শিরোনাম
প্রকাশ : ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১৭:০৬
প্রিন্ট করুন printer

দেশপ্রেমিক কৃষকরাই এখন সবচেয়ে বেশি অবহেলিত: জিএম কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশপ্রেমিক কৃষকরাই এখন সবচেয়ে বেশি অবহেলিত: জিএম কাদের
গোলাম মোহাম্মদ কাদের (ফাইল ছবি)
Google News

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধী উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি বলেছেন, দেশ প্রেমিক কৃষকরাই এখন সবচেয়ে বেশি অবহেলিত এবং বঞ্চিত। তিনি বলেন, মৌসুমে কৃষি শ্রমিকদের মজুরির চেয়ে ধানের দাম কমে যায়। তখন কৃষকরা ধান কাটতে বিপাকে পড়েন। এ সময় সরকার কৃষিক্ষেত্রে ভর্তুকি দিলেও প্রকৃত কৃষকরা তা পায় না। সরকারি ভর্তুকি পেতে চাইলে রাজনৈতি নেতা-কর্মীদের হাতে লাঞ্ছনার শিকার হয় কৃষক সমাজ। তাই অধিকার আদায়ের প্রশ্নে কৃষকদের ঐক্যের কোন বিকল্প নেই। 

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর হোটেল সেভেন্টি ওয়ান মিলনায়তনে জাতীয় কৃষক পার্টির ৩৪তম প্রতিষ্ঠাবাষির্কী ও নব-গঠিত নির্বাহী কমিটির পরিচিতি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় জাপা চেয়ারম্যান এসব কথা বলেন। 

জিএম কাদের আরও বলেন, পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ দেশে কৃষি ও কৃষকদের উন্নয়নে ব্যাপক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করেছেন। বলেন, কৃষি ঋণ মওকূফ, পল্লী রেশনিং, ন্যায্য মূল্যে কৃষি পণ্য বিক্রির ব্যবস্থা, পল্লী বিদ্যুতায়নের ব্যবস্থা এবং পল্লী অঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন করে কৃষকদের ভাগ্য পরিবর্তনে ব্যাপক ভূমিকা রেখেছেন। এছাড়া কৃষকদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ণে উপজেলা পরিষদ ব্যবস্থা প্রবর্তন করে অসাধারণ কৃতিত্ব গড়েছেন পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। কৃষকদের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে প্রতিটি উপজেলা পর্যায়ে হাসপাতাল নির্মাণ করেছিলেন। তিনি বলেন, এরশাদের কীর্তিই আমাদের রাজনীতির অনুপ্রেরণা। 

এ সময় কৃষকদের সংগঠিত করে তাদের স্বার্থ রক্ষায় কাজ করতে পার্টির নেতাকর্মীদের নির্দেশ দেন 
জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান। তিনি বলেন, কৃষকদের স্বার্থে কাজ করলেই জাতীয় পার্টি উপকৃত হবে। এতে স্থানীয় পর্যায়ে সম্মানিত হবেন জাতীয় পার্টির নেতা-কর্মীরা। তিনি বলেন, স্বাধীনতার পরে কৃষি জমি কমেছে কিন্তু কৃষি উৎপাদন বেড়েছে তিনগুণ। তাই কৃষকদের স্বার্থই দেশের স্বার্থ।

জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও জাতীয় কৃষক পার্টির সভাপতি সাহিদুর রহমান টেপা’র সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এবিএম লিয়াকত হোসেন চাকলাদারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত জাতীয় কৃষক পার্টির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও পরিচিতি সভায় আরো বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য এস.এম ফয়সল চিশতী, মীর আবদুস সবুর আসুদ, জহিরুল ইসলাম জহির, উপদেষ্টা-জহিরুল আলম রুবেল, ভাইস চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান খান, যুগ্ম-মহাসচিব গোলাম মোহাম্মদ রাজু, জাতীয় যুব সংহতির সাধারণ সম্পাদক ফকরুল আহসান শাহজাদা, জাতীয় কৃষক পার্টির উপদেষ্টা মো. কামাল আহম্মেদ তালুকদার, কৃষক পার্টির সহ-সভাপতি মো. এনামুল হক বেলাল, কৃষক পার্টির দফতর সম্পাদক অ্যাড. ইমদাদুল হক। 

উপস্থিত ছিলেন চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা ড. নূরুল আজহার, জাতীয় পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান শেখ আলমগীর হোসেন, দফতর সম্পাদক সুলতান মাহমুদ, যুগ্ম-দফতর সম্পাদক মাহমুদ আলম, সমরেশ মন্ডল মানিক, সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য আনোয়ার হোসেন তোতা, মাসুদুর রহমান মাসুম, নুরুল ইসলাম মিন্টু, নাজনিন সোলতানা, শাহজাহান কবির, জাকির হোসেন মৃধা, কেন্দ্রীয় নেতা অ্যাড. আবু তৈয়ব, জিয়াউর রহমান বিপুল, অ্যাড. পারভেজ তালুকদার, জাতীয় কৃষক পার্টির সহ-সভাপতি হাজী শাহাবুদ্দিন, কাজী মো. জামাল উদ্দিন, মো. আব্দুল কুদ্দুছ মানিক, সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক শেখ হুমায়ুন কবির শাওন, সহ-সাধারণ সম্পাদক মো. আসাদুজ্জামান খান, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. পারভেজ শেখ হৃদয় প্রমুখ।

বিডি-প্রতিদিন/মাহবুব

 

এই বিভাগের আরও খবর