শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩১ মার্চ, ২০২০ ২৩:৩৭

অনেকেই পাননি খাদ্যসামগ্রী

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি

জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগ শুরু হলেও এখনো অনেক পরিবার সরকারি সহায়তা থেকে বঞ্চিত। এখনো হাজার হাজার পরিবার খাদ্যসামগ্রীর জন্য অপেক্ষায়। তাদের কাছে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছায়নি।

চুয়াডাঙ্গা শহরের মুসলিমপাড়ার মৃত মহর আলী তিন কন্যাসন্তান রেখে মারা গেছেন। স্ত্রী পারভীন খাতুনের দিন চলে অনাহারে-অর্ধাহারে। পারভীন খাতুন বলেন, শুনলাম সরকার থেকে খাবার দিচ্ছে। আমি এখনো পাইনি। একই কথা বলেন তার প্রতিবেশী মাজেদা খাতুন। তিনিও সরকারি সহায়তা নিতে আগ্রহী। বাইরে বেরোনো নিষেধ বলে কোথাও যেতেও পারছেন না। কেউ তার বাড়িতে এসেও কোনো খাদ্যসামগ্রী দিয়ে যায়নি।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধ সংক্রান্ত সদর উপজেলার আলোকদিয়া ইউনিয়ন কমিটির আহ্বায়ক ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বিকাশ কুমার সাহা জানান, তালিকা অনুযায়ী তিনি নিজে বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছেন। বিতরণ করতে গিয়ে বোঝা যাচ্ছে চাহিদা রয়েছে আরও অনেক বেশি।

আলোকদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ইসলাম উদ্দিন বলেন, আমার ইউনিয়নেই এখনো শত শত মানুষ খাদ্যসামগ্রীর জন্য অপেক্ষায় আছে।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ সাদিকুর রহমান বলেন, মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত ২৩ টন চাল বিতরণ করা হয়েছে। প্রতি পরিবারে ১০ কেজি করে চাল ও অন্যান্য সামগ্রী দেওয়া হচ্ছে। অনেকেই এখনো পাননি এটা ঠিক, তবে, বিতরণ অব্যাহত আছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর