শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ৬ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৫ জানুয়ারি, ২০২০ ২৩:৩৭

চালু হলো ‘আন্ডারগ্রাউন্ড’ বিদ্যুৎ সঞ্চালন

তারের জঞ্জালমুক্ত সিলেট নগরী গড়ার উদ্যোগ

শাহ্ দিদার আলম নবেল, সিলেট

চালু হলো ‘আন্ডারগ্রাউন্ড’ বিদ্যুৎ সঞ্চালন

সিলেট শহরে শুরু হলো ‘আন্ডারগ্রাউন্ড’ বিদ্যুৎ সঞ্চালন। সৌন্দর্যবৃদ্ধি ও তারের জঞ্জালমুক্ত নগরী গড়ার লক্ষ্যে পরীক্ষামূলকভাবে চালু হয়েছে এ প্রকল্প। চৌহাট্টা-আম্বরখানা মূল সড়ক থেকে হযরত শাহজালাল (রহ.) মাজার পর্যন্ত সড়কের উভয় পাশের বিদ্যুৎ লাইন গতকাল খুলে ফেলা হয়েছে। আন্ডারগ্রাউন্ড লাইন দিয়ে শুরু হয়েছে এলাকায় বিদ্যুৎ সঞ্চালন। এ প্রকল্প থেকে সুফল পাওয়া গেলে পুরো নগরীর বিদ্যুৎ ও অন্যান্য সেবাপ্রদানকারী সংস্থার ক্যাবল আন্ডারগ্রাউন্ডে নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে নগরভবন কর্তৃপক্ষ। গতকাল হযরত শাহজালাল (রহ.) মাজার এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, মাজারের প্রধান ফটকের সামনের রাস্তার উভয় পাশের বিদ্যুতের খুঁটি ও ঝুলন্ত তার খুলে ফেলা হচ্ছে। আন্ডারগ্রাউন্ড সঞ্চালন লাইন দিয়ে এলাকার বাসা-বাড়ি, মার্কেট ও দোকানপাটসহ বিভিন্ন স্থাপনায় সরবরাহ করা হচ্ছে বিদ্যুৎ। সকাল থেকে আন্ডারগ্রাউন্ড লাইন দিয়ে বিদ্যুৎ সঞ্চালন শুরু হলেও সারা দিন কোনো সমস্যায় পড়তে হয়নি গ্রাহকদের। এ ছাড়া রাষ্ট্রপতির সিলেট সফর শেষে আম্বরখানা ইলেকট্রিক সাপ্লাই অফিস থেকে কোর্ট পয়েন্ট পর্যন্ত ‘আন্ডারগ্রাউন্ড’ বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইন চালু করা হবে বলে জানিয়েছে নগরভবন সংশ্লিষ্টরা।

‘আন্ডারগ্রাউন্ড’ বিদ্যুৎ সঞ্চালন শুরু হওয়ায় খুশি এলাকার বাসিন্দা ও ব্যবসায়ীরা। মাজার এলাকার ব্যবসায়ী খালেদ হোসেইন জানান, বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইন ‘আন্ডারগ্রাউন্ডে’ নেওয়ায় দুর্ঘটনার আশঙ্কা কমেছে।

সিটি করপোরেশন সূত্র জানায়, সিলেট নগরীকে তারের জঞ্জালমুক্ত করতে ‘আন্ডারগ্রাউন্ড’ সঞ্চালন লাইন চালু করার লক্ষ্যে একটি পাইলট প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। প্রকল্পের আওতায় গত বছর ফেব্রুয়ারি থেকে আম্বরখানা ইলেকট্রিক সাপ্লাই এলাকা থেকে চৌহাট্টা, জিন্দাবাজার, কোর্ট পয়েন্ট ও সিটি পয়েন্ট হয়ে সার্কিট হাউস পর্যন্ত সড়কের সব বৈদ্যুতিক ক্যাবল আন্ডারগ্রাউন্ডে নেওয়ার কাজ শুরু হয়। প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয় ৫৫ কোটি টাকা। প্রকল্পের কাজ ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে। গতকাল মাজার সড়কের উভয় পাশের স্থাপনাগুলোতে আন্ডারগ্রাউন্ড লাইনের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়।

পর্যায়ক্রমে পুরো নগরীর বিদ্যুৎ, ডিস, ইন্টারনেট ও টেলিফোনের লাইন ‘আন্ডারগ্রাউন্ডে’ নিয়ে যাওয়া হবে।

সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী জানান, ঝুলন্ত তারের জঞ্জালমুক্ত নগরী গড়ার লক্ষ্যে আন্ডারগ্রাউন্ড সঞ্চালন লাইন প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। গতকাল মাজার এলাকায় আন্ডারগ্রাউন্ড লাইন দিয়ে বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হয়েছে। ৮ জানুয়ারি শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে রাষ্ট্রপতি ফিরে যাওয়ার পর আম্বরখানা ইলেকট্রিক সাপ্লাই অফিস থেকে কোর্ট পয়েন্ট পর্যন্ত আন্ডারগ্রাউন্ড লাইন দিয়ে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হবে। পর্যায়ক্রমে নগরীর সব ধরনের সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের তার আন্ডারগ্রাউন্ডে নেওয়া হবে। এতে দুর্ঘটনা কমবে, বাড়বে নগরীর সৌন্দর্য। বিদ্যুতের খুঁটি সরানো হলে রাস্তাও প্রশস্ত হবে। এতে যানজটও কমবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর