শিরোনাম
প্রকাশ : ২২ নভেম্বর, ২০২০ ১১:০৩
আপডেট : ২২ নভেম্বর, ২০২০ ১১:১৩

টরন্টোতে লকডাউন, দেশবাসীকে সতর্ক করলেন ট্রুডো

আহসান রাজীব বুলবুল, কানাডা

টরন্টোতে লকডাউন, দেশবাসীকে সতর্ক করলেন ট্রুডো

কানাডার অন্টারিওর প্রিমিয়ার ডগ ফোর্ড আগামী সোমবার থেকে টরন্টো এবং পিল অঞ্চলে লকডাউনের ঘোষণা দিয়েছেন। লকডাউনে জিমনেসিয়াম ও ব্যক্তিগত পরিসেবাসহ অপ্রয়োজনীয় ব্যবসা বাণিজ্য বন্ধ থাকবে এবং লকডাউনের আওতায় হটস্পট এলাকাগুলোতে হোটেল রেস্টুরেন্টে বসে খাওয়া বন্ধ থাকবে।

কানাডায় করোনা মহামারীর দ্বিতীয় পর্যায়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা কমছে না, বরং উদ্বেগজনকহারে বাড়ছে। কানাডার বিভিন্ন প্রদেশে ক্রমবর্ধমানহারে করোনাভাইরাস বেড়ে যাওয়ায় জনমনে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

কানাডার প্রধান চারটি প্রদেশ অন্টারিও, বৃটিশ কলম্বিয়া, আলবার্টা, এবং কুইবেকে নাটকীয়ভাবে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। আর করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধির কারণে হাসপাতাল, নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে ব্যাপকহারে চাপ পড়ছে।

করোনা সংক্রমণ বাড়তে থাকায় দেশবাসীকে সতর্ক করেছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। তিনি সবাইকে বাড়িতে থাকতে এবং যোগাযোগগুলিকে কঠোরভাবে সীমাবদ্ধ রাখার আহ্বান জানান।

এর আগে শুক্রবার, কানাডার প্রধান জনস্বাস্থ্য বিষয়ক কর্মকর্তা ডা: থেরসা ট্যাম সাংবাদিকদের বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে আমরা যে অবস্থায় আছি, যদি এর উপরে করোনা সংক্রমণ আরও বৃদ্ধি পায় তবে আমরা কঠিন সমস্যায় পড়বো।

উল্লেখ্য, বিভিন্ন প্রদেশের স্থানীয় নীতিনির্ধারকরা একের পর এক বিধিনিষেধ আরোপ করছে। আর এই বিধিনিষেধ শুধু অফিস-আদালতেই সীমাবদ্ধ নয়। সামাজিকভাবে জনসমাগম এড়িয়ে চলতে স্থানীয়দের একে অপরের বাড়িতে কম যাতায়াত এবং যথাসাধ্য মাস্ক ব্যবহারের আহ্বান জানাচ্ছে। কানাডায় সামাজিক দূরত্ব, স্বাস্থ্যবিধি, সরকার কর্তৃক বিভিন্ন বিধিনিষেধ দেয়া সত্বেও করোনা ভাইরাসকে কোনোভাবেই নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না।

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর