শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৭ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৭ জুলাই, ২০২০ ০০:১৩

ডেঙ্গুবিরোধী চিরুনি অভিযানে মিলেছে এডিসের লার্ভা

২ লাখ ২২ হাজার ৮০০ টাকা জরিমানা ডিএনসিসির

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) পরিচ্ছন্নতা অভিযানে এডিস মশার লার্ভা পাওয়ায় ১৮টি মামলায় ২ লাখ ২২ হাজার ৮০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। গতকাল অভিযানের তৃতীয় দিনে ১৩ হাজার ৬৮৮টি বাড়ি, স্থাপনা, নির্মাণাধীন ভবন পরিদর্শন করে ৮৫টিতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া যায়। 

ডিএনসিসি সূত্রে জানা যায়, সিটি করপোরেশনের আওতাধীন ৭ হাজার ৯০৯টি বাড়ি ও স্থাপনায় এডিস মশা বংশবিস্তার উপযোগী পরিবেশ পাওয়া গেছে। উত্তরা অঞ্চল-১ এর আওতায় ১ হাজার ৩০১টি বাড়ি ও স্থাপনা পরিদর্শন করে ১৪টিতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া যায়। এ ছাড়া ১ হাজার ৪৫টি বাড়ি ও স্থাপনায় এডিস মশার প্রজনন উপযোগী পরিবেশ পাওয়া যায়। মিরপুর অঞ্চল-২ এর আওতায় ২ হাজার ৯৪৫টি বাড়ি ও স্থাপনা পরিদর্শন করে পাঁচটিতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া গেছে। মহাখালী অঞ্চল-৩ এর আওতায় ১ হাজার ৬৯৯টি বাড়ি পরিদর্শন করে ৩৪টিতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া যায়। চারটি প্রতিষ্ঠান ও বাড়িকে ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। অন্যান্য অঞ্চলেও ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হয়েছে। মহাখালীতে পারটেক্স গ্রুপের কার্যালয়ে (ভিতরে একটি গরুর খামারও আছে) এডিস মশার লার্ভা পাওয়ায় এর আগে দুবার মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জরিমানা করা হয়েছিল। তৃতীয় বার একই স্থানে এডিসের লার্ভা পাওয়ায় গতকাল ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জুলকার নায়ন এক লাখ টাকা জরিমানা করেন। মিরপুর ১০ এলাকায় ১ হাজার ৪৯৮টি বাড়ি ও স্থাপনা পরিদর্শন করে তিনটিতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া গেছে। দুটি মামলায় ১৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

কারওয়ান বাজার, অঞ্চল-৫ এর আওতায় ২ হাজার ৩৩৯টি বাড়ি পরিদর্শন করে ১০টিতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া যায়। হরিরামপুর, অঞ্চল-৬ এর আওতায় ১ হাজার ৭২৫টি বাড়ি ও স্থাপনা পরিদর্শন করে সাতটিতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া গেছে। দক্ষিণখান অঞ্চল-৭ এর আওতায় ২০২টি বাড়ি ও স্থাপনা পরিদর্শন করে একটিতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া গেছে। উত্তরখান অঞ্চল-৮ এর আওতায় ৭১৮টি বাড়ি পরিদর্শন করে চারটি স্থাপনায় এডিস মশার লার্ভা পাওয়া যায়। এ সময় ৮টি মামলায় ৫ হাজার ৩০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

ভাটারা অঞ্চল-৯ এর আওতায় ৪৮৪টি বাড়ি পরিদর্শন করে চারটিতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া যায়। এ সময় ভ্রাম্যমাণ মাধ্যমে একটি মামলায় ২ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। সাঁতারকুল অঞ্চল-১০ এর আওতায় ৭৭৭টি বাড়ি পরিদর্শন করে তিনটিতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া গেছে। গত তিন দিনে ৩৯ হাজার ৬০৬টি বাড়ি পরিদর্শন করে ২৭৫টিতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া যায়। ২৪ হাজার ৪৬৭টিতে এডিস মশার প্রজনন উপযোগী পরিবেশ পাওয়া গেছে। এই তিন দিনে ছয় লাখ ৭৫ হাজার ৭০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর