শিরোনাম
মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ টা

সংক্ষিপ্ত

পর্নোগ্রাফি মামলায় দুই সহোদর জেলহাজতে

পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইন মামলায় সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার বিবিয়ানা কলেজের অধ্যক্ষ নৃপেন্দ্র চন্দ্র দাস ও তার ছোট ভাই হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার বড়ভাকৈর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রঙ্গলাল দাসকে জেলহাজাতে পাঠিয়েছে আদালত। গতকাল দুপুরে জেলার দিরাই আমলগ্রহণকারী জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে জামিনের জন্য আবেদন করলে বিচারক ওই দুই আসামির জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতের পাঠানোর নির্দেশ দেন চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ আবদুর রহিম।  ২০২০ সালের ১৫ অক্টোবর দুই ভাইয়ের বিরুদ্ধে পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলটি করেন দিরাই উপজেলার এক নারী। জানা যায়, দিরাই উপজেলার বিবিয়ানা কলেজের অধ্যক্ষ নৃপেন্দ্র চন্দ্র দাসের সঙ্গে মামলার বাদী ওই নারীর প্রেমের সম্পর্ক থাকাকালীন গোপন ক্যামেরায় ধারণ করা  অন্তরঙ্গ  মুহূর্তের কিছু ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করেন। এ ঘটনার পর ২০২০ সালের ১৫ অক্টোবর দুই ভাইকে আসামি করে পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে আদালতে মামলা করেন ওই নারী।      

পরবর্তীতে উচ্চ আদলত থেকে জামিন নেন মামলার দুই আসামি। জামিনের মেয়াদান্তে গতকাল চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদলতে হাজির হলে বিচারক তাদের জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। বাদীপক্ষের আইনজীবী মো. মাসুম আলম পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইন মামলায় দুই ভাইকে আদালত কর্তৃক জেলহাজতে পাঠানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

-সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

 

চাঁদাবাজি মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার

ফরিদপুরে চাঁদাবাজি মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন এক ইউপি চেয়ারম্যান। হাই কোর্টের জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ায় ওই মামলায় গতকাল ফরিদপুরের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে জামিন চাইলে বিচারক আবদুল হামিদ তা নাকচ করেন। গ্রেফতার শহীদুল ইসলাম মজনু ফরিদপুর সদরের ঈশান গোপালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান। জানা যায়, ২০২০ সালের ৬ সেপ্টেম্বর কোতোয়ালি থানায় ইউপি চেয়ারম্যান শহীদুল ইসলামসহ পাঁচজনকে আসামি করে চাঁদাবাজির অভিযোগে মামলা করেন দুর্গাপুর গ্রামের মোল্লা পোলট্রি ফার্ম অ্যান্ড হ্যাচারির মালিক জাহিদ মোল্লা।    

-ফরিদপুর প্রতিনিধি

 

ডাকাতি করতে এসে বিষ দিয়ে পাঁচ কুকুর হত্যা

ঢাকার আশুলিয়ায় এক বাড়িতে ডাকাতি করতে এসে বিষ দিয়ে পাঁচটি কুকুর হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। আশুলিয়ার ধামসোনা ইউনিয়নের নলাম এলাকার শওকত হোসেনের বাড়িতে গতকাল ভোররাতে এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা জানান, কুকুরগুলো সতর্ক থাকায় ওই বাড়িতে হানা দিতে পারছিল না ডাকাতদল। শেষ পর্যন্ত তারা কুকুরগুলো মেরে ফেলার ফন্দি আঁটে। তারা কুকুরের খাবার সংগ্রহ করে এনে তাতে বিষ মিশিয়ে খেতে দেয়। কুকুরগুলোর মৃত্যুর অপেক্ষায় থেকে ভোরের আলো ফোটার সঙ্গে সঙ্গে পালিয়ে যায় ডাকাতরা। সকাল থেকে একে একে পাঁচটি কুকুর মারা যায়। গৃহকর্তা শওকত হোসেন বলেন, ‘কুকুরগুলো ছিল আমাদের খুবই আদরের। এরা নিজেদের প্রাণ দিয়ে আমাদের সম্পদ রক্ষা করেছে। ডাকাতরা আমাদের সব লুটে নিলেও ততটা দুঃখ পেতাম না যতটা পেয়েছি কুকুরগুলোর মৃত্যুতে।’

-সাভার প্রতিনিধি

এই রকম আরও টপিক

সর্বশেষ খবর