শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২০ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৯ জানুয়ারি, ২০২১ ২৩:০৫

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরছেন টাইগাররা

ক্রীড়া প্রতিবেদক

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরছেন টাইগাররা

অবশেষে অপেক্ষার অবসান ঘটছে আজ। করোনা মহামারীর পর প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে মাঠে নামছেন টাইগাররা। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের মুখোমুখি হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথমটি অনুষ্ঠিত হচ্ছে। খেলা শুরু হবে বেলা সাড়ে ১১টায়।

এই ম্যাচ দিয়েই নিষেধাজ্ঞার পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রত্যাবর্তন হচ্ছে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের। অন্যদিকে ওয়ানডে অধিনায়ক হিসেবে অভিষেক হচ্ছে তামিম ইকবালের। গত ফেব্রুয়ারির পর আর কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেনি বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে সিরিজ খেলার কথা থাকলেও কোয়ারেন্টাইন নিয়ে জটিলতার কারণে বিসিবি শেষ পর্যন্ত সফরটি স্থগিত করে।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার ম্যাচটি জয় দিয়ে রাঙানোর পরিকল্পনা করেছেন বাংলাদেশের কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। কঠোর অনুশীলনের মাধ্যমে শিষ্যদের প্রস্তুতও করেছেন। যদিও প্রতিপক্ষ হিসেবে ‘তুলনামূলক দুর্বল’ প্রতিপক্ষকে পাচ্ছে বাংলাদেশ। কারণ ক্যারিবীয়দের নিয়মিত একাদশের অধিকাংশ ক্রিকেটার করোনার অজুহাতে আসেননি। তারপরও প্রতিপক্ষকে ‘হালকা’ করে দেখতে রাজি নন কোচ। বরং শিষ্যদের সতর্ক থাকার ইঙ্গিত দিয়ে ডমিঙ্গো বলেছেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজের তরুণরা নিজেদের প্রমাণের জন্য খেলবে। আমাদের আত্মতুষ্টিতে ভোগার কিছু নেই।’

ওয়ানডেতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ভয়েরও কিছু নেই। ‘টোটাল’ পরিসংখ্যানে (উইন্ডিজের জয় ২১, বাংলাদেশ ১৫) বাংলাদেশ খানিকটা পিছিয়ে থাকলেও শেষ ১০ ওয়ানডের মধ্যে ৮টিতেই জিতেছেন টাইগাররা। এখন তামিমদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ নিজেদের গুছিয়ে নিয়ে বাইশগজে ঠিকঠাক পারফরম্যান্স প্রদর্শন করা।

এই ম্যাচ দিয়ে সাকিব ফিরলেও তাকে খেলতে হবে ব্যাটিং অর্ডারের চার নম্বরে। কারণ সাকিবের ‘প্রিয় তিন নম্বর’ পজিশনে টিম ম্যানেজমেন্ট খেলাতে চাচ্ছে রানের মধ্যে থাকা পরীক্ষিত নাজমুল হোসেন শান্তকে। এর পেছনে যুক্তি, ব্যাটিং অর্ডারে কিছুটা পিছিয়ে গেলে সাকিব খানিকটা রিল্যাক্সমুডে খেলতে পারবেন। সাকিবকে নিয়ে অধিনায়ক তামিম ইকবালের ভাষ্য, ‘আমরা সবাই জানি, সে তিন নম্বরে কত ভালো করেছে। তার রেকর্ডই তার হয়ে কথা বলছে। এ ব্যাপারে আমরা সবাই সজাগও। যদি কোনো সময় তিন নম্বরে ব্যাট করতে চায়, সেখানে ফিরে যেতে পারবে।’

উদ্বোধনী জুটিতে তামিমের সঙ্গে থাকবেন লিটন দাস। পাঁচে মিস্টার ডিপেন্ডেবল মুশফিকুর রহিম, ছয়ে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, সাতে খেলবেন সৌম্য সরকার। এক সময় জাতীয় দলে ওপেন করলেও প্রয়োজনে ‘ফিনিশার’ হিসেবে তাকে দেখা হচ্ছে।

বোলিংয়ে তিন পেসারেই ভরসা ডমিঙ্গোর। সেক্ষেত্রে অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফুদ্দিনের সঙ্গে দুই অভিজ্ঞ রুবেল হোসেন ও মুস্তাফিজুর রহমান। পার্টটাইম পেসার হিসেবে তৈরি রাখা হয়েছে সৌম্যকে। তবে কোনো কারণে সাইফুদ্দিনকে যদি শতভাগ ফিট মনে না হয় সেক্ষেত্রে তরুণ পেসার হাসান মাহমুদের অভিষেক হওয়ার সম্ভাবনা আছে!

 


আপনার মন্তব্য