শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৮ মে, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ মে, ২০২১ ২৩:২৩

পাঁচ রাবার ড্যামে বদলে গেছে লাখো মানুষের জীবন-জীবিকা

রিয়াজুল ইসলাম, দিনাজপুর

পাঁচ রাবার ড্যামে বদলে গেছে লাখো মানুষের জীবন-জীবিকা
Google News

দিনাজপুরের সাত উপজেলার মানুষের জীবন-জীবিকা বদলে দিয়েছে পাঁচটি রাবার ড্যাম প্রকল্প। এসব রাবার ড্যামের ফলে শুষ্ক মওসুমে প্রায় ৯ হাজার হেক্টর জমিতে সেচ সুবিধা পাচ্ছেন কৃষক। এতে অতিরিক্ত খাদ্যশস্য উৎপাদন হচ্ছে প্রায় ১৩ হাজার মেট্রিক টন। এ ছাড়াও এ অঞ্চলের জীববৈচিত্র্যেও এসেছে ব্যাপক পরিবর্তন। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের তত্ত্বাবধানে আত্রাই, টাঙ্গন, পুনর্ভবা নদীতে ‘মোহনপুর, কাঁকড়া, রানীরঘাট, সাগুনি ও পাথরঘাটা’ এলাকায় নির্মিত হয়েছে এই রাবার ড্যাম। ফলে এ অঞ্চলের মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়নের পাশাপাশি, পরিবর্তন এসেছে জীব বৈচিত্র্যেও। আর দিনাজপুরের এই পাঁচটি রাবার ড্যাম বদলে দিয়েছে জেলার সাত উপজেলার আড়াই শতাধিক গ্রামের প্রায় ১১ লাখ মানুষের জীবন-জীবিকা। এসব এলাকার বাসিন্দারা বলছেন, রাবার ড্যাম হওয়ার পর বদলে গেছে নদীর দুই পাড়ের মানুষের জীবন-জীবিকা। পানি সংরক্ষণের মাধ্যমে শুষ্ক মৌসুমে পূরণ হচ্ছে সেচের অভাব। পড়ে থাকা জমিতে খরা মৌসুমেও কৃষক চাষাবাদ করতে পারছেন। এতে কৃষকের উৎপাদন খরচ যেমন কমেছে। তেমনি বেড়েছে আয়। পাশাপাশি অনেক স্থানে খাবার পানির সংকট মিটেছে। এছাড়াও মৎস্যজীবী পরিবারদের মিটছে মৌলিক চাহিদা। সৃষ্টি হয়েছে মাছ চাষের সু-ব্যবস্থা। কৃষকরা বলছেন, এক সময় বোরো মৌসুমে পানির স্তর নিচে নেমে যাওয়ায় বোরো আবাদ নিয়ে মারাত্মক দুশ্চিন্তায় থাকতেন এসব এলাকার শত শত কৃষক। কিন্তু রাবার ড্যাম নির্মাণ হওয়ায় বোরো আবাদসহ সবসময় সেচ নিয়ে আর তাদের ভাবতে হচ্ছে না। রাবার ড্যাম থেকে সেচ সুবিধা নিতে কৃষকদের দিতে হচ্ছে না কোনো অতিরিক্ত খরচ। এতে কৃষকরা আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছেন।

এই বিভাগের আরও খবর