শিরোনাম
প্রকাশ : ২৭ জুন, ২০২১ ২২:২৯
প্রিন্ট করুন printer

এআই ক্যাটাগরিতে ১২টি আন্তর্জাতিক পুরস্কার জিতল অপো

অনলাইন ডেস্ক

এআই ক্যাটাগরিতে ১২টি আন্তর্জাতিক পুরস্কার জিতল অপো
Google News

অপো উদ্ভাবিত উন্নত কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই) প্রযুক্তি ‘স্মার্ট হোম’ সেবা বিশেষ করে বাসায় শিশুদের কর্মকাণ্ড মনিটরিং করতে সক্ষম। এমনকি পাশের রুমে থাকা সন্তান যদি ডিভাইসে ক্ষতিকর কিছু করে থাকে তাহলে এআই প্রযুক্তি বাবা-মাকে সতর্ক করে দিবে। জীবনযাত্রাকে সহজ করে দেয় এমনই কিছু প্রযুক্তি উদ্ভাবন করে সম্প্রতি আন্তর্জাতিক পুরস্কার জিতেছে অপো।

‘কম্পিউটার ভিশন অ্যান্ড প্যাটার্ন রেকগনিশন কনফারেন্স (সিভিপিআর)-২০২১’ শীর্ষক ইভেন্টে অংশ নিয়ে সর্বমোট ১২টি পুরস্কার জিতেছে অপো। এর মধ্যে একটিতে প্রথম স্থান, সাতটিতে দ্বিতীয় স্থান এবং চারটিতে তৃতীয় স্থান দখল করে। অপোর ডিভাইসে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই) উন্নয়নে এসব পুরস্কার লাভ করে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটি।
অপোর ইন্টেলিজেন্ট পারসেপশন অ্যান্ড ইন্টারেকশন ডিপার্টমেন্ট ও অপো রিসার্চ ইনস্টিটিউট এর ইউএস রিসার্চ সেন্টার থেকে সিভিপিআর এর এই প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়।

অপোর ইন্টেলিজেন্ট পারসেপশন এর প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা এরিক গুয়ো তাদের এমন অর্জন সম্পর্কে বলেন, সিভিপিআর চ্যালেঞ্জে অংশ নিয়ে এ কৃতিত্ব অর্জন করায় আমরা সত্যিই আনন্দিত। আমরা যেসব চ্যালেঞ্জে জয়লাভ করি তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো মাল্টি-এজেন্ট বিহেভিয়ার, এভিএ-কাইনেটিক্স এবং থ্রিডি ফেস রিকনস্ট্রাকশন ফ্রম মাল্টিপল টুডি ইমেজ।
এরিক বলেন, এসব প্রযুক্তি ম্যানুফ্যাকচারিং, হোম, অফিস, ফটোগ্রাফি, স্বাস্থ্য এবং মবিলিটি কাজে ব্যবহৃত হয়। কারণ অপো সবসময় উন্নতমানের কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করে গ্রাহকদের অভিজ্ঞতাকে সমৃদ্ধ করতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।  

১১টি সম্মাননার মধ্যে অপো মাল্টি-এজেন্ট বিহেভিয়ার চ্যালেঞ্জ ক্যাটাগরিতে তিনটি পুরস্কার লাভ করে। এর মধ্যে লার্নিং নিউ বিহেভিয়ার ক্যাটাগরিতে প্রথম স্থান, ক্লাসিক্যাল ক্লাসিফিকেশন দ্বিতীয় স্থান এবং অ্যানোটেশন স্টাইল ট্রান্সফার বিভাগে তৃতীয় স্থান লাভ করে।

অপোকে যেসব কারণে পুরস্কার দেওয়া হয় তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে অপো উদ্ভাবিত নিজস্ব অ্যালগরিদম এক মিলিমিটারের মধ্যে ত্রুটিযুক্ত ত্রিমাত্রিক ফেসিয়াল আকার ঠিক করে ফেলতে পারে। অস্বচ্ছ ফেসিয়াল ফিচার, অতিরঞ্জিত প্রকাশভঙ্গি এমনকি গতিশীল ভিডিওতে নষ্ট হয়ে যাওয়া ইমেজ ডেটাসহ নানাবিধ সমস্যা সমাধানে এসব প্রযুক্তি সাহায্য করে। তাছাড়া অপো উদ্ভাবিত ফেসিয়াল ডিটেকশন অ্যালগরিদম প্রতি সেকেন্ডে ৩০ বার ৬৩৫টি প্রধান ফিচার চিহ্নিত করতে সক্ষম। এ প্রযুক্তি প্রোর্ট্রটে ভিডিও প্রযুক্তি সম্প্রসারণে সাহায্য করে।

তাছাড়া, অপোর এআই প্রযুক্তি স্থান ও সময়ানুসারে ‘হিউম্যান অ্যাকশন’ চিহ্নিত করতে পারে। সকারনেট চ্যালেঞ্জে অংশ নিয়ে অ্যাকশন স্পটিং অ্যান্ড রিপ্লাই গ্রাউন্ডিং উভয় ক্ষেত্রেই দ্বিতীয় স্থান দখল করে অপো। কারণ সকার গেমের ভিডিওতে আরো নিখুঁতভাবে নানাবিধ কার্যাবলি অ্যালগরিমদ চিহ্নিত করতে পারে। অপোর শক্তিশালী এআই অ্যালগরিদম শুধুমাত্র ভিজ্যুয়াল ডেটা ব্যবহার করে নিঁখুতভাবে ভিডিওতে দশ ধরণের জিনিস যেমন টকিং, ক্রাউচিং অ্যান্ড ওয়াকিং চিহ্নিত করতে পারে। মোদ্দাকথা, অপো কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তি শুধুমাত্র আপনি কি করছেন সেটা বুঝতে পারে না আপনি কোথায় ও কখন করছেন সেটিও ধরতে পারে।   


বিডি প্রতিদিন/হিমেল

এই বিভাগের আরও খবর