শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১০ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৯ জুন, ২০২১ ২৩:২৫

সুনামগঞ্জের পাইলগাঁও জমিদার বাড়ি এখন...

সাইফুল ইসলাম বেগ, বিশ্বনাথ (সিলেট)

সুনামগঞ্জের পাইলগাঁও জমিদার বাড়ি এখন...
Google News

এখনো প্রাচীন ইতিহাস-ঐতিহ্যের জানান দিচ্ছে সুনামগঞ্জের ‘পাইলগাঁও জমিদারবাড়ি’। সাক্ষ্য দিচ্ছে কালের বিবর্তনের। ৩০০ বছরেরও বেশি পুুরনো পুুরাকীর্তির অন্যতম নিদর্শন বাড়িটি এখন পর্যটকদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুু। প্রতিদিনই কাঁচা-পাকা মেঠোপথ মাড়িয়ে বাড়িতে ছুটছেন দেশি-বিদেশি মানুষ। ইট-পাথরে লেগে থাকা ইতিহাস-ঐতিহ্যের গল্প ও স্থাপত্যশৈলী দেখতে ভিড় করছেন তারা।       

পাইলগাঁও জমিদারবাড়ি সুনামগঞ্জের প্রাচীন পুুরাকীর্তির অন্যতম নিদর্শন ও প্রধান দর্শনীয় স্থানও। জেলার জগন্নাথপুর উপজেলার পাইলগাঁও ইউনিয়নের পাইলগাঁও গ্রামে ঐতিহ্যবাহী এ জমিদারবাড়ির অবস্থান। স্থানীয়দের কাছে এটি ‘বাবুরবাড়ি’ হিসেবে পরিচিত। জমিদারির নিদর্শন হিসেবে গ্রামে আজও দাঁড়িয়ে আসে এই প্রাসাদ। প্রায় সাড়ে ৫ একর জমিতে প্রতিষ্ঠিত বাড়ি বহন করছে এ অঞ্চলের প্রাচীন ইতিহাস-ঐতিহ্য।   

সরেজমিন পাইলগাঁও জমিদারবাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, বড়দিঘির পাড়েই দাঁড়িয়ে রয়েছে একাধিক দরজাবিশিষ্ট স্থাপনা। এটি ছিল জমিদারি কার্যে ব্যবহৃত প্রধান অফিস। এর একটু পেছনেই ‘বাংলো’ ও ভোগ মন্দির। তার পেছনে পারিবারিক মহল। পেছনে শান বাঁধানো দ্বিতীয় দিঘি। মহলের এক পাশে রয়েছে রক্ষীদের স্থাপনা ও কাছারি ঘর। ওখানে বিচারকার্য শেষে ঘরের পাশেই বড় দেয়ালের ছোট ছোট কামরায় রাখা হতো সাজাপ্রাপ্তদের। জমিদারবাড়ির বেশির ভাগ স্থাপনাই এখন হারিয়েছে জৌলুস। খসে পড়েছে ইট।

 ‘বাংলো’র মাটির চালা, দেয়াল ও দরজা নেই বেশির ভাগ স্থাপনার। কাছারি ঘর গ্রাস করেছে গাছ-গাছালি আর লতাপাতায়।

ইতিহাস থেকে জানা যায়, পাইলগাঁওয়ে পাল গোত্রের লোকজন বাস করতেন। এ গোত্রের পদ্মলোচনের মেয়ে রোহিণীকে বিবাহ করে গৃহ জামাতা হন গৌতম গোত্রের কানাইলাল ধর। তার আট পুরুষ পরে বালক দাস নামের এক ব্যক্তির উদ্ভব হয়। তার কয়েক পুরুষ পর উমানন্দ ধর ওরফে বিনোদ রায় দিল্লির বাদশাহ মোহাম্মদ শাহ প্রদত্ত চৌধুুরী সনদ লাভ করেন। তার দুই ছেলে মাধব ও শ্রীরামের মধ্যে মাধব রাম জনহিতকর কর্মে এলাকায় সুনাম অর্জন করেন। পর্যায়ক্রমে জমিদারি বর্ধিত করে এ বংশের প্রভাবশালী জমিদারের খেতাব অর্জন করেন ব্রজনাথ চৌধুরী। তার পৌত্র ব্রজেন্দ্র নারায়ণ ছিলেন এ বংশের শেষ জমিদার। ব্রজেন্দ্র নারায়ণ চৌধুরী প্রখ্যাত শিক্ষাবিদ, সিলেট বিভাগের কংগ্রেস সভাপতি ও আসাম আইন পরিষদের সদস্য ছিলেন। তিনি সিলেট সরকারি মহিলা কলেজ ও পাইলগাঁও ব্রজনাথ উচ্চ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন।

এই বিভাগের আরও খবর