শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০১:৪৫

আওয়ামী লীগের দুই পক্ষে সংঘর্ষ, ভাঙচুর

ফরিদপুর ও নাটোর প্রতিনিধি

আওয়ামী লীগের দুই পক্ষে সংঘর্ষ, ভাঙচুর

ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন। দফায় দফায় সংঘর্ষের সময় প্রতিপক্ষের ২০টি ঘর ভাঙচুর ও লুটপাট চালায় প্রতিপক্ষ। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ  মোতায়েন করা হয়েছে। জানা যায়, গত রবিবার সন্ধ্যায় উপজেলার চতুল ইউনিয়নের বাবুরবাজারে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে বর্তমান চেয়ারম্যান এবং যুবলীগ নেতা শরীফ সেলিমুজ্জামান লিটুর পক্ষে নির্বাচনী সভা হওয়ার কথা ছিল। এ সময় অপর এক সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী এবং যুবলীগ নেতা রফিকুল ইসলামের পক্ষ নিয়ে স্থানীয় হাসমত শেখ তার অনুগতদের নিয়ে ওই সভা বানচাল করার চেষ্টা করেন। এ সময় সেলিমুজ্জামান লিটুর অনুগত জামাল মাতুব্বরের নেতৃত্বে উভয় পক্ষ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষ চলাকালীন তিনটি দোকান ভাঙচুর করে হামলাকারীরা। এতে উভয় গ্রুপের ১০ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে হাসমত শেখকে অবস্থা আশঙ্কাজনক  ফরিদপুর মেডিকেলে প্রেরণ করা হয়েছে। বোয়ালমারী থানার ওসি মোহাম্মদ নুরুল আলম জানান, পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এদিকে, নাটোরের সিংড়ায় আওয়ামী লীগের দুই গ্র“পের সংঘর্ষে সাতজন আহত হয়েছেন। ভাঙচুর হয়েছে পাঁচটি বাড়িঘর। রবিবার বিকালের ঘটনাটি এটি। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ডাহিয়া ইউনিয়নের বিয়াশ উচ্চবিদ্যালয় মাঠে শীতবস্ত্র বিতরণের আয়োজন করে স্থানীয় আওয়ামী লীগ। এ সময় স্লোগান দেওয়া নিয়ে দুই পক্ষে উত্তেজনা দেখা দেয়। একপর্যায়ে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ স¤পাদক সিরাজুল মজিদ মামুনের সমর্থকদের পাঁচটি বাড়ি ভাঙচুর করেন ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালামের সমর্থকরা। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের সাতজন আহত হন। সিংড়া থানা পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর