শিরোনাম
প্রকাশ : ৭ মে, ২০২১ ২২:১৪
প্রিন্ট করুন printer

রংপুরে নৈশ প্রহরীদের ঈদ নিয়ে দুশ্চিন্তা

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর

রংপুরে নৈশ প্রহরীদের ঈদ নিয়ে দুশ্চিন্তা
Google News

রংপুরের জাহাজ কোম্পানী মোড় থেকে ফায়ার সার্ভিস মোড় সড়কের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোতে নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করছেন ১৫ নৈশ প্রহরী। গত বছর করোনাকালীন সময়েও সরকারি কোনো ভাতা পাননি তারা।

এবারও ভাগ্যে জুটেনি কোনো সাহায্য বা প্রণোদনা। আর্থিক বা খাবারের সহযোগিতা যে কোনো একটি পেলেই খুশি নৈশ প্রহরীরা। কিন্তু তাও জুটছে না তাদের কপালে। ফলে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে এবারের ঈদে দুশ্চিন্তা বেড়েছে। একই অবস্থা রংপুর নগরীর বিভিন্ন মার্কেট, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত নৈশ প্রহরীদের। তাদের সহায়তায় এখন পর্যন্ত কেউ এগিয়ে আসেননি।

সড়কে দায়িত্ব পালনকারী নৈশ প্রহরী মো. ঈশা ও আবদুল মালেক জানান, আমরা নগরীর প্রাণকেন্দ্র জাহাজ কোম্পানী থেকে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স মোড়সহ বিভন্ন এলাকায় দোকান, মার্কেট ও অলিগলিতে দায়িত্ব পালন করে আসছি। দায়িত্ব পালন অব্যাহত থাকলেও করোনার কারণে সবার আয় কমে যাওয়ায় আমাদের মাসিক খরচ কমে গেছে। অনেক দোকান মাসের অর্ধেক সময় বন্ধ ছিল। করোনায় সরকারের দেয়া কোনো সাহায্য আমরা পাইনি। রমজান শেষে ঈদের আগে আমাদের আশা ছিল কিছু হয়তো পাবো। সেখানেও আমরা ফাঁকা। রংপুরের জেলা প্রশাসন রিক্সা চালক, জুতা কারিগর, হিজরা সম্প্রদায়দের বিভিন্ন সাহায্য দিলেও বিভিন্ন সড়কসহ অলিগলিতে দায়িত্বরত নৈশ প্রহরীদের কেউ খোঁজ নিলেন না। আমাদের এলাকার কাউন্সিলররাও সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়নি।

মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক তুষার কান্তি মণ্ডল বলেন, নৈশ প্রহরীদের গত বছর করোনায় আমি সাহায্য করেছিলাম। এবার তারা কোনো সাহায্য না পাওয়ার বিষয়টি আমাকে জানিয়েছেন। তাদের পরিবারে ঈদের আনন্দ বজায় রাখতে বিষয়টি নিয়ে আমি চেষ্টা করছি। 

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন

এই বিভাগের আরও খবর