শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৯ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ মার্চ, ২০২১ ২৩:১৩

ম্যাজিস্ট্রেট দেখলেই মাস্ক মুখে

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

‘ম্যাজিস্ট্রেট আসছেন জরিমানা করবেন, তাড়াতাড়ি মাস্ক পরেন’-এমন কথায় পাশে দাঁড়িয়ে থাকা এক যুবক দ্রুত প্যান্টের পকেট থেকে মাস্ক বের করে পরলেন। ম্যাজিস্ট্রেট চলে যাওয়ার পর মাস্ক আবার পকেটে। ম্যাজিস্ট্রেট দেখলে অনেকেই মাস্ক পরছেন। গতকাল সকালে নগরীর সাহেববাজার, জিরোপয়েন্ট, আরডিএ মার্কেট এলাকায় দেখা যায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান। যারা মাস্ক ব্যবহার করছেন না তাদের সচেতন করা হচ্ছে। এসময় মাস্ক বিতরণ করতে দেখা গেছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, মাস্ক পরা নিয়ে মানুষের মাঝে এক ধরনের উদাসীনতা লক্ষ্য করা গেছে। অনেকেই বলছেন, মাস্ক তো অনেক দিন ধরে পরিনি, কিছু তো হয়নি। আবার এক শ্রেণির মানুষের সঙ্গে মাস্ক আছে, তারা পরছেন না। আবদুর রাজ্জাক নামের এক ব্যক্তি বলেন, করোনা সংক্রমণ রোধে মাস্ক পরা জরুরি। কিন্তু বর্তমান অবস্থায় বেশির ভাগ মানুষ মাস্ক পরছে না। এতে নিজেও ঝুঁকিতে থাকছে, অন্যকেও ঝুঁকিতে ফেলছে। সেই জায়গা থেকে সবারই নিজ ও নিজের পরিবারের কথা ভেবে মাস্ক পরা জরুরি।

রবিউল ইসলাম বলেন, শহরে অল্প মানুষ মাস্ক পরছে। গ্রামের হাট-বাজারগুলোতে বেশিরভাগ মানুষ মাস্ক পরছে না। সেখানে মাস্ক পরে থাকলে যেন নিজেরই লজ্জা লাগে। মাস্ক পরার বিষয়ে প্রশাসনকে আরও কঠোর হতে হবে।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নেতৃত্ব দেওয়া অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) আবু আসলাম বলেন, এখন মানুষকে সচেতন করা হচ্ছে। যারা মাস্ক কিনতে পারছেন না, তাদের দেওয়া হচ্ছে। শিগগিরই আইনপ্রয়োগ করা হবে। এছাড়া কয়েকটি দোকানে ‘নো মাস্ক, নো সার্ভিস’- সাইনবোর্ড না থাকায় তাদের জরিমানা করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর