শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০১:৪১

সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করতেই পিলখানা হত্যাকান্ড

জাতীয় প্রেস ক্লাবে আলোচনা সভা

নিজস্ব প্রতিবেদক

সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করতেই পিলখানা হত্যাকান্ড

মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষশক্তির সরকার ক্ষমতায় আসার কিছুদিন পরই ক্ষমতাচ্যুত করতে পিলখানা হত্যাকান্ড ঘটানো হয়। দাবি-দাওয়া বড় কথা নয়, সরকারকে বেকায়দায় ফেলতেই পরিকল্পিতভাবে এ হত্যাকান্ড হয়। গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে বাংলাদেশ অনলাইন অ্যাকটিভিস্ট ফোরাম আয়োজিত ‘পিলখানা হত্যাকান্ড, হত্যাকান্ডের বিচার ও আমাদের অনুভূতি’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

সভায় বক্তব্য দেন সাবেক খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি মুহম্মদ শফিকুর রহমান এমপি, বিচারপতি (অব.) এ এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক, সাবেক আইজিপি এ কে এম শহীদুল হক, নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল (অব.) আবদুর রশীদ, জিটিভির এডিটর ইন চিফ সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা প্রমুখ।

অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেন, পিলখানা হত্যাকান্ড একটি হৃদয়বিদারক ঘটনা। একাত্তরের চেয়ে পৈশাচিকতা হয়েছে পিলখানায়। যারা পিলখানা হত্যাকা-ের নেপথ্যের নায়ক তাদেরও চিহ্নিত করে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করাতে হবে।

এ এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক বলেন, পিলখানা হত্যাকান্ডের বিচার হয়েছে এটা আইনের শাসনের পক্ষে বিরাট পদক্ষেপ। বিচার বিভাগের সক্ষমতার বড় উদাহরণ এটি। কিন্তু জাতির আক্ষেপ, যারা এ ঘটনার নেপথ্যের কারিগর তাদের বিচার হয়নি। এ কে এম শহীদুল হক বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষশক্তি ক্ষমতায় আসার কারণেই তখন নানা ষড়যন্ত্র শুরু হয়। মেজর জেনারেল (অব.) আবদুর রশীদ বলেন, এ হত্যাকা- ছিল রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আয়োজক সংগঠনের সভাপতি কবীর চৌধুরী তন্ময়।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর