Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২৬ এপ্রিল, ২০১৯ ১৭:৪৫

লাবণ্যকে বহনকারী সেই মোটরসাইকেল চালক আটক

অনলাইন ডেস্ক

লাবণ্যকে বহনকারী সেই মোটরসাইকেল চালক আটক

রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী ফাহমিদা হক লাবণ্যকে বহনকারী উবার মোটরসাইকেল চালক সুমনকে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে তাকে মোটরসাইকেলসহ আটক করে পুলিশ।  

লাবণ্য ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে (সিএসই) তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী। তার বাবার নাম ইমদাদুল হক। তারা শ্যামলীর ৩ নম্বর রোডের ৩৩ নম্বর বাসায় থাকতেন।

তেজগাঁও বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার বিপ্লব কুমার সরকার জানান, মোহাম্মদপুর থানাধীন নবীনগর হাউজিং এর ২ নং রোডের ২৫ নং বাসার ষষ্ঠ তলা থেকে উবার বাইক চালক মো. সুমন হোসেনকে আটক করা হয়। এসময় তার ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করা হয় (ঢাকা মেট্রো হ ৩৬-২৩৫৮)।

আটককৃত উবার চালক সুমন জানায়, ‘ঘটনার দিন সকালে কলেজ গেটে অবস্থানকালে একজন উবার কলার (ফাহমিদা হক লাবন্য) এর কল পেয়ে সকাল ১০টা ৩৬মিনিটে সুমন তাকে ফোন করেন। লাবন্য খিলগাঁও ছায়াবিথি মসজিদের সামনে যেতে চান জানিয়ে সুমনকে শ্যামলী ৩ নং রোডের ৩১ নং বাসার সামনে যেতে বলেন। লাবন্য শ্যামলী ৩ নং রোডের ৩১ নং বাসার সামনে সুমনের বাইকে উঠেন।

সুমন আরো জানান, জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের কাছাকাছি পৌঁছামাত্র এক পথচারীকে বাইকের সামনে দৌঁড়ে রাস্তা পার হতে দেখে সুমন বাইকে ব্রেক করেন। ফলে লাবন্য মোটর বাইকের ডানদিকে পড়ে যান। এ সময় একটি কাভার্ড ভ্যান পেছন দিকে ধাক্কা তাকে দেয়।

পুলিশ জানায়, এ ঘটনায় শেরেবাংলা নগর থানায় মামলা হয়েছে। বাইক চালক সুমনের বক্তব্যের সত্যতা যাচাইয়ের পাশাপাশি বাইক চালক হিসেবে তার অবহেলা বা ইচ্ছাকৃত ভুল ছিল কিনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ঘাতক কাভার্ড ভ্যানটির চালককে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটের সামনে বিশ্ববিদ্যায়ে যাওয়ার সময় মোটরসাইকেলে থাকা অবস্থায় কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় নিহত হন লাবণ্য।

বিডি প্রতিদিন/হিমেল

 


আপনার মন্তব্য