শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২৩:২০

প্রচারণায় মুখর ফুলপুর

ফুলপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

প্রচারণায় মুখর ফুলপুর

আর মাত্র পাঁচ দিন পর ১৪ ফেব্রুয়ারি ময়মনসিংহের ফুলপুর পৌরসভা নির্বাচন। নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রার্থীদের দৌড়ঝাঁপের যেন শেষ নেই। শীত উপেক্ষা করে ভোটারদের বাড়িতে বাড়িতে ঘুরছেন দিনে রাতে। আর ছায়াছবির গানের সঙ্গে তাল মিলিয়ে মন মাতানো গানে মাতিয়ে রাখছেন পুরো এলাকা। ফলে পৌর এলাকার সর্বত্রই বাহারি প্রচারণায় মুখরিত।  এসব কারণে জমজমাট নির্বাচনী আমেজ বিরাজ করছে। হাট-বাজার, রাস্তার মোড়, পাড়া-মহল্লায় সর্বত্রই ঝুলছে প্রার্থীদের ছবি ও প্রতীক সংবলিত পোস্টার। ছেয়ে গেছে পৌর এলাকায়। সরেজমিন ঘুরে ও ভোটারদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এখনো পর্যন্ত কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। প্রাণবন্তকর পরিবেশে চলছে প্রচারণা। সব দ্বিধা-দ্বন্দ্ব ভুলে নৌকাকে বিজয়ী করার লক্ষ্যে এবার আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ। তারা ফুরফুরে মেজাজে রয়েছেন। ফুলপুর পৌরসভা নির্বাচনে এবার পাঁচজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তারা হলেন, আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শশধর সেন (নৌকা), বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মো. আমিনুল হক (ধানের শীষ), আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. শাহজাহান (জগ), বিএনপির বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী রকিবুল হাসান সোহেল (নারিকেল গাছ) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী এম এইচ ইউসুফ (মোবাইল)। জানা যায়, দলীয় বিদ্রোহী প্রার্থীর কারণে গত পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর ভরাডুবি হয়েছিল এ পৌরসভায়। তবে বিদ্রোহী থাকলেও জয় ছিনিয়ে নিতে সক্ষম হয়েছিল বিএনপি। এবারের নির্বাচনেও বিদ্রোহী মাঠে থাকায় দলীয় প্রার্থীদের কঠিন পরীক্ষায় পড়তে হবে বলে ধারণা স্থানীয়দের। ২০১৫ সালের ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনে বিএনপির দলীয় প্রার্থী মো. আমিনুল হক (ধানের শীষ) আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী শশধর সেনকে (নৌকা) পরাজিত করে মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন। দলীয় বিদ্রোহী প্রার্থীর কারণে ভোট দুই ভাগ হয়ে তখন পরাজয় হয় আওয়ামী লীগ প্রার্থীর। এবার ১৪ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে বিএনপি চাচ্ছে তাদের পদ ধরে রাখতে আর আওয়ামী লীগ চাচ্ছে পদটি পুনরুদ্ধার করতে। বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী নারিকেল গাছ প্রতীক নিয়ে ধানের শীষের দুর্গে আঘাত হানতে মরিয়া হয়ে অব্যাহত রেখেছে প্রচারণা। আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শশধর সেন বলেন, বিদ্রোহী প্রার্থীর কারণে গতবার নৌকার পরাজয় হয়েছিল। আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র জগ প্রতীকের প্রার্থী মো. শাহজাহান বলেন, আশা করি মানুষ আমাকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করবেন। বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী মো. আমিনুল হক বলেন, গত পাঁচ বছর এলাকার রাস্তাঘাটসহ প্রচুর উন্নয়নমূলক কাজ করেছি। তবে বিএনপির বিদ্রোহী নারিকেল গাছ প্রতীকের প্রার্থী রকিবুল হাসান সোহেল বলেন, আমার জয় হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। মোবাইল প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী এম এইচ ইউসুফ বলেন, তারুণ্যের প্রথম ভোট হোক উন্নয়নের স্বার্থে ও জনগণের পক্ষে। স্বাস্থ্য, শিক্ষা, বিদ্যুৎ, যোগাযোগ ও দরিদ্র, অসহায়, অসচ্ছল মানুষের ভাগ্যের উন্নয়নসহ সর্বক্ষেত্রে উন্নয়নের লক্ষ্যে পৌরবাসী ভোট দিয়ে আমাকে বিজয়ী করবেন। আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি রবিবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত চতুর্থ ধাপে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট হবে ফুলপুর পৌরসভায়। পাঁচ মেয়র প্রার্থী ছাড়াও ৯টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ৪৪ জন ও সংরক্ষিত ৩টি ওয়ার্ডে ১৩ জন নারী প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর