শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২৯ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৮ মার্চ, ২০২১ ২৩:৪১

সারা দেশে আওয়ামী লীগের হরতালবিরোধী মিছিল

নিজস্ব প্রতিবেদক

সারা দেশে আওয়ামী লীগের হরতালবিরোধী মিছিল
হরতালের প্রতিবাদে রাজশাহীতে আওয়ামী লীগের মিছিল -বাংলাদেশ প্রতিদিন

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের ডাকা হরতাল ও তান্ডবের প্রতিবাদে রাজধানীসহ সারা দেশে মিছিল-সমাবেশ করেছে আওয়ামী লীগ। সকাল থেকেই রাজধানীর প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে শক্ত অবস্থান নেন দলের সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

বঙ্গবন্ধু এভিনিউর কেন্দ্রীয় কার্যালয়, ফার্মগেট, মতিঝিল, মিরপুর-১ ও ১০ নম্বর চত্বর, পুরান ঢাকা, যাত্রাবাড়ী, ধোলাইপাড়সহ বিভিন্ন এলাকায় অবস্থান নেন আওয়ামী লীগ, যুবলীগসহ সহযোগী সংগঠনের নেতারা। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে গুলিস্তান, পল্টন, বায়তুল মোকাররম এলাকায় মিছিল ও সমাবেশ করে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ। ঢাকা মহানগর দক্ষিণের একটি মিছিল বঙ্গবন্ধু এভিনিউ থেকে পল্টন বায়তুল মোকাররম, স্টেডিয়াম হয়ে আবার বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে সমাবেশ করেন নেতা-কর্মীরা। ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সহসভাপতি রুহুল আমিন রুহুল এমপির সভাপতিত্বে এবং যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোর্শেদ হোসেন কামালের সঞ্চালনায় মহানগর নেতাদের মধ্যে সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির, দক্ষিণের নেতা ডা. দিলীপ রায়, মহিউদ্দিন মহি, গোলাম আশরাফ তালুকদার, আকতার হোসেন, এফ এম শরীফুল ইসলাম, শহিদুল ইসলাম পল, রিয়াজ উদ্দিন রিয়াজ, অ্যাডভোকেট জগলুল কবিরসহ দক্ষিণের বিভিন্ন থানা ও ওয়ার্ড নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। দুপুরের দিকে মতিঝিল এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করে স্থানীয় আওয়ামী লীগ। মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আশরাফ তালুকদারের নেতৃত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মজিবুর রহমান হেলাল, আমিনুল ইসলাম শামীম প্রমুখ। রাজধানীর ধোলাইপাড়ে একটি মিছিলের নেতৃত্ব দেন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবু এবং ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক তারিক সাঈদ। মিছিল শেষে অসুস্থ হয়ে পড়েন তারিক সাঈদ। মিছিলটি ধোলাইপাড়, জুরাইন হয়ে বিভিন্ন স্থান প্রদক্ষিণ করে। ৫৯ নম্বর কাউন্সিলর আকাশ কুমার ভৌমিকের নেতৃত্বে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীরা হরতালবিরোধী মিছিল করেন ধোলাইপাড়ে।  রাজধানীর প্রায় ২০টি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে অবস্থান নেন যুবলীগের নেতা-কর্মীরা। বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আশপাশের (৯ নম্বর, ১৩ নম্বর, ৩৯ নম্বর ওয়ার্ড) নেতা-কর্মীদের নিয়ে সকাল থেকেই অবস্থান নেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের নেতারা। এতে যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিলের নেতৃত্বে সহস্রাধিক নেতা-কর্মীর বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি জিরো পয়েন্ট ঘুরে আসার সময় হেফাজতের নেতা-কর্মীদের বিক্ষোভ মিছিলের সম্মুখে পড়ে।

এ সময় যুবলীগের নেতা-কর্মীরা ধাওয়া দিলে হেফাজতের কর্মীরা দৈনিক বাংলা মোড় হয়ে ফকিরাপুলের দিকে খন্ড খন্ড হয়ে পালিয়ে যায়। মিছিলে অংশ নেন যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাজ্জাদ হায়দার চৌধুরী, তাজ উদ্দিন আহমদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী মাজহারুল ইসলাম, ডা. হেলাল উদ্দিন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাঈন উদ্দিন রানা, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রেজাসহ কেন্দ্রীয় ও মহানগর নেতারা। শাহবাগে হরতালবিরোধী কর্মকান্ড দেখা গেছে যুবলীগের। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাংগঠনিক সম্পাদক মো. সাইফুর রহমান সোহাগ, সংগঠনের নেতা সামসুল কবির রাহাত, এন আই আহমেদ সৈকত, এনায়েত, মহানগরের এবাদুল হক সবুজ প্রমুখ।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে ছাত্রলীগ। কেন্দ্রীয় সভাপতি নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত দাস ও সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনের নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় ও বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের হাজার হাজার নেতা-কর্মী এতে অংশ নেন। একইভাবে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান ও সাধারণ সম্পাদক জুবায়ের আহমেদ এবং উত্তর ছাত্রলীগের সভাপতি ইব্রাহিম হোসেন ও সাধারণ হৃদয়ের নেতৃত্বে বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ ও সমাবেশ করেন ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা।

ফার্মগেট আনন্দ সিনেমা হলের সামনে ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগ ও কেন্দ্রীয় নেতারা হরতালবিরোধী বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেন। এ সময় যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট মামনুর রশীদ, কেন্দ্রীয় দফতর সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকির হোসেন বাবুল, সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন বক্তৃতা করেন। দুপুর ১২টার দিকে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি, মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করে স্বাধীনতা পরিষদ। এতে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা ব্যারিস্টার জাকির আহাম্মদ, যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সাংবাদিক মানিক লাল ঘোষ, যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আসাদুজ্জামান আজম, আওয়ামী লীগ নেতা এম এম করিম প্রমুখ। এ ছাড়া শাহবাগ, মিরপুর, যাত্রাবাড়ী, রামপুরা, মতিঝিলসহ বিভিন্ন এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে যুবলীগ। শাহবাগ এলাকায় অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে ছাত্রলীগ। এতে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় ও মহানগর নেতারা অংশ নেন। পুরান ঢাকার সূত্রাপুর, কোতোয়ালি, ওয়ারী, গেন্ডারিয়া ঘুরে দেখা গেছে যুবলীগের নেতা-কর্মীদের হরতালবিরোধী উপস্থিতি। দুপুর ১২টার দিকে যুবলীগের মিছিলটি রায়সাহেব বাজার, সদরঘাট লালকুটির হয়ে ভিক্টোরিয়া পার্কে এসে শেষ হয়। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ঢকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সহসভাপতি আলী আকবর বাবুল ও সমাবেশ পরিচালনা করেন সাংগঠনিক সম্পাদক গাজী সারোয়ার হোসেন বাবু।

রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় ও মহানগর নেতারা মিছিল ও সমাবেশ করেন। কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ, সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবু, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি কামরুল হাসান রিপন ও সাধারণ সম্পাদক তারিক সাঈদসহ কেন্দ্রীয় ও মহানগর নেতারা অংশ নেন। বঙ্গবন্ধু এভিনিউ থেকে পল্টন পর্যন্ত বিক্ষোভ করে মৎস্যজীবী লীগ। এতে কেন্দ্রীয় সভাপতি সায়ীদুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক শেখ আজগর নস্কর, কার্যকরী সভাপতি সাইফুল ইসলাম মানিক, প্রচার সম্পাদক শফিউল আলম শফিক, দফতর সম্পাদক এনামুল হক রাজুসহ কেন্দ্রীয় ও মহানগর নেতারা অংশ নেন।

পৃথক এই সমাবেশে বক্তারা হেফাজতের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের প্রতিরোধ করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, হেফাজতে ইসলাম যে হরতাল ডেকেছে, এর পেছনে বিএনপি এবং দন্ডপ্রাপ্ত আসামি তারেক রহমান কলকাঠি নাড়ছেন।  দেশে স্বাভাবিক অবস্থা বিরাজ করছে। আজকে যে কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা ঘটলে এর দায় হেফাজত নেতা মামুনুল হক এবং বাবুনগরীকে নিতে হবে।

সারা দেশে বিক্ষোভ সমাবেশ : আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

রাজশাহী : সকালে নগরীর কুমারপাড়া দলীয় কার্যালয়ের সামনে হরতালবিরোধী মিছিলে নেতৃত্বে দেন মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সিটি মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন। মিছিলটি নগরীর বিভিন্ন সড়ক ঘুরে কুমারপাড়া দলীয় কার্যালয়ের সামনে এসে শেষ হয়। সমাবেশে বক্তব্য দেন নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, সাংগঠনিক সম্পাদক আসলাম সরকার ও মীর ইশতিয়াক আহমেদ লিমন। 

মানিকগঞ্জ : দুপুরে দলীয় কার্যালয় থেকে মিছিলটি বের করে স্বেচ্ছাসেবক লীগ। শহরের শহীদ রফিক সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে প্রেস ক্লাব চত্বরে সমাবেশ করে। কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুল ইসলাম রাজা, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মহীউদ্দীন, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

মাগুরা : জেলা যুবলীগের উদ্যোগে মাগুরা সরকারি কলেজের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি সারা শহর প্রদক্ষিণ করে জামরুলতলা দলীয় কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়। বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী যুবলীগ আহ্বায়ক ফজলুর রহমান, যুগ্ম আহ্বায়ক আলী আহমেদ আহাদ, সাকিবুল হাসান তুহিন, সরদার রেজাউল ইসলামসহ অন্যরা।

নেত্রকোনা : দুর্গাপুরে যান চলাচল স্বাভাবিক রাখতে সড়কে নেমে আসে উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। পরে পৌর শহরের প্রেস ক্লাব মোড়ে সমাবেশ করে ছত্রভঙ্গ করে দেয় হেফাজতের কর্মী-সমর্থকদের। তবে কোনো প্রকার বিশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সৃষ্টির খবর পাওয়া যায়নি। 

সাভার : আশুলিয়া থানা আওয়ামী লীগের বিক্ষোভ মিছিল ও বাইপাইলে সামনে অবস্থান নেয় আওয়ামী লীগ ও কৃষক লীগের নেতা-কর্মীরা। এতে আশুলিয়া আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক ফারুক হাসান তুহিন, সাভার উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান শাহাদাৎ হোসেন খান, ধামসোনা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

আড়াইহাজার : উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের উদ্যোগে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সৈয়দ মো. ইসমাইল হোসেনের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক মো. মনিরুজ্জামান মনির, আবুল বাশার মোল্লা, জাইদুল হক, আবদুল্লাহ রবিউল, মো. মুরাদ খান, নবী উল্লাহ নবী বক্তব্য রাখেন।

কুড়িগ্রাম : কুড়িগ্রামে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে জেলা আওয়ামী লীগ। দলীয় কার্যালয় থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে পুরো শহর প্রদক্ষিণ করে। পরে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আমান উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু, জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট রুহুল আমীন দুলাল, আবুল কালাম আজাদ, মোস্তাফিজুর রহমান সাজু, গোলাম মওদুদ সুজন, মাহফুজার রহমানসহ অন্য নেতা-কর্মীরা।

এই বিভাগের আরও খবর