২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৯:১৩

ভারী বর্ষণে ভূমিধস, পরিস্থিতি মোকাবেলায় স্বেচ্ছাসেবকদের প্রশিক্ষণ দিচ্ছে ব্র্যাক

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

ভারী বর্ষণে ভূমিধস, পরিস্থিতি মোকাবেলায় স্বেচ্ছাসেবকদের প্রশিক্ষণ দিচ্ছে ব্র্যাক

দেশে চলতি বর্ষা মৌসুমে আকস্মিক বন্যা ও ঘূর্ণিঝড়ের ঘটনা প্রায় ঘটছে। আবার ভারী বর্ষণের ফলে চট্টগ্রাম, কক্সবাজারসহ বিভিন্ন পাহাড়ি এলাকায় এই সময় কম-বেশি ভূমিধ্বস হচ্ছে। কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বিভিন্ন সময়ে অগ্নিকান্ডের ঘটনাও নেহাৎ কম নয়। এই প্রেক্ষাপটে সরকারের দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় এর অধীন ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচির স্বেচ্ছাসেবকদের উন্নত প্রশিক্ষণ দিচ্ছে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাক। 

প্রশিক্ষণার্থীরা দেশের দুর্যোগে জরুরি উদ্ধার কাজে জনগণকে সহযোগিতা করবেন এবং আহত জনগোষ্ঠীকে প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করবেন।

আজ বৃহস্পতিবার কক্সবাজারের ইনানীর অর্কিড ব্লু হোটেলে ২০ জন প্রশিক্ষণার্থীদের অংশগ্রহণে শেষ হয় এই ভিন্ন ধরণের প্রশিক্ষণ। এই ব্যাচে ১১ জন ছিলেন পুরুষ ও ৯ জন ছিলেন নারী। ‘দুর্যোগে সাড়াদান ও জরুরি উদ্ধার কার্যক্রম’ শিরোনামে গত ২৯শে আগস্ট থেকে পাঁচদিন ব্যাপী এই প্রশিক্ষণ শুরু হয়েছিল। প্রশিক্ষণ শেষে লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে সনদপত্র বিতরণ করা হয়।

ভূমিধ্বস, অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা, জরুরি অনুসন্ধান ও উদ্ধার এবং প্রাথমিক চিকিৎসায় করণীয় নিয়ে ছিল মূল প্রশিক্ষণের আয়োজন। অস্ট্রেলিয়ান সরকারের (Australian Aid) এর আর্থিক সহযোগিতায় ব্র্যাকের মানবিক সহায়তা কর্মসূচির আওতাধীন দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাস সেক্টর এই প্রশিক্ষণ কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। প্রশিক্ষণ বাস্তবায়নে সহযোগী হিসেবে ছিল বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স। 

তাত্ত্বিক ও ব্যবহারিক সমন্বিত এই প্রশিক্ষণ কার্যক্রমে পুরুষের পাশাপাশি নারীদের অংশগ্রহণ ছিল চোখে পড়ার মতো। এর মধ্যে ছিল ভূমিধ্বস ও আগুন লাগার ঘটনায় স্থানীয় জনসাধারণের মাঝে কেউ আহত হলে তাদেরকে উদ্ধারে কি করণীয়, জরুরি সময়ে আহত মানুষকে উদ্ধার করার পদ্ধতি, কেউ অগ্নিদগ্ধ হলে কিভাবে তাদের সেবা দিতে হবে সে বিষয়ে তাত্ত্বিক আলোচনা ও ব্যবহারিক জ্ঞান। এর পাশাপাশি ভূমিধসের ধরণ অনুযায়ী কিভাবে উদ্ধার কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে সে বিষয়ে বিস্তারিত আলোকপাত করা হয়।

প্রশিক্ষণের তৃতীয় দিন উপস্থিত ছিলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. আতিকুল হক। এ সময় তিনি প্রশিক্ষণার্থীদের উদ্দেশে দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন, দুর্যোগ মোকাবেলায় স্থানীয় পর্যায়ে স্বেচ্ছাসেবকদের দক্ষতা বৃদ্ধির কোন বিকল্প নেই। এইরকম একটি মানবিক কাজে ব্র্যাক উদ্যোগ গ্রহণ করায় আমরা সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই।  

২০২০ সালের নভেম্বর মাস থেকে এখন পর্যন্ত ব্র্যাক কক্সবাজার জেলায় ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতির আওতায় ৮৬০০ স্বেচ্ছাসেবকদের মধ্যে ১২০ জনকে এই প্রশিক্ষণ দিয়েছে। সরকারী সূত্র অনুযায়ী, দেশে ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতির  আওতায় স্বেচ্ছাসেবকদের সংখ্যা ৭৬ হাজার।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স এর পক্ষ থেকে প্রশিক্ষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানটির সহকারী পরিচালক (প্রশিক্ষণ) আব্দুল মোমেন, প্রশিক্ষক শামস আরমান,উপ-সহকারী পরিচালক মো. আব্দুললাহ, সহকারী প্রশিক্ষক শাহ ইমরান ও সংশ্লিষ্ট নেতৃবৃন্দ।  

ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচির পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার জেলার উপ-পরিচালক মো. রুহুল আমিন। অনুষ্ঠানে ব্র্যাক কর্মকর্তাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাস কর্মসূচির লিড আব্দুললাহ আল রায়হান, সেক্টর স্পেশালিস্ট শুভ কুমার সাহা ও সহকারী প্রকল্প অফিসার মতিয়ার রহমান।  

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর

এই বিভাগের আরও খবর