শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২৭ এপ্রিল, ২০১৪ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৭ এপ্রিল, ২০১৪ ০০:০০

ওয়ার্কার্স পার্টির সংবাদ সম্মেলন

বিএনপির লংমার্চ হাস্যকর ও লোক দেখানো

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরো সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা এমপি বলেছেন, তিস্তার পানিবণ্টন চুক্তি না হওয়ার জন্য বাংলাদেশ ও ভারতের সাম্প্রদায়িক দল ও তাদের দোসররাই দায়ী। ১৯৭১ সালে আমাদের মুক্তিযুদ্ধে শর্তহীন সমর্থন ও সহযোগিতার জন্য আমরা ভারতের কাছে চিরকৃতজ্ঞ। কিন্তু তিস্তাসহ অভিন্ন নদীর ন্যায্য হিস্যা প্রসঙ্গে বাংলাদেশ কোনো প্রকার ছাড় দেবে না। কাজেই তিস্তার পানির দাবিতে বিএনপির লংমার্চ হাস্যকর ও লোক দেখানো ছাড়া আর কিছুই নয়। রাজশাহীতে ওয়ার্কার্স পার্টির ৯ম কংগ্রেসের তৃতীয় দিন গতকাল বিকালে স্থানীয় শিল্পকলা একাডেমিতে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। বাদশা বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিং যেদিন বাংলাদেশে এসেছিলেন তিস্তা চুক্তি করতে, সেদিন ভারতের বিজেপি ও পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেস বিরোধিতা করেছিল। আবার ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির বাংলাদেশ সফরের দিন জামায়াতের হরতালে সহিংসতার অজুহাতে বিএনপি প্রধান খালেদা জিয়া তার সঙ্গে সাক্ষাৎ অনুষ্ঠান বাতিল করেছিলেন।

কাজেই আজ তিস্তার পানির দাবিতে বিএনপির লংমার্চ হাস্যকর ও লোক দেখানো ছাড়া আর কিছুই নয়।

তিনি জানান, কংগ্রেসে বিগত পাঁচ বছরে সাংগঠনিক রাজনৈতিক কার্যকলাপ আগত প্রতিনিধিরা পুঙ্খানুপুঙ্খ পর্যালোচনা করছেন। রাতে আন্তর্জাতিক রাজনীতির বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনার কথা রয়েছে। সার্বিক আলোচনায় বাংলাদেশকে অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র হিসেবে এগিয়ে নিতে আহ্বান জানিয়েছেন কংগ্রেসের প্রতিনিধিরা।

বাদশা বলেন, ১৪ দলে আমরা ছিলাম, আছি, থাকব। একই সঙ্গে স্বাধীনতার পক্ষের অন্যান্য রাজনৈতিক শক্তিগুলোকেও ঐক্যবদ্ধ করার চেষ্টা করতে হবে। তবে ১৪ দলের ক্ষমতার ভারসাম্য বিধান করতে হবে। এ জন্য সর্বোৎকৃষ্ট পন্থা হলো ওয়ার্কার্স পার্টিকেই শক্তিশালী করা। আমরা মনোযোগ দিয়ে সেই কাজটিই করব।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্কার্স পার্টির সেন্ট্রাল মিডিয়া সেলের সম্পাদক রফিকুল ইসলাম সুজন ও ছাত্রমৈত্রীর কেন্দ্রীয় সভাপতি বাপ্পাদিত্য বসু। আজ কেন্দ্রীয় কমিটি এবং সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক নির্বাচন করার মধ্য দিয়ে শেষ হবে এই কংগ্রেস।


আপনার মন্তব্য