শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:৩৬

প্রথম টেস্ট শুরু ২২ ফেব্রুয়ারি

সালাউদ্দিনের তত্ত্বাবধানে অনুশীলনে মুমিনুলরা

ক্রীড়া প্রতিবেদক

সালাউদ্দিনের তত্ত্বাবধানে অনুশীলনে মুমিনুলরা

জিম্বাবুয়ে এখন ঢাকায়। পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলবে আফ্রিকান প্রতিনিধিরা। সিরিজকে সামনে রেখে এখনো স্কোয়াড ঘোষণা করেনি বিসিবি। আজকালের মধ্যেই দল ঘোষণা করবেন। রাওয়ালপিন্ডি টেস্ট খেলা অনেকেই বাদ পড়বেন। ফিরবেন অনেকেই। জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের অধিকাংশই এখন বিশ্রামে। কয়েকজন খেলছেন বিসিএলের তৃতীয় পর্ব। বিশ্রামে থাকা ক্রিকেটারদের মধ্যে গতকাল মিরপুর স্টেডিয়ামে অনুশীলন করেন তামিম ইকবাল, মুমিনুল হক সৌরভ ও মোহাম্মদ মিথুন। তিন ক্রিকেটাররা অনুশীলন করেন কোচ রাসেল ডমিঙ্গো ও পেস বোলিং কোচ ওটিস গিবসনের তত্ত্বাবধানে। সবার শেষে টাইগার অধিনায়ক নিবিড় প্রশিক্ষণ নেন মোহাম্মদ সালাউদ্দিনের উপস্থিতিতে। বঙ্গবন্ধু বিপিএলের কোচ সালাউদ্দিন প্রায় এক ঘণ্টা উপস্থিত থেকে মনোযোগ সহকারে অনুশীলন দেখেছেন মুমিনুলের। সমস্যাগুলো ধরে শুধরে দেওয়ার চেষ্টা করেছেন মাঠে উপস্থিত থেকে।

রাওয়ালপিন্ডি টেস্ট খেলতে যাওয়ার আগে বিসিএলের প্রথম পর্ব খেলে গিয়েছিলেন টাইগার ক্রিকেটাররা। ফর্মে থেকেই নেমেছিলেন লড়াইয়ে। কিন্তু পাকিস্তানি বোলারদের সাঁড়াশি আক্রমণে বিপর্যস্ত হয়ে সাজঘরে ফিরে আসেন দ্রুত। ফল ইনিংস হার। টানা আট টেস্ট হারের ধাক্কা সামলে জয়ে ফিরতে মরিয়া টাইগাররা। গতকাল অনুশীলনে বেশ সিরিয়াস মনে হয়েছে মুমিনুল, তামিম ও মিথুনকে। সকালে ঘণ্টাখানেক রানিং করার পর সেন্টার উইকেটে প্রায় ঘণ্টাখানেক করে ব্যাটিং করেছেন তামিম, মিথুন, মুমিনুল। এরপর স্লিপ ক্যাচিং করেছেন তিন ক্রিকেটার। কোনো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের আগে এমন অনুশীলন খুবই জরুরি বলেন তামিম, ‘ব্যক্তিগতভাবে অনুশীলন করাটা খুবই জরুরি। এই ধরনের অনুশীলন পারফরম্যান্সে অনেক কাজে লাগে।’ বিশ্বকাপ ক্রিকেটের পর অধিনায়ক হয়ে শ্রীলঙ্কা সফর করেন তামিম। কিন্তু হোয়াইটওয়াশ হয় দল। এরপর তিনি বিশ্রামে যান। পারিবারিক কারণে ভারত সফর করেননি দেশসেরা ওপেনার। বঙ্গবন্ধু বিপিএল দিয়ে ক্রিকেটে ফিরেন। খেলতে যান পাকিস্তানে। লাহোরে টি-২০ সিরিজে ভালো খেললেও রাওয়ারপিন্ডি টেস্টে ব্যর্থ হন পুরোপুরি। দুই ইনিংসে রান করেন ৩ ও ৩৪। অথচ ঢাকা যাওয়ার বিসিএলে খেলেছিলেন ৩৩৪ রানের দেশসেরা ইনিংস। মিথুন প্রথম ইনিংসে ৬৩ রান করলেও দ্বিতীয় ইনিংসে শূন্য করেন। গতকাল অনুশীলনের পর মিডিয়ার মুখোমুখিতে মিথুন বলেন, ‘রাওয়ালপিন্ডির উইকেট ছিল ব্যাটিং সহায়ক। কিন্তু আমরা পারিনি। আমরা সবাই অনুশীলনে সমস্যাগুলো নিয়ে কাজ করছি। আশা করছি আসন্ন টেস্টে ভালো করব।’

স্লিপ ফিল্ডিং শেষ করার পর প্রায় ঘণ্টাখানেক সেন্টার উইকেটে ব্যাটিং অনুশীলন করেন টাইগার অধিনায়ক মুমিনুল। উইকেটের পাশে দাঁড়িয়ে টাইগার অধিনায়কের ব্যাটিং দেখে সঙ্গে সঙ্গে সমস্যাগুলো জানাচ্ছিলেন সালাউদ্দিন এবং একই সঙ্গে শুধরেও দিচ্ছিলেন। কখনো কাভার ড্রাইভের পর হাত তালিতে প্রশংসা করেছেন। কখনো স্কয়ার কাটের পর। আবার কখনো অন ড্রাইভ কিংবা পুল শটে সন্তুষ্ট হতে না পেরে ব্যাটিং থামিয়ে শুধরে দিয়েছেন। এভাবেই দুপুর পর্যন্ত অনুশীলন করেছেন মুমিনুল, তামিম ও মিথুন।


আপনার মন্তব্য