শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০৮:১২
আপডেট : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১১:৪৪

প্রেমে রাজি না হওয়ায় সাভারে গভীর রাতে স্কুলছাত্রীকে হত্যা!

সাভার প্রতিনিধি:

প্রেমে রাজি না হওয়ায় সাভারে গভীর রাতে স্কুলছাত্রীকে হত্যা!

প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়া সাভারে হাসপাতাল থেকে ফেরার পথে নিলা রায় (১৪) নামে এক স্কুলছাত্রীকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে বখাটে এক যুবকের বিরুদ্ধে। রবিবার গভীর রাতে সাভার মডেল থানাধীন পাল পাড়া মহল্লার গার্লস স্কুল রোডে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত নিলা মানিকগঞ্জ জেলার বালিরটেক এলাকার নারায়ন রায়ের মেয়ে। তিনি তার পরিবার নিয়ে পৌর এলাকার কাজী মোকমা পাড়া একটি বাড়ীতে ভাড়া থেকে স্থানীয় অ্যাসেড স্কুল নামে একটি বিদ্যালয়ে দশম শ্রেণীতে লেখাপড়া করতেন।

বখাটে ওই ঘাতক যুবকের নাম মিজানুর রহমান চৌধুরী। সে একই এলাকার বাসিন্দা।

পুলিশ ও প্রত্যাক্ষদর্শীরা জানায়, দীর্ঘদিন ধরে বখাটে মিজানুর প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল নীলাকে। প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখান করায় রাতের দিকে স্থানীয় এক হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফেরার পথে নীলা ও তার ভাই অলকের গতিরোধ করে বখাটে ওই যুবক। পরে তার ভাইকে ভয়ভীতি দেখিয়ে বাড়ি পাঠিয়ে দিয়ে কথার বাহানায় নির্জন সড়কে নীলার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায় মিজানুর। এসময় স্থানীয়রা নিলাকে উদ্ধার করে এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

নিহতের ভাই অলকের দাবি, অলকের সঙ্গে থাকা বোন নিলাকে কথা বলার বাহানায় রিকশা থেকে নামায় মিজানুর নামে যুবক। পরে সে বাসার দিকে গিয়ে আবার বোনের জন্য ফিরে আসে। এসময় হঠাৎ স্থানীয়দের চিৎকার শুনতে পায়। কাছে গিয়ে দেখতে পায় তার বোন নিলাকে রক্তাক্ত অবস্থায় রিকশায় করে স্থানীয়রা হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছে।

এনাম মেডিকেল হাসপাতাল সূত্র জানা গেছে, নীলাকে ৫/৬ বার ছুরি দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। তার মধ্যে ঘারে, মুখে ও পেটে ছুরি দিয়ে আঘাত করা হয়েছে।

এ বিষয়ে সাভার থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাইফুল ইসলাম বলেন, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকার সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। সেই সাথে সাভার থানায় একটি মামলারও প্রক্রিয়া চলছে। প্রেম নাকি অন্য কোন বিষয়? সব মাথায় রেখে তদন্ত করা হচ্ছে। তবে পরিবার সঙ্গে কথা বলে প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে প্রেমে ব্যর্থ হয়ে হত্যাকাণ্ড ঘটতে পারে। অভিযুক্তকে আটকেরর পর মূল ঘটনা জানা যাবে। 

বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর