শিরোনাম
প্রকাশ : ২৩ এপ্রিল, ২০২১ ১৫:২৬
আপডেট : ২৩ এপ্রিল, ২০২১ ১৬:২৬
প্রিন্ট করুন printer

ভবনটিতে কেমিক্যাল গোডাউনের অনুমোদন ছিল না

অনলাইন ডেস্ক

ভবনটিতে কেমিক্যাল গোডাউনের অনুমোদন ছিল না
কেমিক্যাল গোডাউনের লাইসেন্স দেয়নি ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স অধিদফতর

রাজধানীর পুরান ঢাকার আরমানিটোলায় একটি ছয়তলা ভবনের নিচতলায় কেমিক্যাল গোডাউনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এ পর্যন্ত ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। নিহত ৪ জনের মধ্যে ওই ভবনে ৩ জনের ও হাসপাতালে ১ জনের মৃত্যু হয়।

হাজী মুসা ম্যানসন নামের এই ভবনে থাকা কেমিক্যাল গোডাউনের লাইসেন্স নেই। তাদের লাইসেন্স দেয়নি ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স অধিদফতর। তবে তারা সিটি করপোরেশন থেকে ট্রেড লাইসেন্স নিয়েছিলেন কি না, তা নিশ্চিত করে জানেন না ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা।

আজ শুক্রবার সকালে ফায়ার সার্ভিসের ঢাকা বিভাগের উপ-পরিচালক দেবাশীষ বর্ধণ সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

দেবাশীষ বর্ধণ বলেন, ‘হাজী মুসা ম্যানসনে প্রচুর পরিমাণে কেমিক্যাল আছে। এগুলো অবৈধ কেমিক্যালের দোকান। আমার জানামতে ফায়ার সার্ভিস এদের কোনো ধরনের লাইসেন্স দেয়নি। তবে আমি জানি না, সিটি করপোরেশন তাদের ট্রেড লাইসেন্স দিয়েছে কি না।’

‘সম্পূর্ণ অবৈধভাবে এ কেমিক্যাল গোডাউন গড়ে উঠেছে। নিচতলায় কেমিক্যাল গোডাউন আর উপরে মানুষের বসবাস, এর মানে অগ্নিকুণ্ডে বসবাস করা ছাড়া আর কিছুই না। এজন্য যারা দায়ী তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।’

আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘এটা তদন্তের পর জানা যাবে, কীভাবে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে। ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স অধিদফতরের নিয়ম অনুযায়ী প্রতিটি অগ্নিকাণ্ডের পর একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। তদন্ত কমিটি তদন্ত করে বলতে পারবে আগুনের সূত্রপাত কীভাবে হয়েছে।’ 

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সোয়া ৩টার দিকে হাজী মুসা ম্যানশন নামের ওই ভবনটির নিচতলায় আগুন লাগে। সকাল ৯টার পর আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসে। ফায়ার সার্ভিসের ১৯টি ইউনিট প্রায় ৬ ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

আহতদের শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।  

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ


 


 

 

এই বিভাগের আরও খবর