শিরোনাম
প্রকাশ : ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯ ২৩:০৭

সম্পর্কের উন্নতি করতে সীমান্তে বিজিবি-বিএসএফ ভলিবল খেলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

সম্পর্কের উন্নতি করতে সীমান্তে বিজিবি-বিএসএফ ভলিবল খেলা

বিজিবি-বিএসএফ উভয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর মধ্যে সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ক আরো উন্নত ও গতিশীল করার উদ্দেশ্যে ‘‘বিজয় দিবস বিজিবি-বিএসএফ পিস পার্টনার ভলিবল প্রতিযোগিতা-২০১৯’’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ প্রতিযোগিতা গত ১০ ডিসেম্বর শুরু হয়ে বৃহস্পতিবার বিকালে ভোলাহাট পাবলিক ক্লাব ফুটবল মাঠে বিকাল ৩ টায় ফাইনাল খেলার মধ্যে দিয়ে সমাপ্ত হয়।

এই প্রতিযোগিতায় রাজশাহী সেক্টর এর ১৬, ৫৩ ও ৫৯ বিজিবি এবং বিএসএফ, মালদা ও বেহারামপুর সেক্টরের ২৪, ৩৫, ৪৪, ৬০, ৭৮ এবং ১৪১ বিএসএফ ব্যাটালিয়ন অংশগ্রহণ করে। দু’টি গ্রুপে মোট ০৬টি দল অংশগ্রহণ করে এবং প্রত্যেক দলে বিজিবি এর ০৫ জন ও বিএসএফ এর ০৫ জন খেলোয়াড় সমভাবে অংশগ্রহণ করে।

খেলাসমূহ বাংলাদেশ-ভারত উভয় পার্শ্বে অনুষ্ঠিত হয় এবং বাংলাদেশ পার্শ্বের খেলাসমূহ বিজিবি এবং ভারত পার্শ্বের খেলাসমূহ বিএসএফ এর সার্বিক ব্যবস্থাপনায় পরিচালিত হয়। প্রাথমিক পর্যায়ে দুটি গ্রুপের প্রতিযোগিতায় ‘এ’ গ্রুপের পিপি-৬ এবং ‘বি’ গ্রুপের পিপি-৪ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে ফাইনালে উত্তীর্ণ হয়।

বৃহস্পতিবার বিকাল ৩ টায় ভোলাহাট উপজেলার ভোলাহাট পাবলিক ক্লাব ফুটবল মাঠ, গোপীনাথপুরে পিপি-৬ (৫৩ বিজিবি ও ৩৫ বিএসএফ) এবং পিপি-৪ (৫৯ বিজিবি ও ৪৪ বিএসএফ) এর মধ্যকার ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়। চূড়ান্ত খেলায় পিপি-৪ (৫৯ বিজিবি ও ৪৪ বিএসএফ) রানারআপ এবং পিপি-৬ (৫৩ বিজিবি ও ৩৫ বিএসএফ) চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে।

সমাপনী অনুষ্ঠানে কর্নেল তুহিন মোহাম্মদ মাসুদ, বিপিএম, জি, সেক্টর কমান্ডার, বিজিবি রাজশাহী, শ্রী সঞ্জয় গৌর, সেক্টর কমান্ডার, বিএসএফ মালদা, শ্রী রাজপাল সিং, ভারপ্রাপ্ত সেক্টর কমান্ডার, বিএসএফ বেহারামপুর উপস্থিত থেকে বিজয়ী এবং বিজিত দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে ট্রফি, মেডেল ও পুরস্কার বিতরণ করেন।

এছাড়া প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী বিজিবি-বিএসএফ ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক, স্টাফ অফিসার্স, প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ, এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এবং সাধারণ জনগণসহ প্রায় ২,০০০ জন উপস্থিত ছিলেন। টুর্নামেন্টের আয়োজকরা জানান বিজিবি এবং বিএসএফ উভয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর মধ্যে সৌহার্দপূর্ণ সর্ম্পক গতিশীল ও উন্নততর করার উদ্দেশ্যে ভবিষ্যতেও এ ধরণের খেলাধূলার আয়োজন অব্যাহত থাকবে।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য