Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ৯ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৮ জানুয়ারি, ২০১৯ ২৩:০৭

সংকটে খুলনা শিপইয়ার্ড

ফের আটকে গেছে সড়ক প্রশস্তকরণ প্রকল্প ♦ দৃশ্যমান অগ্রগতিও নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা

সংকটে খুলনা শিপইয়ার্ড

জমি অধিগ্রহণ, ডিসিআর (বন্দোবস্ত) ও অবৈধ দখলের কারণে ফের আটকে গেছে খুলনা শিপইয়ার্ড সড়ক প্রশস্তকরণ প্রকল্পের কাজ। নতুন বছরের শুরুতে সড়ক নির্মাণের কথা থাকলেও দৃশ্যমান অগ্রগতি হয়নি। এদিকে সংকট মোকাবিলায় আজ সরেজমিনে প্রকল্পের কাজ দেখতে যাচ্ছে খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (কেডিএ), খুলনা সিটি করপোরেশন ও জেলা প্রশাসনের প্রতিনিধিরা। এর আগে ত্রিপক্ষীয় বৈঠকে দ্রুততম সময়ে সড়ক প্রশস্তকরণ কাজ বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত হয়। খুলনা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন বলেন, প্রকল্পের জমি অধিগ্রহণ হলেও কিছু অবৈধ দখলদার সেখানে আছে। এ ছাড়া কিছু খাস জমিতে অবৈধভাবে স্থাপনা করে হয়েছে। তারা এখন ক্ষতিপূরণ দাবি করছে। এটা নিয়ে কেসিসি, কেডিএ ও জেলা প্রশাসনের সমন্বয় বৈঠক হয়েছে। দ্রুততম সময়ে প্রতিবন্ধকতা দূর করা হবে।  এদিকে খুলনা সিটি মেয়র তালুকদার আবদুল খালেক বলেছেন, প্রকল্পের আওতায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের ক্ষতিপূরণ দ্রুত পরিশোধ করতে হবে। তিনি বলেন, এ সড়ক নিয়ে নগরবাসীর অনেক প্রত্যাশা। তাই খুব দ্রুত সড়ক নির্মাণ কাজ শেষ করতে হবে। জানা যায়, ২০১৩ সালে সরকারি অর্থায়নে ৯৮ কোটি ৯০ লাখ টাকা ব্যয়ে খুলনা শিপইয়ার্ড সড়ক প্রশস্তকরণ ও উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করে কেডিএ। প্রকল্পের আওতায় প্রশস্তকরণের মাধ্যমে সড়ক চার লেনে উন্নীতকরণ, ডিভাইডার, লাইট ও কালভার্ট নির্মাণে উদ্যোগ নেওয়া হয়। কিন্তু নানা জটিলতায় প্রকল্প মেয়াদ ও প্রকল্প ব্যয় বেড়ে দাঁড়ায় ১২৬ কোটি টাকা। কেডিএর নির্বাহী প্রকৌশলী ও সড়ক প্রশস্তকরণ প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. আরমান হোসেন বলেন, জমি অধিগ্রহণ, ডিসিআর ও অবৈধ দখলের কারণে সড়ক নির্মাণ কাজ বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। তবে সংকট মোকাবিলা করে শিগগিরই প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে।


আপনার মন্তব্য