Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৬ জুন, ২০১৯ ২২:৫৫

‘কিংবদন্তির সঙ্গে খেলছি’

‘কিংবদন্তির সঙ্গে খেলছি’

অনুশীলনের জন্য মাঠ পাওয়া যায়নি। তাই ক্রিকেটারদের ২৯ জুন পর্যন্ত ছুটি! সাকিব আল হাসান গেছেন সপরিবারে ফ্রান্সে। তামিম আছেন লন্ডনে। ব্রিস্টলে গেছেন মোহাম্মদ মিথুন। ক্রিকেটাররা যে যার মতো ছুটি কাটাচ্ছেন। বার্মিংহামে হোটেলে যে কজন আছেন তাদের মধ্যে একজন মেহেদী হাসান মিরাজ। গতকাল হোটেল হায়াত রেজেন্সি বার্মিংহামে কথা হয় টাইগার-অলরাউন্ডারের সঙ্গে...

প্রশ্ন : সাকিব দুর্দান্ত খেলছেন, এটা দলে কতটা ইতিবাচক প্রভাব পড়ছে?

মেহেদী মিরাজ : সব কন্ডিশনেই ভালো করার সক্ষমতা আছে সাকিব ভাইয়ের। বার বার তা তিনি প্রমাণও করেছেন এবং করছেন। অনেক বছর থেকেই ভালো খেলছেন। তাকে নিয়ে আলাদা করে বলার কিছুই নেই। তিনি যে গোটা বিশ্বেরই একজন কিংবদন্তি ক্রিকেটার তা আবার নতুন করে প্রমাণ করেছেন এই বিশ্বকাপে। আমার কাছেও খুবই ভালো লাগছে যে, একজন কিংবদন্তির সঙ্গে আমি খেলছি। তার সঙ্গে ড্রেসিংরুম শেয়ার করছি। বিভিন্ন সমস্যায় আলোচনা করছি। স্পিনার হিসেবে আমাকে বিভিন্ন রকম পরামর্শ দিচ্ছেন। এটা আমার জন্য অনেক বড় পাওয়া।

প্রশ্ন : কিছু দিন আগেও বাংলাদেশ ছিল ‘পঞ্চপা ব’নির্ভর এক দল। সিনিয়ররা ভালো করলে বাংলাদেশ ভালো করত, খারাপ করলে বাংলাদেশও খারাপ করত। কিন্তু এই বিশ্বকাপে সিনিয়রদের পাশাপাশি তরুণরা দারুণ খেলছে! একজন তরুণ ক্রিকেটার হিসেবে বিষয়টি ভাবতে কেমন লাগছে?

মিরাজ : খুবই ভালো লাগছে। এটা দলের জন্য খুবই ভালো একটা দিক। তরুণদের মধ্যে লিটন দাস এক ম্যাচে খুবই ভালো ব্যাটিং করেছে। মোসাদ্দেক সৈকত দারুণ খেলছেন। সৌম্য ভাই শুরুটা ভালো করেছেন। সাইফউদ্দিন ভালো বোলিং করছে। মুস্তাফিজও দারুণ খেলছে। আমিও চেষ্টা করছি টাইট বোলিং করতে। আমরা তরুণরা সবাই সবার জায়গা থেকে পারফরম্যান্স করে যাচ্ছি। সে কারণে দলের পারফরম্যান্স ভালো হচ্ছে। 

প্রশ্ন : আপনি ভালো বোলিং করলেও সময়মতো ব্রেক থ্রু দিতে পারছেন না! এ জন্য কি চ্যালেঞ্জের মুখে পড়ছেন?

মিরাজ : আমি যখন বোলিংয়ে আসি, আমাকে বলা হয় যাতে রান কম দিই। আর টাইট বোলিং করলে উইকেট পাওয়ার সম্ভাবনাও বেশি থাকে। রান কম দিলে প্রতিপক্ষ চাপে পড়ে যায়। তারপর কিন্তু ঠিকই উইকেট চলে আসে। তবে আমার কাছে ব্যক্তিগত পারফরম্যান্স কেমন হচ্ছে না হচ্ছে সেটা বড় বিষয় নয়। দিন শেষে যখন দেখি দল জিতেছে, সেটাই আমার কাছে বড় পাওয়া।

প্রশ্ন : বোলিং ভালো করছেন কিন্তু ব্যাটিংটা নিয়ে কি চিন্তিত?

মিরাজ : আমি তো ব্যাটিং করার সুযোগই কম পাচ্ছি। যখন উইকেটে যাচ্ছি তখন দেখি ইনিংসের বাকি আছে মাত্র ১০-১৫ বল। তখন স্টাইকরেট ১৫০-২০০ রেখে খেলতে হয়। কিন্তু আমি তো আর বিগহিটার না কম বল খেলে অনেক বেশি রান করব। তারপরও যতটা সম্ভব ভালো করার জন্য আমি আমার দিক থেকে চেষ্টা করছি।

প্রশ্ন : ভারতের বিরুদ্ধে ম্যাচটি কি চ্যালেঞ্জ মনে হচ্ছে?

মিরাজ : বিশ্বকাপের প্রত্যেকটা ম্যাচই আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ। দল হিসেবে আমরা কিন্তু এখানে খুবই ভালো ক্রিকেট খেলছি। অন্য দলের দিকে দেখেন শ্রীলঙ্কা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ আরও বড় বড় দল কিন্তু আমাদের নিচে। আমরা কিন্তু এখন পয়েন্ট তালিকার ৫ নম্বরে। বড় চারটা দলের পরই আছি।

প্রশ্ন : চাপ মনে হচ্ছে কিনা?

মিরাজ : এখানে চাপের কিছু নেই। আমরা যেভাবে খেলছিলাম সেভাবেই খেলব। দুটো ম্যাচ আছে, জিততেই হবে এটা ভেবে বেশি চাপ নিতে চাই না। তবে স্বাভাবিক খেলাটা প্রদর্শন করে আগে যেভাবে ম্যাচ জিতেছি একই পরিকল্পনা থাকবে। ভাগ্য সহায় থাকলে আমরা অবশ্যই ভালো কিছু করব।

প্রশ্ন : ভারতের বিরুদ্ধে জয় কতটা জরুরি?

মিরাজ : ভারতের বিরুদ্ধে যদি আমরা জিততে পারি সেটা আমাদের জন্য অনেক বড় পাওয়া হবে। পরের স্টেপটা আমাদের জন্য বেশ সহজ হয়ে যাবে।


আপনার মন্তব্য