শিরোনাম
বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ০০:০০ টা

সময় বৃদ্ধিতে বইমেলায় উচ্ছ্বাস

মোস্তফা মতিহার

সময় বৃদ্ধিতে বইমেলায় উচ্ছ্বাস

প্রকাশকদের দাবির মুখে দুই দিন বেড়েছে অমর একুশে বইমেলার সময়। দর্শক-লেখক ছাড়াও প্রকাশকদের মাঝে বইছে আনন্দের জোয়ার। গতকাল অমর একুশে বইমেলার ২৮তম দিনে সেই উচ্ছ্বাসই লক্ষ্য করা গেছে। অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে অন্বেষা প্রকাশনের স্বত্বাধিকারী মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন বলেন, শুক্র ও শনিবার দুই দিন সরকারি ছুটি বলে আমরা মেলার আয়োজক প্রতিষ্ঠান বাংলা একাডেমির কাছে তথা সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছিলাম সাপ্তাহিক ছুটি সামনে রেখে পূর্বঘোষিত সময় নির্ধারিত তারিখে যাতে মেলা বন্ধ না করা হয়। ১ ও ২ মার্চ শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটির দিনগুলোয় মেলা চালু থাকলে প্রকাশকরা ছুটির দিনের সুবিধা পাবেন। এতে করে প্রকাশকরা একটু লাভবান হবেন। সে কারণেই আমরা মেলার সময় দুই দিন বাড়ানোর দাবি করেছিলাম। বাংলা একাডেমি তথা সরকার আমাদের দাবির সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করায় তাদের প্রতি অনেক অনেক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

মুক্তদেশ প্রকাশনীর জাভেদ ইমন বলেন, মেলার সময় বৃদ্ধি করায় সরকারের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানাই। ক্ষতিগ্রস্ত প্রকাশকরা একটু হলেও ক্ষতি পুষিয়ে নিতে পারবেন। জোনাকী প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী মঞ্জুর হোসেন বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বইপ্রেমী মানুষ। তিনি প্রকাশকদের দাবির সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে মেলার সময় দুই দিন বাড়ানোয় তাঁর প্রতি আমি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ প্রকাশ করছি।’ পারিজাত প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী শওকত হোসেন লিটু বলেন, মেলার সময় দুই দিন বাড়িয়ে প্রকাশকদের ব্যবসার পথকে সুগম করে দেওয়ার জন্য বইবান্ধব প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই।

এদিন সন্ধ্যার পর থেকে চিরায়ত সৌন্দর্যের পথে এগিয়ে গেছে মেলা। মেলার প্রবেশদ্বার বন্ধ হওয়ার আগ পর্যন্ত প্রতিটি স্টল ও প্যাভিলিয়নের সামনেই ছিল উপচেপড়া ভিড়। কাব্যকথার বিক্রয়কর্মী নাজমুন নাহার তামিম ও তাহামিনে হেনা বলেন, শেষ দিকে মেলা যেভাবে জমে উঠেছে এবারও সেটিই হয়েছে। শিশুসাহিত্য ও কবিতার বই ভালো বিক্রি হচ্ছে বলে জানালেন এই দুই বিক্রয়কর্মী। এর মধ্যে জালাল খান ইউসুফীর কাব্যগ্রন্থ ‘কবিতা সুন্দরী’ এই প্রকাশনীর বেস্ট সেলার বই বলেও উল্লেখ করেন তারা।

মনিরুল ইসলামের ‘পথভোলা পথিকেরা’ : পাঠক হৃদয় জয় করে সফলতা অর্জন করেছে চৌকস পুলিশ কর্মকর্তা এসবি প্রধান মনিরুল ইসলামের বই ‘পথভোলা পথিকেরা’। অ্যাডভেঞ্চার-থ্রিলার, হরর থ্রিলার, মিস্ট্রি-থ্রিলার, ফ্যান্টাসি-থ্রিলারসহ নানা রসদের কারণে। বইটি পাঠক সমাদৃত হয়েছে।

বইটি নিয়ে ইউনিভার্সেল একাডেমির প্রকাশক ও লেখক মোহাম্মদ অলিদ সিদ্দিকী তালুকদার বলেন, মনিরুল ইসলামের এই বইটি তার অভিযাত্রায় নতুন মাত্রা দিয়েছে। দীর্ঘদিন গোয়েন্দা শাখা ও কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের দায়িত্ব পালনকালে বহু সন্ত্রাসীকে সরাসরি জিজ্ঞাসাবাদের কাজটি করেছেন তিনি। এ অভিজ্ঞতা তাকে ঋদ্ধ করেছে সন্ত্রাসবাদ ও উগ্রবাদ সম্পর্কে। দিয়েছে বাড়তি অন্তর্দৃষ্টি। তা আরও ঝালাই করেছেন সন্ত্রাসবাদ ও উগ্রবাদ নিয়ে গবেষণা ও লেখালেখিতে। এই বিষয়গুলো বইটিতে শৈল্পিকভাবে তুলে ধরেছেন তিনি। তার পথভোলা বইটি একটু বেশি সময় নিয়ে পড়ে রবীন্দ্রনাথের পথভোলা পথিকের কথা মনে পড়ছে। লেখার দারুণ মুন্সিয়ানায় মূল চরিত্রকে তিনি এক জায়গায় না রেখে ঘটনা  টেনে নিয়ে গেছেন সামনের দিকে। মনিরুল ইসলাম চমৎকারিত্বের সঙ্গে তার গবেষণালব্ধ লেখা তুলে ধরেছেন বইটিতে।

হৃদয় রেজওয়ানের দরজার ওপাশে কালো হাতি : বইমেলায় এসেছে হৃদয় নেওয়াজের গল্পগ্রন্থ ‘দরজার ওপাশে কালো হাতি’। এটির প্রকাশক সুবর্ণ। প্রচ্ছদ করেছেন ফৌজিয়া ভূঁইয়া।

গীতি কবি রশিদা আক্তারের চার বই : এবারের বইমেলায় প্রকাশ হয়েছে গীতিকবি রশিদা আক্তারের চারটি বই। বইগুলো হলো কাব্যগ্রন্থ ‘অগ্নিপথ’, ‘হৃদয় ছুঁয়ে’, ‘অতল সুরের সন্ধানে’ ও শিশুতোষ বই ‘ছড়িয়ে দিলাম ছড়ার আলো’। প্রতিটি বইয়ের প্রচ্ছদ ও অলংকরণ করেছেন শিল্পী রফিক উল্যাহ। প্রকাশ করেছে প্রকাশনা সংস্থা জনান্তিক। পাওয়া যাচ্ছে বইমেলার ৩৯০ নম্বর স্টলে।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর