শিরোনাম
প্রকাশ : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১০:২৪
আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১০:২৬

সাম্প্রতিক বিষয়ে বাংলাদেশ-সৌদির পররাষ্ট্রমন্ত্রীর টেলিফোনে আলোচনা আজ

অনলাইন ডেস্ক

সাম্প্রতিক বিষয়ে বাংলাদেশ-সৌদির পররাষ্ট্রমন্ত্রীর টেলিফোনে আলোচনা আজ

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন আজ রবিবার সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফয়সাল বিন ফারহান আল সৌদের সঙ্গে টেলিফোনে দ্বিপক্ষীয় ও সাম্প্রতিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করবেন।

এ টেলিফোন আলাপ বিকাল ৫টায় শুরু হওয়ার কথা রয়েছে বলে শনিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়।

সৌদি সরকার প্রবাসী শ্রমিকদের তাদের কর্মস্থলে ফিরে যাওয়ার বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতা সমাধানে গত বুধবার ইতিবাচকভাবে সাড়া দেয়। শনিবার ভোরে সৌদি এয়ারলাইন্সের প্রথম ফ্লাইট এসভি-৮০২ করে তিন শতাধিক যাত্রীর প্রথম দল দেশটির উদ্দেশে ঢাকা ছেড়ে যায়।

সম্প্রতি ৫৪ হাজার রোহিঙ্গাকে ফেরানোর বিষয়টি সৌদি সরকার উত্থাপন করলেও টেলিফোনে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হবে কি না তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। বাংলাদেশ কক্সবাজার জেলায় ১১ লাখ রোহিঙ্গা নাগরিককে ইতোমধ্যে বসবাসের সুযোগ দিয়েছে।

এদিকে, সৌদি আরবে কয়েক দশক ধরে বসবাস করা ৫৪ হাজার রোহিঙ্গাকে দেশটি ফেরত পাঠাবে না বলে শুক্রবার পুনরায় জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন। তিনি বলেন, ‘সৌদি সরকার আমাদের বলেছে যে, যদি আমরা (রোহিঙ্গাদের) পাসপোর্ট দেই তাহলে তাদের উপকার হবে। কারণ তারা (সৌদি আরব) রাষ্ট্রহীন মানুষ রাখে না।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, সৌদি আরবের অনুরোধের বিষয়টি খতিয়ে দেখতে পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেনের নেতৃত্বে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। ‘এর মানে এই নয় যে সৌদি সরকার তাদের বাংলাদেশে ফেরত পাঠাবে,’ বলেন ড. মোমেন।

সৌদি আরবে বাংলাদেশের প্রায় ২২ লাখ কর্মীর রয়েছে এবং দুদেশের খুব ভালো সম্পর্ক বজায় আছে। কিন্তু এ নিয়ে উসকানি দেয়ার জন্য অনেকে রয়েছেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, অনেক বছর আগে, প্রায় ৩৯ থেকে ৪০ বছর, তখনকার সৌদি কর্তৃপক্ষ দুর্দশা দেখে রোহিঙ্গাদের নিয়ে গিয়েছিল। তাদের কোনো পাসপোর্ট ছিল না এবং তারা আরবিতে কথা বলেন। ‘বাংলাদেশ প্রথমে তাদের পরিচয় যাচাই করতে চায়, কেননা আমরা অতিরিক্ত বোঝা নিতে চাই না।’

ড. মোমেন বলেন, অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের জন্য বর্তমানে সৌদি কারাগারে থাকা ৪৬২ রোহিঙ্গাকে ফিরিয়ে আনার জন্য বাংলাদেশকে আহ্বান জানিয়েছে সৌদি সরকার।

বাংলাদেশ মিশন পরীক্ষা করে দেখেছে যে তাদের মধ্যে কেবল ৭০ থেকে ৮০ জনের বাংলাদেশের পাসপোর্ট রয়েছে। ড. মোমেন বলেন, ‘বাংলাদেশের পাসপোর্ট থাকা ওই ৭০ থেকে ৮০ জনকে ভ্রমণ ভিসা দিয়ে ফিরিয়ে আনবে বাংলাদেশ। অন্যদের বিষয়ে আমরা কিছু জানি না।’

সূত্র: ইউএনবি

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ
 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর