ইউক্রেনের মধ্যে একটি চূড়ান্ত চুক্তি হতে পারে। তিনি আরও জানান, পরবর্তী আলোচনা বৈঠক আপাতত ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে হতে থাকবে।

 

ইউক্রেনের দাবি, রুশ বাহিনী জ্বালানি ডিপোগুলোতে হামলা চালাচ্ছে : এদিকে আলোচনা বৈঠকের আগে ইউক্রেনীয় বাহিনীর জেনারেল স্টাফ দাবি করেছিলেন, রাশিয়ার বাহিনীগুলো ইউক্রেন জুড়ে জ্বালানি সংরক্ষণাগারগুলো লক্ষ্য করে হামলা চালাচ্ছে। ‘রসদ সরবরাহ জটিল’ করে তুলতে এবং ‘মানবিক সংকটের পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে’ তারা এমনটি করছে এবং এ উদ্দেশ্যে ‘আবাসিক এলাকাগুলোতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা’ চালিয়ে যাচ্ছে। এই সঙ্গে গণমাধ্যমগুলো জানায়, ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভসহ লভিভ, রিভনে, জেতোমর ও লুটস্কের পাশাপাশি আরও বেশ কয়েকটি শহরে জ্বালানি ডিপোগুলোতে হামলার খবর পাওয়া গেছে। এদিকে সোমবার খারকিভ অঞ্চলের লুবোতিন শহরে রাশিয়ার বাহিনীগুলো ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে বলে জানিয়েছেন ইউক্রেনীয় কর্মকর্তারা। তারা জানিয়েছেন, এসব হামলায় বেশ কয়েকটি বাড়ি ধ্বংস হয়েছে। টেলিগ্রামে দেওয়া এক বিবৃতিতে খারকিভের আঞ্চলিক আইন কর্মকর্তার দফতর জানিয়েছে, ওই হামলার পর উদ্ধারকারীরা ধ্বংসস্তূপ থেকে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে আর এ হামলায় আরও সাতজন আহত হয়েছেন।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর